1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

বিমানে চলফোনের চলাচল নিয়ে জার্মান মতামত

বিমানে চলফোন৷ এ নিয়ে জার্মানদের মধ্যে দেখা যাচ্ছে বেশ দ্বিধা৷ তরুণ প্রজন্ম বিমানে মোবাইল চান না৷ কিন্তু মাঝবয়সিরা আবার আকাশে উড়তে উড়তেও মোবাইলে কান রাখতে চান৷

telefon, বিমান, ফোন, জার্মানি, সমীক্ষা, তরুণ, প্রবীণ, উড়াল, Plane, Phone, Flight

বিমানে চলফোনে কথা বলছেন এক যাত্রী

এক্বেবারে নতুন এই সমীক্ষার ফলাফল৷ বিভিন্ন প্রজন্মের মোবাইলধারী বিমানযাত্রীদের কাছে হাজির হয়েছিল সমীক্ষাকারী সংস্থা বিটকম৷ তাতে মোটের ওপর ফলাফল ৫৫ শতাংশ জার্মান চান না বিমানে ওড়ার সময় মোবাইল চালু থাকুক৷ আর ১৮ শতাংশ চলফোন প্রেমী দেখা গেছে তাঁদের মুঠোয় ধরা বাক্য যন্ত্রের সর্বক্ষণের সঙ্গ চান৷ তাদের দাবি, বিমানে উড়তে উড়তেও চাই মোবাইলের সংযোগ৷

তো, জার্মান জাতীয় বিমান পরিবহণ সংস্থা লুফটহানসা এই মোবাইল নিয়ে নতুন ধরণের ব্যবসায় নেমে পড়েছে৷ বিমানে ওড়ার সময় সচরাচর মোবাইল ফোন চালু থাকে না৷ বিশেষ সফটওয়্যার ব্যবহার করে লুফটহানসা নিয়ে আসছে দুরন্ত অফার৷ যাতে বিমানে ওঠার পর আপনি যদি নিজের চলফোনটি চালু রাখতে চান তাহলে আপনাকে এক ঘন্টার জন্য পকেট থেকে বের করতে হবে ১১ ইউরো৷ মানে প্রায় হাজার টাকার মত৷ আর যদি আকাশে যেতে যেতে একটানা চব্বিশ ঘণ্টা আপনার মোবাইলের সুমধুর স্বর শুনতে চান, তাহলে দেবেন বিশ ইউরো৷ মানে হল, প্রায় দুই হাজার টাকার কাছাকাছি৷

লুফটহানসার এই ব্যবসাবুদ্ধিতে সাড়া দেবেন কতজন? শোনা যাক সমীক্ষার ফলাফল৷ অধিকাংশ তরুণ ছেলেমেয়েদের বক্তব্য, আকাশে যখন আমি থাকব, গোটা দুনিয়ার সঙ্গে আমি বিচ্ছিন্ন থাকতে চাই৷ তার মানে হল, মোবাইলটি অকেজো থাকবে সেই সময়টা জুড়ে৷ কিন্তু মাঝবয়সী থেকে প্রবীণদের মতে, না৷ আকাশে ওড়ার সময়েও চাই মোবাইলের সম্পর্ক৷ যাতে অন্যদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলা যায়৷ কিংবা করা যায় এসএমএস৷

শুধুই সেই এসএমএসের ব্যাপার থাকলে আপত্তি নেই৷ কিন্তু উড়ন্ত বিমানের মধ্যে পাশের সহযাত্রী যদি সারাক্ষণ মোবাইলে বকর বকর করে, তাহলে অনেকের তো অসুবিধেও হতে পারে! অন্তত ১৫ শতাংশ বিমানযাত্রী নিজেদের সেই আপত্তির কথা জানিয়েছেন৷ আর শতকরা ১০ শতাংশ বিমানযাত্রীর পরামর্শ, বিমানে যদি মোবাইল চালু করতেই হয়, তবে তার জন্য আলাদা একটা ঘর করে দেওয়া হোক৷ যেখানে গিয়ে মোবাইলপ্রেমীরা প্রাণ খুলে বকবক করবে৷

আর মোবাইলের প্রতি প্রেম থাকলেও বিমানে মোবাইলকে চালু রাখতে একেবারেই রাজি নন শিল্পজগতের সঙ্গে যুক্ত ব্যস্ত ব্যবসায়ীরা৷ মাটিতে তো সারাক্ষণই মোবাইলে উৎপাত! বলেছেন তাঁরা৷ ‘কিছুটা সময় ওই ভয়াবহ যন্ত্রের হাত থেকে নিস্তার চাই৷ তা নাহলে অন্য কোন উপায় নেই ওই মোবাইলের খপ্পর থেকে মুক্তি পাওয়ার৷'

সত্যিই তাই৷ প্রযুক্তির বাড়াবাড়ির উৎপাতের নমুনা তো কিছু কম নেই চারদিকে! আকাশে উড়ে অন্তত কিছুটা সময় তাদের হাত থেকে মুক্তি মিলবে৷ সেটা অন্তত বজায় থাকুক৷

প্রতিবেদন: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা : সঞ্জীব বর্মন