1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বিমানবন্দরে স্বজনের জন্য অপেক্ষা

ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে এখন ভিড় করছেন লিবিয়া প্রবাসীদের উদ্বিগ্ন আত্মীয়-স্বজন৷ তারা জানেন না লিবিয়া থেকে কখন ফিরে আসবেন তাদের স্বজন৷ অনেকেই হতাশ হয়ে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন৷

default

লিবিয়া-টিউনিশিয়া সীমান্তে বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কার শ্রমিকরা

লিবিয়া থেকে যারা ফিরছেন তারাও আসছেন নি:স্ব হয়ে৷ তাদের সামনে নেই কোন সুখবর৷ তারা জানান, লিবিয়ায় এখনো হাজার হাজার বাংলাদেশি আটকে পড়ে আছেন৷ তাদের ফিরিয়ে আনা না গেলে তাদের ভাগ্য কি হবে কেউ বলতে পারেনা৷

হালিমা বেগম বিমান বন্দরে অপেক্ষা করছেন গত ২ দিন ধরে৷ আশায় বুক বেঁধে আছেন, তার ছেলে তোফাজ্জল লিবিয়া থেকে ফিরে আসবেন৷ তাই প্রবাসীদের নিয়ে কোন বিমান আসার খবর পেলেই তিনি বিমান বন্দরের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কে এগিয়ে যান৷ খোঁজ নেন ৷ কিন্তু তার ছেলের দেখা মেলেনা৷ যারা ফিরে আসেন তাদের কাছেও জানতে চান তার ছেলের খোঁজ কেউ দিতে পারে কিনা৷ কোন খবর না পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন৷

যারা ফিরে আসেন তারাও উদ্বিগ্ন লিবিয়ায় এখনো যেসব বাংলাদেশি আছেন তাদের জন্য৷ তাদের ভাষায়, তাদের ফিরিয়ে আনা না গেলে তারা ভয়াবহ অবস্থার শিকার হতে পারেন৷

গভীর রাত পর্যন্ত কয়েকটি বিমানে লিবিয়া থেকে টিউনিশিয়া এবং গ্রিসে আশ্রয় নেয়া আরো ৭০০ বাংলাদেশি ফিরে এসেছেন৷ তারা জানান, তাদের কষ্ট আর দুর্ভোগের কথা৷ এদের অনেকেই ভিটে মাটি বিক্রি করে লিবিয়া গিয়েছিলেন৷ কিন্তু ফিরেছেন নি:স্ব হয়ে৷ কেউ গেছেন ধার দেনা করে৷এখন কিভাবে দেশে জীবিকা নির্বাহ করবেন সেই চিন্তায় বিমান বন্দরে নেমেই তারা দিশেহারা৷ তাদের সবার অভিযোগ, তারা লিবিয়ায় বাংলাদেশি দূতাবাসের কোন সহযোগিতা পাননি৷ কেউ নেয়নি তাদের খোঁজ খবর৷

এদিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, লিবিয়ায় এখনো যারা আছেন তাদের সবাইকে সেখান থেকে ফিরিয়ে আনার সুযোগ কম৷ যারা প্রতিবেশী দেশের সীমান্তে যেতে পেরেছেন তাদের পর্যায়ক্রমে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার৷ তিনি জানান, গ্রিস ও টিউনিশিয়া সীমান্তে প্রায় ৩০ হাজার বাংলাদেশি এখন অবস্থান করছেন৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন ডয়চে ভেলে, ঢাকা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন