1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বিদেশি হত্যাকাণ্ডে সত্যিই কি বিএনপি জড়িত?

বাংলাদেশে বিদেশি নাগরিক হত্যাকাণ্ডে বিএনপি জড়িত বলে ইঙ্গিত দিচ্ছে শাসক দল৷ প্রধানমন্ত্রীর কথায়, বিএনপি নেত্রী বিদেশে বসে এ সব করাচ্ছেন৷ আইএস-এর হাত নেই, দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতেই এঁদের হত্যা করা হয়৷

ঢাকার গুলশানে ২৮শে সেপ্টেম্বর ইটালির নাগরিক সিজার তাবেলা এবং ৩রা অক্টোবর রংপুরে জাপানি নাগরিক হোশি কুনিওকে হত্যা করা হয়৷ এরপর কুনিও হত্যায় জড়িত সন্দেহে স্থানীয় বিএনপি নেতা রাশেদুন্নবী বিপ্লবসহ দু'জনকে আটক করা হয়েছে৷ তবে সিজার হত্যায় এখনো কাউকে গ্রেপ্তার বা আটকের খবর জানায়নি পুলিশ৷ পুলিশ বলছে, দু'টি হত্যাকাণ্ড একই ধরনের এবং এর সঙ্গে জঙ্গিরা আগে যেসব হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে, তার কোনো মিল নেই৷

অডিও শুনুন 03:43

বাংলাদেশে কোনো আইএস নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল

এ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল দু'দিন আগে ডয়চে ভেলেকে বলেছিলেন, ‘‘বিদেশি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস জড়িত নয়৷ কারা এর সঙ্গে জড়িত তা আমরা জানতে পেরেছি৷....তারা ধরা পড়বেন৷''

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মঙ্গলবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে বলেন, ‘‘এখন বিএনপি-নেত্রী বিদেশে বসে বাংলাদেশে বিদেশি নাগরিক হত্যা করে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার ষড়যন্ত্র করছে৷ দেশে কোনো সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদের স্থান হবে না৷ বিদেশি হত্যা করে যারা দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করবে, তাদের ছেড়ে দেবো না৷''

অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী সরাসরিই এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে বিএনপি এবং দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার দিকে ইঙ্গিত করলেন৷ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও বিষয়টি উঠে এসেছে৷

কিন্তু তদন্তে কী সে ধরণের তথ্য পাওয়া যাচ্ছে? ঢাকায় ইটালির নাগরিক সিজার তাবেলা হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করছেন গোয়েন্দা বিভাগের ইন্সপেক্টর জিহাদ হোসাইন৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘আমরা এই মামলায় এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারিনি৷ তবে আশা করছি অতিদ্রুত আমরা অপরাধীদের গ্রেপ্তার করতে পারবো৷''

অডিও শুনুন 01:38

রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে যে যাই বলুক, আমরা তদন্ত করছি: জিহাদ হোসাইন

এই ঘটনায় বিএনপি বা কোনো রাজনৈতিক দল জড়িত কিনা – এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘কেউ রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে কোনো কথা বলে থাকতে পারেন, কিন্তু আমরা সেটা বিবেচনায় নিচ্ছি না৷ আমরা অপরাধের তদন্ত করছি৷ আমরা এরইমধ্যে অনেক তথ্য সংগ্রহ করছি৷ ঊর্ধতন কর্মকতাদের সার্বক্ষণিক তদারকিতে মামলার তদন্ত এগোচ্ছে৷''

রংপুরে জাপানি নাগরিক হোশি কুনিওকে হত্যা মামলার তদন্ত করছেন কাউনিয়া থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মামুন উর রশীদ৷ তিনি অবশ্য তদন্তে অগ্রগতি নিয়ে ডয়চে ভেলের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হনননি৷

জাপানি নাগরিক হোশি কুনিও-র মরদেহ সোমবার রবিবার গভীর রাতে রংপুরেই দাফন করা হয়েছে৷ আর ইটালীয় নাগরিক সিজার তাবেলার লাশ বুধবার ঢাকায় ইটালির দূতাবাসে হস্তান্তর করা হয়েছে৷ এরপর রাতে মরদেহ ইটালি পাঠানোর কথা৷

ওদিকে মঙ্গলবার বাংলাদেশে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্দে এ নিকোলায়েভ বলেন, ‘‘দুটি হত্যাকাণ্ডে বাংলাদেশ জঙ্গি রাষ্ট্র হয়ে যায় না৷ বাংলাদেশে দীর্ঘদিন শান্ত ও সুন্দর পরিবেশ বিরাজ করছে৷'' রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘‘দু'ফোটা পানি বৃষ্টি বোঝায় না৷ বাংলাদেশের সাম্প্রতিক দু'টি বিদেশি হত্যাকাণ্ডে রাশিয়াও উদ্বিগ্ন৷ আমি জানি বাংলাদেশে তা কেন হচ্ছে৷''

ঢাকায় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেননের সঙ্গে সাক্ষাৎকালে তিনি এ কথা তুলে ধরেন বলে মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়৷

আপনার কী মনে হয়? বিদেশি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আদতে কে বা কারা জড়িত? জানান নীতের মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়