1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বিদেশিদের ওপর হামলায় উদ্বিগ্ন ইইউ

বাংলাদেশে বিদেশির ওপর হামলা এখনো থামেনি৷ দু'মাসেরও কম সময়ের মধ্যে হামলার শিকার হয়েছেন তিনজন৷ দু'জন নিহত হয়েছেন৷ বিষয়টি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন৷

বুধবার দিনাজপুরে গুলিতে গুরুতর আহত হন ইটালির নাগরিক ডা. পিয়েরো৷ গত দুই মাসে এই নিয়ে তিন জন বিদেশি নাগরিককে গুলি করা হলো৷

গত সেপ্টেম্বরে ঢাকার গুলশানে ইটালীয় নাগরিক সিজার তাভেলা ও অক্টোবরে রংপুরে জাপানের নাগরিক হোশি কুনিও গুলিতে নিহত হন৷

বৃহস্পতিবার একে একে তিন বিদেশির ওপর হামলার বিষয়টি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইইউরোপীয় কমিশন (ইইউ)৷ বাংলাদেশে ইইউ প্রতিনিধি দলের প্রধান পিয়ের মায়াউডন-এর স্বাক্ষর করা এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘বারবার হয়ে চলা এমন সহিংসতা নিঃসন্দেহে সবার জন্যই উদ্বেগের ব্যাপার৷''

এদিকে দিনাজপুরে ডা. পিয়েরোর ওপর হামলার আগেই বাংলাদেশে বিদেশিদের ওপর আরো হামলা হতে পারে – বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র৷ চলতি মাসের শুরুর দিকে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের বাংলাদেশ সফরের সময় সতর্ক থাকার আহ্বান জানায় যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট৷ সতর্কতা অবলম্বনের আহ্বান জানানোর কারণ হিসেবে বলা হয়েছিল, বাংলাদেশে বিদেশিদের ওপর আরো হামলা হতে পারে৷

দু'মাসে তিন বিদেশির ওপর হামলার ঘটনায় প্রথম দু'টির তদন্ত এখনো চলছে৷ ইটালির নাগরিক তাভেলা হত্যায় জড়িত সন্দেহে এ পর্যন্ত পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ এছাড়া জাপানের নাগরিক হোশি কুনিও হত্যায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে৷

হঠাৎ করে বিদেশিদের ওপর হামলা শুরুর কারণ কী? বিশ্লেষকদের মতে, দেশে অচলাবস্থা তৈরি এবং দেশের বাইরে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার জন্য একটি মহল এমন তৎপরতায় ইন্ধন যোগাচ্ছে৷ যুদ্ধাপরাধের বিচার রোধ করার জন্য এমন হামলা চালানো হয়ে থাকতে পারে বলেও অনেকের ধারণা৷

সংকলন: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

হঠাৎ করে বিদেশিদের ওপর হামলা শুরুর কারণ কী? লিখে জানান নীচের মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়