1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

বিচার না পেয়ে বাবা-মেয়ের আত্মহত্যা

গাজীপুরে ট্রেনের নীচে বাবা-মেয়ের আত্মহত্যার ঘটনার পেছনে আছে স্থানীয় সমাজপতিদের লোভ এর পুলিশ প্রশাসনের অবহেলা৷ বিচার না পেয়েই যে বাবা তাঁর ১০ বছরের ‘পালিত' মেয়েকে নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন, তা এখন স্পষ্ট৷

২৯ এপ্রিল সকালে হযরত আলী এবং তাঁর মেয়ে আয়েশা (১০) গাজীপুরের শ্রীপুর রেল স্টেশনের দক্ষিণ পাশের আউটার সিগন্যালের কাছে ট্রেনের নিচে কাটা পড়েন৷ তবে তার বেশ আগে থেকেই হযরত আলী ট্রেন লাইনের কাছে য়েকে নিয়ে অবস্থান করেন৷ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় এ এন ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শিক্ষক জুয়েনা আক্তার ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমি হঠাৎ দেখলাম লোকটি মেয়েটিকে কাঁধে নিয়ে রেল লাইনের ওপর বসে পড়ল এবং লাইনের ওপর মাথা দিল৷ তারপর তাদের ওপর দিয়ে রেলগাড়ি চলে গেল৷ আমি চিৎকার করেছি৷ কিন্তু তখন কী করব ভেবে পাইনি৷''

তিনি বলেন, ‘‘ট্রেন চলে যাওয়ার পর আরো লোকজন আসে৷ ততক্ষণে শেষ হয়ে গেছে৷ সকাল ৯টার দিকে ঘটনা ঘটে৷''

অডিও শুনুন 02:15

‘হঠাৎ দেখলাম লোকটি মেয়েটিকে কাঁধে নিয়ে রেল লাইনের ওপর বসে পড়ল’

নিহত হযরত আলীর স্ত্রী হালিমা বেগম সাংবাদিদের জানান, ‘‘কয়েক মাস আগে ফারুক নামের এক বখাটে তার মেয়ে আয়েশাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে৷ স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল হোসেন এর বিচারের দায়িত্ব নেন৷ কিন্তু কোনো মীমাংসা ছাড়াই তিনি বিষয়টি ধামাচাপা দেন৷ আর এতেই তার স্বামী মেয়েকে নিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়েছেন৷''

স্থানীয় সাংবাদিক অপূর্ব রায় ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এ নিয়ে থানায় জিডিও করা হয়েছিল৷ কিন্তু পুলিশ কোনো কার্যকর ব্যবস্থা নেয়নি৷''

তবে শ্রীপুর থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান দাবি করেন, ‘‘আগে এ ধরনের কোনো অভিযোগ আমার কাছে আসেনি৷ অভিযুক্ত ইউপি সদস্যকে আটক করা হয়েছে৷ আর ফারুককে আটকের চেষ্টা চলছে৷''

অডিও শুনুন 01:19

‘পরিবারটির ওপর গত কয়েকমাসে নানা ধরণের নির্যাতন হয়েছে’

অপূর্ব রায় আরো জানান, ‘‘এই পরিবারটির ওপর গত কয়েকমাসে নানা ধরণের নির্যাতন হয়েছে৷ ফারুকের অপরাধের বিচার চেয়ে তারা পাননি৷ উল্টো তাদের তিনবিঘা জমির ওপর নজর পড়েছিল ইউপি সদস্যসহ আরো কয়েকজনের৷ তারাই মূলত পরিবারটিকে নানাভাবে হেনস্তা করছিল৷ তাদের বাড়ির গরুও চুরি করা হয়৷ তাদের বাড়ি থেকে চলে যাওয়ারও হুমকি দেয়া হয়েছে কয়েকবার৷'' তিনি জানান, ‘‘বিচার পেতে তারা দুয়ারে দুয়ারে ঘুরেছেন, বিচার পাননি৷ আর এই বিচারহীনতাই হয়তো তাদের আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দিয়েছে৷''

পুলিশ ইউপি সদস্য আবুল হোসেনকে আটক করলেও আত্মহত্যার নেপথ্যে থাকা ফারুককে এখনো আটক করতে পারেনি৷এদিকে প্রত্যক্ষদর্শী স্কুল শিক্ষক জুয়েনা আক্তার জানান, ‘‘ট্রেনের নীচে ঝাঁপ দেয়ার আগে লোকটি অনেকক্ষণ ঘার গুঁজে বসেছিলেন৷ তার চোখে-মুখে ছিল হতাশা৷''

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়