1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বিচারের কাঠগড়ায় শ্রীলংকার সাবেক সেনাপ্রধান ফনসেকা

সামরিক বাহিনীতে থাকা অবস্থায় রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগে, শ্রীলংকার সাবেক সেনাপ্রধান এবং প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পরাজিত প্রার্থী শরৎ ফনসেকা দেশটির সামরিক আদালতে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়ালেন মঙ্গলবার৷

default

শ্রীলংকার সাবেক সেনাপ্রধান ফনসেকা (ফাইল ছবি)

খুব স্বাভাবিকভাবেই, ফনসেকা'র এ বিচার নিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার এ দ্বীপ রাষ্ট্রে প্রবল উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে৷

চলতি বছরের প্রথম দিকে অনুষ্ঠিত শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসে'র কাছে হেরে যাওয়ার পর, গত ৮ই ফেব্রুয়ারি ফনসেকা'কে গ্রেপ্তার করা হয়৷ সরকারের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানের ষড়যন্ত্র করাসহ সাতটি ভিন্ন ভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত তিনি৷ এছাড়া, চাকরিতে থাকাকালীন সামরিক সরঞ্জাম কেনার ক্ষেত্রে অসদুপায় অবলম্বনের জন্যও অভিযোগ আনা হয়েছে ফনসেকা'র বিরুদ্ধে৷ জানিয়েছেন শ্রীলংকা বাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল প্রসাদ সমরাসিঙ্গে৷ তামিল গেরিলা বা এলটিটিই'র বিরুদ্ধে সশস্ত্র সেনা-অভিযানের সময় ফনসেকা শ্রীলংকা বাহিনীর সেনা-প্রধান হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন৷

মঙ্গলবার আদালতে প্রথমে ফনসেকা'র বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলি পড়ে শোনানো হয়৷ তবে সে সমস্ত অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেন সাবেক এই সেনাপ্রধান৷ ফনসেকা'র কথায়, শুধুমাত্র রাজনৈতিকভাবে হয়রানি করার জন্যই এসব করা হচ্ছে তাঁর বিরুদ্ধে৷ এর ফলে আগামী মাসে অনুষ্ঠেয় পার্লামেন্ট নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করতে পারবেন না তিনি৷ প্রসঙ্গত, এপ্রিল মাসের ৮ তারিখে অনুষ্ঠেয় পার্লামেন্ট নির্বাচনে নিজের ‘ডেমোক্র্যাটিক ন্যাশনাল অ্যালায়েন্স' এবং বামপন্থী ‘জনতা বিমুক্তি পেরুমানা পার্টি'কে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচনে দাঁড়াতে চেয়েছিলেন ফনসেকা৷

তাই সামরিক উর্দি ছেড়ে দেওয়ার পরও তাঁর বিচার সামরিক আদালতে হওয়ায়, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন তুলেছেন ফনসেকা'র শরিকরা৷ ‘জনতা বিমুক্তি পেরুমানা পার্টি জেভিপি' বা ‘পিপলস লিবারেশন ফ্রন্ট'এর নেতা সোমাওয়ান্সা অমরাসিঙ্গে বলেছেন, জেনারেল হিসাবে ফনসেকা'কে গ্রেপ্তার ও আটক রাখা অবৈধ৷ কারণ, বর্তমানে তিনি আর জেনারেল নন৷

তামিল টাইগারদের বিরুদ্ধে ২৫ বছরের গৃহযুদ্ধ অবসানে ফনসেকা ও রাজাপাকসে একযোগে কাজ করলেও, এর কিছুদিন পরই তাঁদের সম্পর্কের অবনতি ঘটে৷ জানুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাজাপাকসে'র কাছে প্রায় ১৮ শতাংশ ভোটে পরাজিত হন ফনসেকা৷ কিন্তু তারপরও, রাজাপাকসে'র বিরুদ্ধে নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ আনেন শ্রীলংকার সাবেক সেনা-প্রধান৷ শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, ফনসেকা'র বিরুদ্ধে আনীত মামলার দ্বিতীয় শুনানি হবে আগামী ৬ই এপ্রিল৷

উল্লেখ্য, ফনসেকা'র গ্রেপ্তারের পর দেশজুড়ে প্রতিবাদের পাশাপাশি শেয়ার বাজারেও দরপতনের ঘটনা ঘটে৷ অবশ্য ইতিমধ্যেই সে সব কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হয়েছে শ্রীলংকা৷ কারণ, গত সোমবার দেশটির শেয়ার সূচক ছিল সর্বকালের সেরা৷

প্রতিবেদক : দেবারতি গুহ

সম্পাদনা : আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়