1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বিচারপতির বিরুদ্ধে ফের যৌন হেনস্তার অভিযোগ

সুপ্রিম কোর্টের আরেকজন প্রাক্তন বিচারপতির বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ আনলেন একজন নারী শিক্ষানবিশ৷ এই মামলায় প্রথম দিকে সুপ্রিম কোর্ট মুখ ঘুরিয়ে নিলেও, শেষে শুনানিতে রাজি হয়েছে৷

সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি এবং পশ্চিমবঙ্গ মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান অশোক গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একজন মহিলা শিক্ষানবিশকে যৌন হেনস্তা করার অভিযোগের জের কাটতে না কাটতে ফের শীর্ষ আদালতের আরেকজন প্রাক্তন বিচারপতি এবং জাতীয় গ্রিন ট্রাইব্যুনালের প্রধান স্বতন্দ্র কুমারের বিরুদ্ধে একই ধরণের অভিযোগ আনলেন তাঁর অধীনস্থ একজন নারী শিক্ষানবিশ বা ইন্টার্ন৷ শীর্ষ আদালতের কাছে পেশ করা তাঁর হলফনামায় ঐ মহিলা শিক্ষানবিশ ঐ বিচারকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার আর্জি জানান৷

Indien Jahrestag Gruppenvergewaltigung

নারী অধিকার আদায়ের আন্দোলন চলছে, চলবে...

কিন্তু শীর্ষ আদালত জানিয়ে দেয়, অশোক গঙ্গোপাধ্যায় মামলায় সুপ্রিম কোর্টের ‘ফুল বেঞ্চ' সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে, প্রাক্তন বিচারপতিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আর গ্রহণ করবে না কোর্ট৷ ঐ সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে সেই নারী ইন্টার্ন জানান যে, সেই ঘটনার সময় অভিযুক্ত বিচারপতি ঐ পদে ছিলেন৷ তাই এই ধরণের মামলার তদন্ত করার উপযুক্ত ‘মেকানিজম' গঠনের জন্য শীর্ষ আদালতের কাছে আর্জি জানান তিনি৷

মহিলা শিক্ষানবিশের অভিযোগ এবং তদন্তের আর্জি সমর্থন করেন অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেলসহ শীর্ষ স্থানীয় আইনজীবীরা৷ শেষ পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্ট এই ঘটনার তদন্ত মামলার শুনানিতে রাজি হন৷ বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের ঘটনায় তিন সদস্যের অভ্যন্তরীণ কমিটি গঠন করেছিল সুপ্রিম কোর্ট৷ উল্লেখ্য, বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের তদন্ত মামলার ইস্যু রাষ্ট্রপতি পর্যন্ত পৌঁছায়৷ ঘরে বাইরের চাপের মুখে নিজের মান বাঁচাতে তিনি স্বেচ্ছায় পশ্চিমবঙ্গ মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান পদে ইস্তফা দিতে বাধ্য হন৷

বিচারপতি স্বতন্দ্র কুমারের বিরুদ্ধে কী ধরণের যৌন হেনস্তার অভিযোগ আনা হয়? মহিলা ইন্টার্নের অভিযোগ, বিচারপতি স্বতন্দ্র কুমারের অধীনে জুনিয়ার আইনজীবী হিসেবে কাজ করার সময় একবার তিনি তাঁর নিতম্বে হাত রাখেন আর তাঁর কোমর জড়িয়ে কাঁধে চুমু খান৷ এমনকি কাজের অছিলায় বাইরে গিয়ে একই হোটেলে থাকতে রাজি আছেন কিনা – তারও প্রস্তাব দেন৷ বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় মামলার সঙ্গে এর মৌলিক পার্থক্য যৌন হেনস্তার ঘটনার সময় একজন ছিলেন অবসরপ্রাপ্ত, অন্যজন ছিলেন স্বপদে বহাল৷ বিচারপতি স্বতন্দ্র কুমার অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, এটা তাঁর বিরুদ্ধে একটা চক্রান্ত৷

প্রশ্ন হলো, ইন্টার্ন কাদের বলা হয়? অভিজ্ঞ আইনজীবীদের কাছে যাঁরা শিক্ষানবিশ বা জুনিয়ার হিসেবে কাজ করেন৷ নিয়ম অনুসারে আইন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবার পর প্রথমে বার কাউন্সিলের সদস্য হতে হয়৷ একমাত্র তারপরই আইনি পেশায় নামা যায়৷ তবে কিছু বিষয় আছে যা শিখতে হয় অভিজ্ঞ আইন বিশেষজ্ঞদের কাছে৷

স্বাভাবিকভাবেই, এই ধরণের ঘটনার পর মহিলা ইন্টার্নদের নিয়োগ করা নিয়ে সমস্যা হতে পারে৷ তাতে অসুবিধায় পড়তে পারেন মহিলারাও৷ আর এই ধরণের শ্লীলতাহানির ঘটনার নেতবাচক প্রভাব পড়তে পারে আইনি পেশায়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন