1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

বাড়তি শিক্ষার্থীর চাপ সামলাতে জার্মানি কতটা প্রস্তুত?

একদিকে বাড়ছে অভিবাসীদের সংখ্যা, অন্যদিকে বাড়ছে শিশু জন্মের হার৷ ফলে জার্মানিতে বাড়ছে শিক্ষার্থীর সংখ্যাও৷ নতুন এক গবেষণা বলছে, এই বাড়তি চাপ মোকাবেলায় মোটেও প্রস্তুত নয় জার্মানি৷

অদূর ভবিষ্যতে জার্মানির স্কুলগুলোতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমবে, এমন তথ্য ভুলে যান৷ জার্মানির ব্যার্টেলসমান ফাউন্ডেশনের এক নতুন গবেষণায় দেখা গেছে সত্যিকার পরিস্থিতি ঠিক তার উলটো৷

অবসরে যাওয়ার হার রেকর্ড ছাড়িয়েছে, নতুন শিক্ষকও প্রয়োজনের তুলনায় একেবারে কম৷ শিক্ষার্থীদের সংখ্যা যে হারে বাড়ছে, সে তুলনায় বাড়ছে না ক্লাসরুমের সংখ্যা৷ ‘‘সংসদ সদস্যদের দ্রুতই স্কুল এবং শিক্ষা বিষয়ে নতুন করে পরিকল্পনা করা উচিত'', বলছেন ব্যার্টেলসমান ফাউন্ডেশনের সিনিয়র প্রজেক্ট ম্যানেজার ডির্ক জর্ন৷

‘জনসংখ্যায় নাটকীয় পরিবর্তন'

জার্মানি ছেড়ে যে পরিমাণ মানুষ অন্য দেশে যাচ্ছে, তার চেয়ে জার্মানিতে বসবাসের জন্য আসা মানুষের সংখ্যা বাড়ছে বলে ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন ডির্ক জর্ন৷

২০১৩ সালে জার্মান সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় যে পরিমাণ শিক্ষার্থীর কথা ভাবছিল, গবেষণা বলছে, ২০২৫ সালে তার চেয়ে ১০ লাখ বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি হবে জার্মান স্কুলগুলোতে৷

Minderjährige Flüchtlinge in einer deutschen Schule

জার্মান ভাষা শিখছেন অভিবাসী শিক্ষার্থীরা

‘‘কয়েক দশক ধরে বিশ্বের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হারের সর্বনিম্ন তালিকায় ছিল জার্মানি৷ তবে গত পাঁচ বছরে বদলেছে পরিস্থিতি৷ এর পাশাপাশি বিপুল পরিমাণে অভিবাসীর জার্মানিতে আগমনে আগামী আট বছরে নাটকীয় পরিবর্তন আসবে'', জানান জর্ন৷

২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে জার্মানিতে প্রায় ৭৯ লাখ শিক্ষার্থী ছিল৷ ব্যার্টেলসমান ফাউন্ডেশনের গবেষণা বলছে, ২০২৫ সালে এই সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াবে ৮৩ লাখে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

অপ্রস্তুত জার্মানি!

সরকারের পক্ষ থেকে শিক্ষার্থী সংখ্যা কমতে পারে বলে জানানো হয়েছিল স্কুলগুলোকে৷ গবেষণা বলছে, এর ফলে স্কুলগুলোও রয়েছে অপ্রস্তুত অবস্থায়৷ বিভিন্ন শহর কর্তৃপক্ষের চেষ্টা সত্ত্বেও এখনও স্কুলগুলোতে শিক্ষক ও ক্লাসরুম সংকট তীব্র৷ বাড়তি চাপ মোকাবেলায় স্টেটগুলোর বার্ষিক আনুমানিক ৪.৭ বিলিয়ন ইউরো বরাদ্দের সুপারিশ করা হয়েছে গবেষণায়৷

‘‘শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমে যাচ্ছে, সে দিন আর নেই'', বলছেন জর্ন৷ তবে এ হার এলাকাভেদে ভিন্ন হবে বলে মনে করছে, তিনি৷ ছোট শহরের তুলনায় বড় শহরগুলোতে এ হার বেশি হবে বলে ধারণা করা হয়েছে গবেষণায়৷

প্রাথমিক স্কুলে ২০১৫ সালে ছিল ২৮ লাখ শিক্ষার্থী৷ ২০৩০ সালে এ সংখ্যা ৩২ লাখে পৌঁছাবে বলে আভাস দেয়া হয়েছে৷ অন্যদিকে আট বছরের মধ্যে ২৪ হাজার শিক্ষক যাবেন অবসরে৷ তরুণ শিক্ষকদের অভাবে এর ধাক্কা গিয়ে লাগবে ওপরের ক্লাসগুলোতেও৷

শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধি জার্মানির জন্য আশাব্যঞ্জক বলে মনে করেন বার্লিন-ভিত্তিক ভিবিই শিক্ষক সংস্থার চেয়ারম্যান উডো বেখমান৷ জার্মান রাজনীতিবিদরা শিক্ষকসংকটকে অনেকদিন ধরে আড়াল করে রেখেছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি৷ ‘‘এখন এটা প্রমাণিত হলো যে, মন্ত্রণালয় ভুল পরিসংখ্যান নিয়ে কাজ করছে'', বলছেন বেখমান৷

জনসংখ্যা বৃদ্ধিকে জার্মানির জন্য খুশির সংবাদ বললেও, ছ'বছর পরে যেসব চ্যালেঞ্জ নিতে হবে জার্মানিকে, তার জন্য প্রস্তুতি নেয়ারও আহ্বান বেখমানের৷ শারীরিক প্রতিবন্ধকতার শিকার শিক্ষার্থী এবং অভিবাসীদের সন্তানদের শিক্ষাব্যবস্থায় অন্তর্ভুক্ত করাও বড় চ্যালেঞ্জ মনে করেন তিনি৷

ডাগমার ব্রাইটেনবাখ/এডিকে

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়