1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

বালাক কবে পুরো ফর্মে ফিরবেন জানিনা: হাইনকেস

মিশায়েল বালাকের ‘ফর্ম’ নিয়ে লিভারকুজেন কোচ ইয়ুপ হাইনকেস খানিকটা হতাশার সুর শোনালেন৷ গোড়ালির চোট সেরে কবে যে বালাক পুরো ‘ফর্মে’ ফিরবে, তা জানেননা হাইনকেস৷

default

লিভারকুজেনের জার্সি গায়ে বালাক

এই চোটের কারণে বিশ্বকাপ খেলতে পারেননি বালাক৷ একই কারণে ইউরো ২০১২-র বাছাইপর্বের প্রথম দুই ম্যাচেও জার্মান দলে জায়গা হয়নি তাঁর৷ অবশ্য বালাককে ছাড়াই গত শুক্রবার ব্রাসেলসে বেলজিয়ামের বিপক্ষে জয় পায় জার্মান তরুণরা৷ মঙ্গলবার কোলনে আজারবাইজানের বিরুদ্ধে খেলবে স্বাগতিকরা৷ সেখানেও দর্শক বালাক৷

জার্মান জাতীয় দলের কোচ কিন্তু জানিয়ে রেখেছেন, অধিনায়ক থাকছেন বালাকই৷ তবে, সে দায়িত্ব ফিরে পাবার আগে পুরোপুরি ফর্মে ফিরতে হবে তাঁকে৷ সমস্যা সেখানেই, গোড়ালির চোট কাটিয়ে বুন্ডেসলিগায় দুই ম্যাচ খেলেছেন বালাক৷ তাঁর খেলা দেখে ফুটবল বোদ্ধাদের মত, এখনো পুরোপুরি ফিট নন তিনি৷

বালাকের বর্তমান ক্লাব বেয়ার লিভারকুজেন কোচও আছেন এই বোদ্ধাদের দলে৷ রবিবার তিনি জানালেন, আমি ঠিক বলতে পারছিনা, কখন বালাক আমার দলের শক্তি হিসেবে দেখা দেবে৷

Flash-Galerie Michael Ballack Leverkusen Simferopol

সংবাদমাধ্যমগুলো বেশ চাপে ফেলছে বালাককে

ফ্রাঙ্কফুর্ট আলগেমাইনে সাইটুংকে দেয়া সাক্ষাৎকারে হাইনকেস বলেন, প্রথমে বালাককে পুরোপুরি চোট কাটিয়ে উঠতে হবে, তারপর দেখা যাক কী হয়৷

এদিকে, এই মাসের শেষে ৩৪-এ পা দেবেন বালাক৷ একেতো বয়স বাড়ছে, অন্যদিকে গোড়ালির চোট, সঙ্গে জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব নিয়ে মানসিক যাতনা- সব মিলিয়ে বেশ দুঃসময় অতিবাহিত করছেন মধ্যমাঠের এই তারকা৷ বুন্ডেসলিগায় প্রথম দুই ম্যাচেও তাঁকে জ্বলে উঠতে দেখা যায়নি৷ বরং বালাক দলে থাকা সত্ত্বেও মোয়েনশেনগ্লাডবাখের কাছে ছয় গোল খেয়েছে লিভারকুজেন৷

সর্বশেষ গুঞ্জন হচ্ছে, জাতীয় দল থেকে অবসর নিতে পারেন বালাক৷ সোমবার তিনি নীরবে ঘুরেও এসেছেন জাতীয় দলের শিবির থেকে৷ দেখা করেছেন কোচ ইওয়াখিম ল্যোভের সঙ্গে৷ আর তারপরই ল্যোভের মন্তব্য, আমি আশা করছি বালাক অবসরে যাবেনা৷ কেন সে এটা করবে?

উল্লেখ্য, আগামী মাসে ইউরো ২০১২ বাছাইপর্বের আরো দুই ম্যাচ খেলবে জার্মান জাতীয় দল৷ সেখানে অধিনায়ক বালাককে মাঠে দেখা যাবে কিনা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক