1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

বালাক-ই জার্মান ফুটবল দলের কাপ্তান

ক্যাপটেন আর কোচের মধ্যে কি কোন মানসিক দুরত্ব আছে? বোধ হয় আছে! এটা আমার কথা নয়, কেউ কেউ এমনই বলেন৷ তবে উড়ো কথায় কান না দেয়াই ভালো৷ বলছিলাম জার্মান ক্যাপটেন মিশায়েল বালাক এবং কোচ ইওয়াখিম ল্যোভের সম্পর্কের কথা৷

default

মিশায়েল বালাক

বেশ কয়েকদিন আগে খবর এসেছিল যে, অসুস্থতার জন্য যে খেলোয়াড় বিশ্বকাপ আসরে খেলতে পারেনি, সেই বালাক-কে জার্মান দলের অধিনায়কত্ব থেকে বাদ দিয়ে দেয়া হয়েছে৷ খুব ব্যথিত হয়েছিলেন জার্মান ফুটবল প্রেমিরা৷ ২০১২ সালের ইউরো কাপ নিয়েই এখন যতো ছক আঁকিবুঁকি৷ ইতিমধ্যে ফিলিপ লামই অধিনায়কের কাজ করে যাচ্ছিলেন৷ বিশ্বকাপ ফুটবলে তিনিই দিয়েছেন নেতৃত্ব৷

জার্মানির জনপ্রিয় ‘বিল্ড' পত্রিকা ঠিক এই সময়ে একটি দারুণ সংবাদ দিয়েছে৷ আর তাহলো কোচ আবার ক্যাপটেন হিসাবে চাইছেন মিশায়েল বালাক-কেই৷ আজ দিনের যেকোন সময়ে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে বলে উল্লেখ করা হয়েছিল সেই খবরে৷ আর দিনের মধ্যভাগেই কোচ স্বয়ং জানিয়ে দিলেন,‘ঘটনাটা সত্য৷ বালাক-ই আমাদের কাপ্তান৷'

ইনজুরি থেকে বালাক ধীরে ধীরে উঠে আসছেন৷ খুব শিগগিরই ৩৩ বছর বয়স্ক এই খেলোয়াড় মাঠে নামবেন বলেই আশা৷ গতকাল ফ্রাঙ্কফুটের হোটেলে কোচ তাঁর ছেলেদের আরও বলেছেন, মাঝমাঠে খেলবে বাস্তিয়ান এবং সামি৷ অন্যদিকে, বালাক যখন ফিরে আসবে, তখন সেই হবে ক্যাপটেন এবং ফিলিপ লাম তাঁর আগের জায়গায় খেলবে৷ আর যদি বালাক মাঠে না থাকে, তাহলে লাম দলের দায়িত্ব নেবেন৷

ইতিমধ্যে ইউরো কাপের বাছাই পর্বের দুটি খেলায় বাদ পড়ছেন বালাক৷ একটি ম্যাচ শুক্রবার অনুষ্ঠিত হবে ব্রাসেলস-এ বেলজিয়ামের বিপক্ষে৷ আর অপরটি হবে এর চারদিন পর জার্মানিতেই, আজারবাইজানের বিরুদ্ধে৷

সমর্থকদের আশা খুব শিগগিরই পুরোপুরি ফিট হয়ে মাঠে প্রাকটিসে নামবেন বালাক৷ অর্থাৎ, আগামী মাসে তুরস্ক এবং কাজাখস্তানের বিরুদ্ধে জার্মান দল মাঠে নামবে বালাকের নেতৃত্বেই৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়