1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

বার্লুস্কোনির যুগ কি শেষ হতে চলেছে?

বুধবার ইটালির প্রধানমন্ত্রী এনরিকো লেটা আস্থাভোটে জিতলেন শুধুমাত্র সিলভিও বার্লুস্কোনির পিডিএল দলের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্বের কারণে৷ ইটালি এবং জগৎ হয়ত দেখল ইউরোপীয় রাজনীতির এক চমকপ্রদ ব্যক্তিত্বের অস্তাচলে গমনের সূচনা৷

Italian center-right leader Silvio Berlusconi attends a Senate meeting as Italy's Prime Minister Enrico Letta calls for a confidence vote in Rome, October 2, 2013. Letta said on Wednesday that the government's survival must be separated from the legal troubles of Berlusconi and that its collapse could be fatal for the country.REUTERS/Tony Gentile (ITALY - Tags: POLITICS)

সিলভিও বার্লুস্কোনি

৭৭ বছর বয়সি বার্লুস্কোনির মাথার উপর ঝুলছে একাধিক মামলা ও সাজা, যার ফলে তাঁর রাজনৈতিক জীবনের অবসান ঘটতে পারে৷ গত আগস্ট মাসে ইটালির সর্বোচ্চ আদালত একটি কর ফাঁকি দেওয়ার মামলায় বার্লুস্কোনির এক বছর কারাবাসের সাজা বজায় রাখে – বার্লুস্কোনি তা গৃহান্তরীণ অবস্থায় কাটাতে পারবেন কিনা, অথবা তাঁকে শাস্তিমূলক সমাজসেবা করতে হবে কিনা, তার রায় হবে এ মাসে৷

যেমন এ মাসের শেষে বার্লুস্কোনিকে সেনেট থেকে বহিষ্কারও করা হতে পারে এবং তাঁর পরবর্তী নির্বাচনে অংশগ্রহণ নিষিদ্ধ করা হতে পারে৷ তারও পরে থাকছে বার্লুস্কোনির ‘বুঙ্গা-বুঙ্গা' মামলার রায়ের বিরুদ্ধে তাঁর আপিলের শুনানি: বার্লুস্কোনি সাত বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন এক অপ্রাপ্তবয়স্কা দেহব্যবসায়িনীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কের দরুণ৷

Italy's Prime Minister Enrico Letta looks on during a confidence vote at the Senate in Rome, October 2, 2013. Italian centre-right leader Silvio Berlusconi promised to support Prime Minister Enrico Letta in a confidence vote on Wednesday, staging a U-turn only days after he provoked a crisis by pulling his ministers out of the government. REUTERS/Tony Gentile (ITALY - Tags: POLITICS)

ইটালির প্রধানমন্ত্রী এনরিকো লেটা

এ সব মিলিয়ে বার্লুস্কোনির কণ্টকিত অবস্থা, যে কারণেই হয়ত তিনি লেটা সরকারের পতন ঘটানোর পরিকল্পনা নিয়েছিলেন৷ কিন্তু আস্থাভোটের আগেই তাঁর নিজের দল পিডিএল বা ‘‘স্বাধীনতার জনগণ'' দলে ভাঙন দেখা দেয়: আস্থাভেটের আগেই সেনেটে একটি চিঠি ঘুরছিল, যা-তে ২৩ জন পিডিএল সেনেটরের স্বাক্ষর ছিল৷ এই সেনেটররা তাদের নেতা বার্লুস্কোনিকে অমান্য করতে প্রস্তুত৷

পিডিএল কোন পথে?

সংসদের নিম্নকক্ষেও নাকি ঐ ধরনের একটি চিঠি ঘুরছিল, যা-তে ২৬ জন পিডিএল বিধায়কের স্বাক্ষর ছিল৷ এখন প্রশ্ন হলো, দলের মধ্যে বার্লুস্কোনির নীতির বিরুদ্ধে এই বিদ্রোহ গড়ে উঠল কি করে? বিদ্রোহী পিডিএল সেনেটর রবের্তো ফর্মিগোনি এএফপি সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন: ‘‘আমরা বিশ্বাসঘাতক নই, আমরা পথিকৃৎ! পিডিএল যে পথে শেষমেষ গেল, আমরাই সেটা দেখিয়ে দিয়েছি৷ এবং আমরা সে বিষয়ে গর্বিত কেননা এই সরকার টিঁকে থাকার প্রয়োজন ছিল৷'' ফর্মিগোনি এ-ও জানান যে, তিনি ও তাঁর কিছু সতীর্থ সংসদে থাকাকালীনই বার্লুস্কোনির দল পরিত্যাগ করবেন৷

General view of the Senate during Italy's Prime Minister Enrico Letta's address asking for a possible call for a confidence vote immediately in Rome, October 2, 2013. Senior party figures in Silvio Berlusconi's fractious centre-right movement urged Italian lawmakers on Tuesday to defy the billionaire media tycoon and back Letta in a confidence motion expected on Wednesday. REUTERS/Tony Gentile (ITALY - Tags: POLITICS)

আস্থাভোটের সময়...

তবে বার্লুস্কোনিকে যেটা প্রায় প্রকাশ্যে কাঁদিয়ে ছেড়েছে, সেটা হলো তাঁর শিষ্য আঞ্জেলিনো আলফানোর বিশ্বাসঘাতকতা, কেননা ৪২ বছর বয়সি আলফানোই হলেন পিডিএল-এর অভ্যন্তরে বার্লুস্কোনি-বিরোধীদের নেতা৷ এ যেন ইতিহাসের জুলিয়াস সিজারের প্রতি ব্রুটাসের বিশ্বাসঘাতকতা, বলেছেন বার্লুস্কোনি সমর্থকরা৷ পিডিএল-এর অভ্যন্তরীণ কোঁদলের সেরা বর্ণনা দিয়েছে লা স্তাম্পা দৈনিক: ‘‘এটা ছিল অশ্রু, অনুতাপ, বিশ্বাসঘাতকতার অভিযোগ, এ সবের দিন, যা সব কিছু ঘটে যখন একটি পরিবারে ভাঙন দেখা দেয়৷''

৪৭ বছর বয়সি মধ্যবামপন্থি লেটা আস্থাভোটে জিতেছেন ২৩৫ বনাম ৭০ ভোটে৷ ভোটে জয়ের পর তিনি সাংসদদের বলেছেন: ‘‘সংকট এখনও চলেছে৷ ইটালির চাই এই ব্ল্যাকমেইলের অন্ত৷ আমাদের দেখাতে হবে, সরকারের পতন ঘটবে না৷ আমাদের এই ধরনের মারামারি বন্ধ করতে হবে৷'' কিন্তু মোদ্দা কথা হলো, বিগত কয়েক সপ্তাহের রাজনৈতিক টানাপোড়েনে ইটালির অর্থনৈতিক নিরাময় প্রক্রিয়া নিয়েই সন্দেহ দেখা দিয়েছে৷ কাজেই লেটাকে যথাশীঘ্র সম্ভব পিডিএল-এর তাঁর প্রতি সদয় অংশের সমর্থন নিশ্চিত করতে হবে৷ অপরদিকে আলফানো সম্ভবত মধ্য-বাম রাজনীতিতে বার্লুস্কোনির উত্তরাধিকারী হবার প্রস্তুতি নেবেন৷

এসি/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন