1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

বার্লিনের সম্ভাব্য আততায়ী বহিষ্কারের তালিকায় ছিল

২৪ বছর বয়সি টিউনিশীয় আনিস আমরির খোঁজ চলছে ইউরোপ জুড়ে৷ সে নাকি বেশ কয়েক মাস ধরে জার্মান পুলিশের নজরে ছিল৷ এমনকি একবার বহিষ্কারের জন্য তাকে গ্রেপ্তার করে একদিন পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল৷

ছ'মাস ধরে আমরির উপর নজর রাখে জার্মান গোয়েন্দা পুলিশ, কেননা সে তথাকথিত ‘‘গেফ্যার্ডার'' বা বিপজ্জনক ব্যক্তিদের তালিকায় ছিল৷ যে ৪০ টনের ট্রাকটি বেপরোয়াভাবে চালিয়ে বার্লিনের একটি বড়দিনের বাজারে ১১ জন মানুষকে হত্যা করা হয়, সেই ট্রাকের ড্রাইভারের সিটের নীচে আমরির আইডি-র কাগজপত্র পাওয়া যাওয়ার পর ইউরোপ জুড়ে তার খোঁজ শুরু হয়েছে৷ জার্মান কর্তৃপক্ষ আমরির নামে ফেরারি নোটিশ জারি করেছেন ও তাকে গ্রেপ্তারের হদিশের জন্য এক লাখ ইউরোর পুরস্কার ঘোষণা করেছেন৷

ভিডিও দেখুন 01:38

দৃশ্যত গত সোমবারেই, অর্থাৎ আক্রমণের দিন ট্রাকের পোলিশ ড্রাইভারকে হত্যা করে ট্রাকটি কবজা করে আততায়ী বা আততায়ীরা৷ ১১ জন প্রাণ হারান ট্রাকের ধাক্কায়৷ ৪৮ জন আহতদের মধ্যে অনেককে ছেড়ে দেওয়া হলেও, ১২ জনের অবস্থা এখনও সংকটজনক বলে প্রকাশ৷ ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী এই আক্রমণের জন্য নিজেদের দায়ী বলে ঘোষণা করেছে৷ গোড়ায় এ ব্যাপারে সন্দেহ থাকলেও, আনিস আমরির খবর বের হওয়ার পর বিশেষজ্ঞরা আইএস-এর দাবিকে আবার গুরুত্ব দিচ্ছেন৷

জার্মান জনগণ ও মিডিয়া এখন যে ব্যাপারে ক্ষুব্ধ, সেটি হলো, আমরিকে পুলিশ আগে থেকে চিনে থাকলেও সে গা ঢাকা দিতে পারল কি করে৷ সেই সঙ্গে রয়েছে শুরুতে ২৩ বছর বয়সি এক পাকিস্তানি রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থীকে সন্দেহ, যা শীঘ্রই ভুল বলে প্রমাণিত হয়৷ কিন্তু তার ফলে গোটা মঙ্গলবার ও অংশত বুধবারে পালানোর প্রশস্ত সুযোগ পেয়েছে আমরি৷ তৃতীয়ত, আমরি নিজেও রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থী ও তার আবেদন ইতিমধ্যেই অগ্রাহ্য হয়েছে৷ তার নাকি জার্মানিতে ইসলামি উগ্রপন্থি মহলের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল ও সে জার্মানিতে থাকাকালীন ছ'টি বিভিন্ন নাম ও তিনটি ভিন্ন ভিন্ন নাগরিকত্ব ব্যবহার করেছে৷

জার্মানিতে আমরির রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন নাকচ হওয়া সত্ত্বেও তাকে বহিষ্কার করা যায়নি কেননা তার পাসপোর্ট ছিল না – অথবা ফেলে দেওয়া হয়েছিল – অপরদিকে টিউনিশিয়া কর্তৃপক্ষ আমরিকে তাদের নাগরিক বলে স্বীকার করতে গড়িমসি করেছে৷ মাত্র গত বুধবার আমরি ইয়েমেনের পাসপোর্ট পায় - যখন পুলিশ ইউরোপ জুড়ে তার খোঁজ করছে৷ যেমন ডেনমার্কের পুলিশ সুইডেন অভিমুখী একটি ফেরিতে তল্লাশি চালায় কেননা আমরির মতো দেখতে কোনো ব্যক্তি ঐ ফেরিতে আছে বলে তাদের কাছে খবর ছিল৷ আবার জার্মান পুলিশও স্পেশাল ইউনিট সহ প্রায় ১০০ জন কর্মী নিয়ে পশ্চিম জার্মানির এমেরিশ শহরের একটি উদ্বাস্তু আবাসনে এক ঘণ্টা ধরে তল্লাশি চালিয়েছে৷ এ খবর দিয়েছে জার্মান সংবাদ সংস্থা ডিপিএ৷

ইসরায়েলি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার নিশ্চিত করেছে যে, ডালিয়া এলিয়াকিম নামের এক ইহুদি মহিলা বার্লিনের ট্রাক আক্রমণে প্রাণ হারিয়েছেন৷ নিহতের স্বামী রামি এলিয়াকিম গুরুতরভাবে আহত অবস্থায় হাসপাতালে আছেন৷

এসি/জেডএইচ (এপি, ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও