1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাম শাসিত রাজ্যে হরতাল সফল, অন্যান্য রাজ্যে আংশিক সাড়া

আটটি ট্রেড ইউনিয়নের ডাকা ২৪ ঘন্টার ভারত ব্যাপী হরতাল বাম শাসিত রাজ্যগুলিতে সফল হলেও দেশের অন্য রাজ্যগুলিতে আংশিক সাড়া পাওয়া গেছে৷ মূল্যবৃদ্ধি, শ্রমিক আইন লঙ্ঘন ও আর্থিক সংস্কারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে এই হরতাল৷

Calcutta, India, strike, হরতাল, ভারত

ফাইল ছবি

বাম-শাসিত পশ্চিমবঙ্গ, কেরালা ও ত্রিপুরায় হরতালে স্বাভাবিক জনজীবন অচল৷ রাস্তাঘাট জনশূন্য৷ দোকানপাট,শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ৷ বিমান , বাস, ট্যাক্সি, অটো রিক্সা চলেনি৷ কলকাতা ও তার আশপাশের এলাকার শিল্পাঞ্চলে শ্রমিকরা কাজে যাননি৷ হরতালের প্রভাব বেশি পড়ে ব্যাঙ্ক, বীমা, সড়ক পরিবহন, কয়লা, টেলিকম ও নির্মাণ শিল্পে৷ সব মিলিয়ে প্রায় ১০ কোটি কর্মী হরতালে সামিল হয়েছে বলে দাবি করেছেন ট্রেড ইউনিয়ন নেতারা৷ কলকাতা ও অন্য শহর মিলিয়ে মোট ১৭০টি উড়ান বাতিল করতে হয়৷ অবশ্য ট্রেন ও মেট্রো ট্রেনকে হরতালের বাইরে রাখা হয়৷ কলকাতা ও তার আশপাশে সিপিএম ও তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের মধ্যে কিছু মারপিটের ঘটনা ঘটে৷ তৃণমূল কর্মীরা তাঁদের এলাকায় জোর করে দোকান খুলতে গেলে এই সংঘর্ষ বাঁধে৷ কেরালা ও ত্রিপুরাতেও ধর্মঘটের ছবিটা একই রকম৷ রাজধানী দিল্লিতে, কিছু ব্যাঙ্ক ও বীমা অফিস বন্ধ ছিল৷ কর্মীরা কাজে যোগ দেননি৷ রাস্তায় অটোরিক্সা চলেনি৷ তবে বিমান পরিষেবা প্রায় স্বাভাবিক ছিল৷ দিল্লি ও হরিয়ানার কলকারখানায় কর্মীদের হাজিরা অবশ্য বেশ কম ছিল৷ তামিলনাডুতে হরতালের প্রভাব তেমন পড়েনি৷ অর্থনৈতিক রাজধানী মুম্বই'এ ট্যাক্সি ও অটো চলেনি৷ কাজকর্ম মোটের ওপর ছিল স্বাভাবিক৷

নিখিল ভারত ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও সাংসদ গুরুদাস দাসগুপ্ত ডয়েচে ভেলেকে বলেন, ধর্মঘটের সাফল্য বেনজির৷ হরতালে গরিবদের কতটুকু উপকার হচ্ছে, একথায় তাঁর উত্তর, মূদ্রাস্ফীতির ফলে গরিবদের দুবেলা ভাত জুটছে না৷ সরকার অন্তত শিক্ষা নেবে এ থেকে৷ পঃ বঙ্গের প্রবীণ সাংবাদিক ডঃ পার্থ চট্টোপাধ্যায় ডয়েচে ভেলের কাছে তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বললেন, পাবলিক মনে করে, ধর্মঘট একটা অকেজো, ভোঁতা যন্ত্র৷ হরতাল ডেকে দেশের কোন উপকার হয়না৷ ধর্মঘটকে আজ আর সাধারণ মানুষ সমর্থন করেনা, তা সে যে উদ্দেশ্যেই ডাকা হোক না কেন৷ হরতাল পালন করে ভয়ে৷ সমর্থন করে তাঁরা, যাদের রাজনৈতিক অভিসন্ধি আছে৷

উল্লেখ্য, গত জুলাই মাসে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে হরতাল ডেকেছিল বিজেপি ও বামদল৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন