1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে ইউরোপকে চাপে ফেলছে অ্যামেরিকা'

তথাকথিত টিটিপ চুক্তির প্রায় আড়াই’শ পাতার একটি খসড়া ফাঁস হয়ে যাবার পর সেই প্রশ্ন তুলেছে জার্মান মিডিয়া৷ ইইউ থেকে গাড়ি রপ্তানি সহজ করার পরিবর্তে যুক্তরাষ্ট্র চায় ইউরোপের বাজারে মার্কিন কৃষিপণ্যের অবাধ প্রবেশ৷

টিটিপ অর্থাৎ ট্রান্সঅ্যাটলান্টিক ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট পার্টনারশিপ চুক্তির খসড়াটি গোপনীয়ই ছিল৷ তা সত্ত্বেও খসড়াটি গ্রিনপিস পরিবেশ সংগঠনের নেদারল্যান্ডস শাখার হাতে এসে পড়ে এবং তারা সেটিকে একটি জার্মান সংবাদমাধ্যমের একটি অংশের হাতে তুলে দেয়৷ সরকারি ডাব্লিউডিআর ও এনডিআর টেলিভিশন তথা বেতার সংস্থা, ও সেই সঙ্গে স্যুড ডয়চে সাইটুং পত্রিকার সাংবাদিকরা আগেও এভাবে একাধিক বিষয় নিয়ে অনুসন্ধান করে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রকাশ করেছেন৷ উইকিলিকস ও অপরাপর হুইসলব্লোয়ারের যুগে দৃশ্যত কোনো তথ্যই বেশিদিন গোপন রাখা সম্ভব নয়৷

টিটিপ-এর খসড়া প্রকাশিত হওয়ার ঠিক আগেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁর শেষ রাষ্ট্রীয় সফরে জার্মানি ঘুরে গেছেন এবং জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সঙ্গে তাঁর বিশেষ সখ্য ও হৃদ্যতার পরিচয় রেখেছেন৷ এমনকি দুই নেতা টিটিপ সংক্রান্ত আলাপ-আলোচনা আরো জরুরি ভিত্তিতে চালিয়ে যাবার আহ্বান জানিয়েছেন৷ ২০১৭ সালের মধ্যেই এই চুক্তি সম্পাদিত হোক, এই হলো ওবামার কামনা৷ অথচ জার্মানি তথা ইউরোপে টিটিপ-এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ অনেকদিন ধরে দানা বাঁধছে৷

টুইটকারী যা লিখছেন,তার অর্থ হলো, ‘ইউরোপীয় কমিশন ইউরোপীয় সংসদ ও জনগণের কাছ থেকে (টিটিপ-সংক্রান্ত) গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গোপন রেখেছেন৷ স্বচ্ছতা টিটিপ-এর অন্ত ঘটাবে৷' টিটিপ নিয়ে জার্মানিতে ইতিপূর্বে একাধিকবার বড় আকারের বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ মিছিল হয়েছে৷

তবে টিটিপ নিয়ে চূড়ান্ত ঝড় ওঠা এখনও বাকি, যদিও কনজিউমার সেফটি অর্থাৎ ভোক্তার নিরাপত্তা থেকে শুরু করে আর্বিট্রেশন প্যানেল অর্থাৎ সালিশি পরিষদ অবধি নানা খুঁটিনাটি নিয়ে মতানৈক্য ও বিতর্ক আছে৷ এক কথায় বলতে গেলে, ইউরোপের গ্রাহক তথা উৎপাদকদের ভয় এই যে, মার্কিন কৃষিপণ্যের স্টিমরোলার চলতে শুরু করলে ইউরোপের নিজস্ব সংস্কৃতি বিপন্ন হবে৷ এক্ষেত্রে ফ্রান্সের প্রতিরোধ সহজেই অনুমেয়৷

এসি/এসিবি (ডিপিএ, এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন