1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

বাণিজ্যিক সারোগেসি নিষিদ্ধকরণ বিল এখনও বিশ বাঁও জলে

গর্ভ ভাড়া রোধে সারোগেসি বিল ২০১৬ সংসদে পেশ হয়েছে, কিন্তু পাশ হয়নি৷ সেই সুযোগে ভারতের বড় বড় সারোগেসি ক্লিনিকগুলিতে গর্ভ ভাড়া দেবার এবং নেবার হিড়িক পড়ে গেছে৷

বাণিজ্যিক সারোগেসি নিষিদ্ধ করতে গত বছর সংসদে যে বিল আনা হয়, তা পাশ হবার আগেই বিলের বিভিন্ন ধারা নিয়ে সুশীল সমাজে দেখা দিয়েছে বিতর্ক৷ কোনো কোনো মহল বলছে, ভারতীয় সংবিধান অনুযায়ী সন্তান লাভের বা সন্তান ধারণের অধিকার যে কোনো নাগরিকের মৌলিক অধিকারের মধ্যে পড়ে৷ এটা ব্যক্তিগত অধিকারের প্রশ্ন৷ এতে রাষ্ট্র বা সরকারের হস্তক্ষেপ অনভিপ্রেত৷ অন্যদিকে সরকারের বক্তব্য হলো, সারোগেসি নিয়ন্ত্রণ আইন পাশ হলে গর্ভ ভাড়া দেবার অনৈতিক প্রথা বন্ধ হবে৷ সারোগেট মা বা তাঁর শিশু সন্তানের সুরক্ষার আইনি ও আর্থিক অধিকার কায়েম করাই সরকারের কাছে মুখ্য বিষয়৷ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের আশা চলতি বছরেই বিলটি পাশ হবে৷ সংসদের উভয় সভায় পাশ হবার পর বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে দশ মাস পর, যাঁরা সারোগেট মা হয়ে ইতিমধ্যেই গর্ভধারণ করেছেন, তাঁদের সন্তান ভূমিষ্ঠ হবার সময় দেবার জন্য৷ কিন্তু বিল পাশের আশু সম্ভাবনা আপাতত চোখে পড়ছে না৷

ড. নয়না পাটেল

ভারতে বাণিজ্যিক সারোগেসি শুরু করেছিলেন যিনি, ড. নয়না পাটেল

সারোগেসি বিল পাশ হওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছে কিছুটা অনিশ্চয়তা৷ দানা বেঁধেছে নানা সংশয় ও জটিলতা৷ নারী অধিকারবাদীরাও দ্বিধাবিভক্ত৷ একাংশের মতে, নিম্নবিত্ত কোনো মহিলা যদি অর্থের বিনিময়ে নিজের গর্ভ স্বেচ্ছায় ভাড়া দেন, তাহলে আপত্তি কেন হবে? যদি ডাক্তাররা তাঁর দৈহিক ও মানসিক স্বাস্থ্য উপযুক্ত বলে মনে করেন৷ কিডনি বেচার চেয়ে এটা কি ভালো নয়? বাণিজ্যিক সারোগেসির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলে নারীবাদীদের অন্য অংশের মতে, ভারতে সারোগেসি ক্লিনিকগুলি ধনীদের জন্য নিছক ‘বেবি-ফ্যাক্টরি' হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ আইন না থাকায় শেষ মুহূর্তের শিকার হচ্ছে গরিব ও অশিক্ষিত মহিলারা৷ আপত্তি জানিয়েছেন বাংলাদেশের লেখিকা তসলিমা নাসরিন৷ টুইটে মন্তব্য করেছেন, গরিব মহিলাদের অধিকার লঙ্ঘিত হয় সারোগেসিতে৷ এটা মহিলাদের শরীরের ওপর অত্যাচার ছাড়া আর কী?

গর্ভ ভাড়া দেওয়া বা নেওয়া নিষিদ্ধ হতে চলেছে ধরে নিয়ে বড় বড় শহরের সারোগেসি ক্লিনিকগুলিতে এখন দারুণ ব্যস্ততা৷ বেড খালি থাকছে না৷ সারোগেসির শেষ সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইছে না ইচ্ছুক মহিলারা৷ যেন নতুন হিড়িক পড়ে গেছে সারোগেসির৷ তা সে করণ জোহরের মতো বলিউডের বিখ্যাত চিত্র নির্মাতা, জনপ্রিয় অভিনেতা আমির খান-কিরণ রাও খান, শাহরুখ খান-গৌরি খান কিংবা তুষার কাপুর হোন৷ সদ্য যমজ সন্তানের সিঙ্গল পিতা হয়েছেন করণ জোহর৷ একটি ছেলে, একটি মেয়ে৷ ছেলের নাম রেখেছেন বাবার নামের সঙ্গে মিলিয়ে যশ আর মেয়ের নাম মায়ের নাম হিরুর উল্টো করে রুহি৷ হিন্দি ছবি কুছ কুছ হোতা হ্যায়, ইয়ে দিল হ্যায় মুশকিল-এর মতো ফিল্মের প্রযোজক-পরিচালক সিঙ্গল ফাদার হতে পারার আনন্দে, আবেগে উচ্ছ্বসিত তিনি৷ কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তাঁর সন্তানের সারোগেট মাকে আর ডাক্তারকে৷ দু'টি সন্তানের প্রতিপালনের জন্য নিজের একশ' শতাংশ ঢেলে দেবেন৷ পেশাগত ব্যস্ততা কোনো বাধা হবে না৷ বেশ কিছুদিন আগে থেকেই এ বিষয়ে একটা কানাঘুষা চলছিল৷ সেটা নিজেই জানিয়ে দিলেন কয়েকদিন আগে, তবে ব্যক্তিগত গোপনীয়তার একটা জায়গা রেখে৷ সেটাকে সমর্থন করেছেন শাহরুখ খান নিজেও৷

সারোগেসির বৈধতা বা অবৈধতা স্পষ্ট করে দিতে সারোগেসি নিয়ন্ত্রণ বিলে আছে, সারোগেসির বাণিজ্যিকীকরণ নিষিদ্ধ করা হলেও পরোপকারের ক্ষেত্রে নয়৷ পরোপকার বলতে কোনো টাকা পয়সা না নিয়ে বা কোনো ক্ষতিপূরণ না চেয়ে সারোগেট করা৷ হাসপাতাল বা ক্লিনিকের খরচ খরচা এবং স্বাস্থ্য বিমা অবশ্য এর মধ্যে পড়ে না৷ তবে যেসব ইচ্ছুক নিসন্তান দম্পতি সন্তানলাভে মেডিক্যালি অক্ষম, একমাত্র তাঁরাই সারোগেসি চাইতে পারবেন৷ আর এর জন্য বয়সসীমা হবে স্বামীর ক্ষেত্রে ২৬ থেকে ৫৫ বছর এবং স্ত্রীর ক্ষেত্রে ২৩ থেকে ৫০ বছর৷ যিনি গর্ভদাত্রী হবেন, তাঁর বয়স হতে হবে ২৫ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে এবং তাঁকে অন্তত একটি সন্তানের জননী হতে হবে৷ এছাড়া সেই নারীকে হতে হবে দৈহিক ও মানসিকভাবে উপযুক্ত৷

সারোগেসি বিল আইনে পরিণত হবার ৯০ দিনের মধ্যে কেন্দ্র ও রাজ্যস্তরে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ নিয়োগ করতে হবে৷ তাদের কাজ হবে সারোগেসি ক্লিনিকের লাইসেন্স মঞ্জুর করার বা লাইসেন্স বাতিল করার ক্ষমতা থাকবে৷ ক্লিনিকের গুণগত মান বজায় রাখা হয়েছে কিনা সেদিকে নজর রাখা৷ গুণগত মান বজায় না থাকলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া এবং সর্বোপরি বাণিজ্যিক সারোগেসি নিবারণ করা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন