1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল ভিডিও

বাজি পোড়ানোর অর্থ শুধু টাকা পোড়ানো?

অভিনেতা ও উঠতি সোশ্যাল মিডিয়া স্টার বরুণ প্রুথি ভারতের প্রখ্যাত আলোকোৎসব দিওয়ালির ঠিক আগে একটি ভিডিও ক্লিপ প্রকাশ করেছেন, যা ফেসবুক ও ইউটিউবে বিপুল সাড়া জাগিয়েছে৷ ছবিটির মর্ম: বাজি পোড়ানোর অর্থ টাকা পোড়ানো৷

বাজি পোড়ানোর মানে যে টাকা পোড়ানো, সেটা লোকমুখে বহুদিন ধরেই প্রচলিত৷ কিছু মানুষ অনেক দিন ধরেই এমনটি বলছেন৷ প্রুথি যেটা করেছেন, সেটিও হলিউড-বলিউডের একটি প্রথাসিদ্ধ পদ্ধতি: কোনো প্রবাদ-প্রবচনকে আক্ষরিক অর্থে নিলে কেমন হয়? 

কাজেই ভিডিও ক্লিপটিতে প্রুথি রাস্তার ধারে সত্যি সত্যি টাকা পোড়াচ্ছেন, অর্থাৎ দেশলাই ধরিয়ে ফুটপাথের কানায় রাখা নোটে আগুন ধরাচ্ছেন, যেন সেগুলো পটকা কিংবা দোদোমা৷

পরিচিত এক ইয়ার-দোস্ত এসে স্বভাবতই প্রুথিকে জিজ্ঞাসা করছেন, তার মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে কিনা, তাকে পাগলা গারদে পাঠাতে হবে কিনা, ইত্যাদি৷ উত্তরে প্রুথি বলছেন, ‘‘আর তোমার হাতে ওটা কি?'' সত্যিই দোস্তের হাতে কালিপটকার লম্বা প্যাকেট৷

‘‘তোমাকে দু'দিন ধরে দেখছি, তুমি এভাবে টাকার শ্রাদ্ধ করছ৷ তাহলে আমিই বা টাকা পোড়াবো না কেন?'' বলছেন প্রুথি৷ দিওয়ালির মানে শুধু বাজি পোড়ানো নয়৷ ঐ টাকা দিয়ে যদি কারো মুখে হাসি ফোটানো যায়, তবে সেটাই হলো দিওয়ালির মর্ম৷

ক্লিপের বাদবাকি অংশটায় সেভাবেই ‘দরিদ্রনারায়ণের সেবা' করছেন বরুণ প্রুথি৷ ক্লিপটির সার্থকতা এইখানে যে, দিওয়ালি বা অন্য কোনো উৎসবে অনর্থক বাজি পোড়ানোটা যে শুধু পয়সার অপচয় নয়, মানুষের কল্যাণ করার সুযোগেরও অপচয়, এই সহজ বাণীটিকে অত্যন্ত সহজ ও দ্ব্যর্থহীনভাবে অগণিত জনতার কাছে পৌঁছে দিতে পেরেছেন বরুণ প্রুথি৷ হ্যাপি দিওয়ালি!

এসি/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়