1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাগা-য় বোকো হারাম-এর হত্যাকাণ্ড: অ্যামনেস্টি-র বিবরণ ও ভিডিও

একজন সন্তানসম্ভবা মহিলাকে প্রসব করার সময় গুলি করে হত্যা করেছে বোকো হারাম: এমনই সব বিভীষণ কাহিনি অ্যামনেস্টি শুনেছে প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে৷ সেই সঙ্গে রয়েছে বাগা এবং ডোরন বাগা-র স্যাটেলাইট থেকে তোলা ছবি৷

বাগা শহরটি উত্তর-পূর্ব নাইজেরিয়ায়, চাদ হ্রদের তীরে৷ ডোরন বাগা তার মাত্র আড়াই কিলোমিটার দূরে৷ তেসরা জানুয়ারি যাবৎ এখানে বোকো হারামের যোদ্ধারা তাদের ছ'বছরের অভিযানের সবচেয়ে প্রাণঘাতী হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে৷

সেই হত্যাকাণ্ডে কতোজন মারা গেছে, তার কোনো সঠিক খবর নেই৷ নাইজেরিয়ার সামরিক বাহিনী সাধারণত নিহতের সংখ্যা কমিয়ে দেখানোর চেষ্টা করে – তারা এ সপ্তাহে বলেছে, বাগা-য় শ'দেড়েক মানুষ প্রাণ হারিয়েছে, দু'হাজার মানুষ নিহত হবার খবরটা অতিরঞ্জিত৷

অপরদিকে অ্যামনেস্টি শত শত মানুষ নিহত হবার কথা বলেছে৷ দৃশ্যত বোকো হারামের লক্ষ্য ছিল, যে সব বেসামরিক সশস্ত্র গোষ্ঠী সামরিক বাহিনীকে সাহায্য করছে, তাদের বিনষ্ট করা৷ এক প্রত্যক্ষদর্শী অ্যামনেস্টি-কে বলেছেন: ‘‘ওরা এতো মানুষ মেরেছে, আমি ঐ সময় বাগা-য় প্রায় এক'শো মানুষ খুন হতে দেখেছি৷ আমি জঙ্গলে দৌড় লাগাই৷ আমরা যখন দৌড়চ্ছি, তখনও গুলি আর হত্যার আওয়াজ শুনেছি৷''

Anschlag Kano Nigeria

নাইজেরিয়ার বৃহত্তম শহর কানো’তে গত নভেম্বর মাসের ধ্বংসযজ্ঞ

আরেক মহিলা বলেছেন: ‘‘আমি জানি না কতোগুলো, কিন্তু যেখানেই দেখেছি, সেখানেই লাশ পড়ে ছিল৷'' স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তারাও বহু মানুষ নিহত হওয়ার কথা বলেছেন৷ প্রত্যক্ষদর্শীরা ফরাসি এএফপি সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন মরাপচা লাশ রাস্তায় পড়ে থাকার কথা৷ তিনদিন লুকিয়ে থাকার পর বাগা থেকে পালানোর সময় এক প্রত্যক্ষদর্শী নাকি পাঁচ কিলোমিটার ধরে ‘‘লাশ মাড়িয়ে চলেছেন''৷ হিউম্যান রাইটস ওয়াচ-এর বিবরণে বাগা-র এক বাসিন্দা বলেছেন: ‘‘লাশ গোনার জন্য কেউ পড়ে থাকেনি৷ আমরা সকলেই বোকো হারাম যোদ্ধারা শহরে ঢোকার আগে পালানোর চেষ্টায় ছিলাম৷ বোকো হারাম ইতিমধ্যে গোটা এলাকাটা দখল করে ফেলেছে৷''

অ্যামনেস্টি এবং এইচআরডাব্লিউ, উভয় মানবাধিকার সংগঠন পৃথকভাবে বাগা এবং ডোরন বাগা লোকালয় দু'টির স্যাটেলাইট ইমেজ প্রকাশ করেছে৷ সেই ইমেজে ‘‘বিপর্যয়মূলক ধ্বংস'' দেখা যাচ্ছে, বলে জানিয়েছে অ্যামনেস্টি: বাগায় ৬২০টি বাড়ি, ডোরন বাগা-য় ৩,১০০ বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত বা বিনষ্ট হয়েছে৷ এইচআরডাব্লিউ জানিয়েছে, বাগা-র ১১ শতাংশ এবং ডোরন বাগা-র ৫৭ শতাংশ ধ্বংস হয়েছে, খুব সম্ভবত অগ্নিকাণ্ডে – ডোরন বাগা আরো বেশি ধ্বংস হয়েছে কেননা সেখানে একটি সামরিক ঘাঁটি আছে৷

নাইজেরিয়া, নাইজার এবং চাদ-এর সৈন্য সম্বলিত একটি মাল্টিন্যাশনাল জয়েন্ট টাস্ক ফোর্স বোকো হারামের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে৷ বাগা-র চারপাশে অন্তত ১৬টি গ্রাম বা বসতি পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে, বিশ হাজার মানুষ পলাতক৷ ‘ডক্টর্স উইদাউট বর্ডার্স' মঙ্গলবার জানিয়েছে, বোর্নো প্রদেশের রাজধানী মাইদুগুরি-তে তাদের ক্যাম্পে বাগা হত্যাকাণ্ডের পাঁচ হাজার উদ্বাস্তুকে সাহায্য করা হচ্ছে৷ ইউএনএইচসিআর-এর বিবৃতি অনুযায়ী এগারো হাজারের বেশি নাইজেরীয় উদ্বাস্তু চাদ-এ পলায়ন করেছেন৷ চাদ এবার বোকো হারামের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ক্যামেরুন-কে সাহায্য করার প্রস্তাব দিয়েছে৷

অ্যামনেস্টির মতে, বোকো হারামের এই সর্বশেষ হত্যা তথা ধ্বংস অভিযান যুদ্ধাপরাধ হিসেবে গণ্য৷ প্রত্যক্ষদর্শীরা অ্যামনেস্টিকে জানিয়েছেন, বোকো হারাম কী ভাবে ৩০০ মহিলাকে তুলে ধরে নিয়ে গিয়ে একটি স্কুলে বন্দি করে রেখেছে৷ চারদিন বন্দিদশার পর প্রবীণা, যারা মা হয়েছেন এবং শিশুকন্যাদের ছেড়ে দেওয়া হয় – কিন্তু তরুণ মহিলাদের আটকে রাখা হয়েছে৷

এসি/এসবি (এএফপি, এপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন