1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাগবোর ক্ষমতা ছাড়ার কোন খবর পাওয়া যায়নি

আইভরি কোস্টের প্রেসিডেন্ট লরাঁ বাগবো আত্মসমর্পণ করেছেন, এই গুজব ছড়িয়ে পড়ার পরে আবিজানে বাগবোর বাহিনী এবং আলাসান ওয়াতারার সমর্থক বাহিনীর মধ্যে তুমুল লড়াই মঙ্গলবার ধীরে ধীরে কমে এসেছে৷

default

লরাঁ বাগবো

আন্তর্জাতিক চাপের মুখে অনেকটাই কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন বাগবো৷ এ খবর সকাল থেকেই পাওয়া যাচ্ছিল৷ তা সত্ত্বেও, বাগবো তাঁর পদ ধরে রেখেছেন বলেই জানা গেছে৷ তবে শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, ফরাসি রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনা করছেন বাগবো'র পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলসিড জেজে৷

ফ্রান্সে নিয়োজিত ওয়াতারার স্বীকৃত দূত এ্যালি কুলিবালি মঙ্গলবার সকালে ফ্রান্স ইনফো রেডিওকে তার সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন, বাগবো তাঁর আত্মসমর্পণের ব্যপারে আলোচনা চালাচ্ছেন৷ তবে আবিজানের কোনো সরকারি মাধ্যম থেকে এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করা হয়নি৷ আরেকটি অসর্মর্থিত খবরে বলা হচ্ছে বাগবো এবং তার পরিবার বাঙ্কারে আশ্রয় নিয়েছেন৷

Elfenbeinküste Demonstration Anhänger Gbagbo

মঙ্গলবার সকালে বাগবোর মুখপাত্র আহুয়া ডন মেলো বলেন, বাগবো তাঁর বাড়ি, প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ এবং আবিজানে দেশের সবচেয়ে বড় সামরিক শিবির নিয়ন্ত্রণ করে চলেছেন৷ ঐ মুখপাত্র বলেন, আকুয়েডো সামরিক শিবির ছাড়া সব কৌশলগত স্থাপনাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে৷ ঐ সামরিক শিবিরটি ধ্বংস হয়ে গেছে৷ তিনি বলেন, ‘‘আগবান শিবির, পুলিশ স্কুল, প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ, বাসভবন এবং আরটিআই টেলিভিশন কেন্দ্র সবকিছুই নিয়ন্ত্রণ করছেন বাগবো৷'' তবে একই সঙ্গে ঐ মুখপাত্র বলেন, ‘‘বাগবো আশ্চর্য হয়েছেন যে, ফ্রান্স সরাসরি আইভরি কোস্টে হামলা করেছে, কেননা তিনি আলোচনার দরজা বন্ধ করেননি৷''

ফ্রান্স এবং জাতিসংঘ বাহিনীর এক যৌথ অভিযানে সোমবার প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ, প্রেসিডেন্টের বাড়ি, এবং দুটি সামরিক ব্যারাকের ওপরে হামলা চালানো হয়৷ ৬৫ বছর বয়স্ক বাগবো ঐ সামরিক ব্যারাক দুটি নিয়ন্ত্রণ করছেন এবং সেখানকার ভারী অস্ত্রশস্ত্র ব্যবহার করছেন বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে৷ তবে লরাঁ বাগবোর সমর্থক সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল ফিলিপ মাংগোও মঙ্গলবার সর্বশেষ খবরে জানিয়েছেন, তাঁর সৈন্যরা প্রতিদ্বন্দ্বী আলাসান ওয়াতারার বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই বন্ধ করেছে৷

এদিকে, আইভরি কোস্টে জাতিসংঘ সৈন্যদের লড়াইয়ের পরিপ্রেক্ষিতে আইভরি কোস্ট নিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া৷ রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ মস্কোতে সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, ‘‘আমরা এই ইস্যুর বৈধ দিকটি দেখতে চাই৷ কেননা, নিয়ম অনুযায়ি শান্তিরক্ষীরা নিরপেক্ষ থাকবে, কোনো পক্ষ অবলম্বন করতে পারবে না৷'' তিনি বলেন, ‘‘আমরা আমাদের এইসব প্রশ্নের কোন সঠিক জবাব পাইনি, তবে আমরা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি৷''

ওদিকে, জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুন বলেছেন, বেসামরিক জনগণের বিরুদ্ধে অস্ত্র ব্যবহার বন্ধ করাই ঐ অভিযানের লক্ষ্য এবং বাগবোর বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করা হয়নি৷ অপরদিকে আফ্রিকান ইউনিয়নের প্রধান টেওডেরো ওনিয়াং এনগুয়েমা আইভরি কোস্ট ও লিবিয়ায় বিদেশি সামরিক হস্তক্ষেপের নিন্দা করেছেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আফ্রিকাকে অবশ্যই তাদের নিজেদের ব্যবস্থা নিজেদের করতে দিতে হবে৷''

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিনের লড়াইয়ে বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছে বলে জাতিসংঘ মানবাধিকার সংস্থা জানিয়েছে৷

প্রতিবেদন: ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

নির্বাচিত প্রতিবেদন