1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

বাংলাদেশ, ভারতে বাড়ছে ব্যাটারিচালিত রিকশা

কোথাও নাম ইজিবাইক, কেউ বলেন ই-রিকশা আবার কারো ভাষায় সিটি বাইক৷ একই বাহনের অনেক নাম৷ রিকশার আদলে তৈরি তিন চাকার এই বাহনের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ব্যাটারি৷ বাংলাদেশ এবং ভারতের এই রিকশার চল বাড়ছে৷

গতানুগতিক রিকশা প্যাডেল চেপে পুরোপুরি শারীরিক শক্তি ব্যয় করে চালাতে হয়৷ আর ব্যাটারিচালিত রিকশা প্যাডেল ঘুরিয়ে চালাতে হয় না৷ এটি চলে রিচার্জেবল ব্যাটারির শক্তিতে৷ ফলে চালকের কষ্ট কম হয়, আর অল্প সময়ে বেশি দূরত্ব অতিক্রম করা যায়৷ বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইতোমধ্যে পৌঁছে গেছে ব্যাটারিচালিত রিকশা৷ ক্রমশই এই রিকশার চাহিদা বাড়ছে৷ আর শুধু বাংলাদেশ নয়, ভারতের বিভিন্ন রাজ্যেও এই রিকশা চলছে৷

আমাদের নতুন দিল্লি প্রতিনিধি অনিল চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘‘তিন চাকার ই-রিকশা ব্যাটারিচালিত, দূষণ মুক্ত এবং শব্দহীন৷ পেট্রোল নয়, ডিজেল নয়, প্রাকৃতিক গ্যাস নয়, মূলত চারটি ১২ ভোল্টের ব্যাটারিতে ২৫০ ওয়াটের কম বিদ্যুতে চার থেকে পাঁচজন যাত্রী নিয়ে ঘণ্টায় ২০ থেকে ২৫ কিলোমিটার গতিতে চলতে পারে ই-রিকশা৷''

প্রসঙ্গত, গত বছর ঢাকায় সৌরশক্তিচালিত রিকশা প্রদর্শন করে ‘বিভা টেক' নামক একটি প্রতিষ্ঠান৷ এই রিকশা রাস্তায় চলতে চলতেই সূর্যের আলো থেকেই সংগ্রহ করে শক্তি৷ ফলে পুরোপুরি পরিবেশবান্ধব বাহন এটি৷

চালক এবং যাত্রীর জন্য সুবিধাজনক হলেও ব্যাটারিচালিত রিকশা নিয়ে বিতর্কও রয়েছে৷ এই রিকশার ব্যাটারি চার্জ হতে বিদ্যুতের প্রয়োজন হয়৷ তাই লোডশেডিং কমাতে এধরনের রিকশা বন্ধের দাবি মাঝেমধ্যেই উঠছে বিভিন্ন অঞ্চলে৷ তাছাড়া বড় শহরগুলোতে যানজট সৃষ্টির পেছনেও দায়ী করা হচ্ছে ব্যাটারিচালিত রিকশাকে৷ বিশেষ করে নতুন দিল্লিতে চালকরা যেভাবে খুশি সেভাবে ই-রিকশা চালান এবং যত্রতত্র পার্ক করেন৷ এতে করে রাস্তায় ট্রাফিক জ্যাম সৃষ্টি হয়৷ ঢাকায়ও একইরকম অবস্থা দেখা গেছে৷

উল্লেখ্য, ই-রিকশার জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি অধিকাংশ ক্ষেত্রে চীন থেকে আমদানি করা হয়৷ এসব যন্ত্রপাতির মান নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে৷ রিকশার ব্যাটারিগুলো বেশিদিন ঠিকভাবে কাজ করে না বলে অভিযোগ রয়েছে৷ আর ই-রিকশার দামও অনেক৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক