বাংলাদেশ থেকে প্রতিমাসে ১০ হাজার শ্রমিক যাবে সৌদি আরবে | বিশ্ব | DW | 07.04.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাংলাদেশ থেকে প্রতিমাসে ১০ হাজার শ্রমিক যাবে সৌদি আরবে

এর অধিকাংশই নারী গৃহকর্মী৷ যা বিদেশে শ্রমবাজার সংকটের মধ্যে নতুন সম্ভানার দুয়ার খুলে দিয়েছে বাংলাদেশে৷ তবে বিদেশে শ্রমশক্তি রপ্তানিকারকদের সংগঠন ‘বায়রার’ সাবেক সভাপতি গোলাম মোস্তফা বলেন, এক্ষেত্রে সতর্ক হতে হবে দেশকে৷

default

ফাইল ছবি

গোলাম মোস্তফা জানান, ২৫ থেকে ৩৫ বছরের মহিলাদের পরিবর্তে ৩৫ থেকে ৫৫ বছরের মহিলাদের পাঠাতে হবে৷ তা না হলে পারিবারিক সংকট সৃষ্টি হতে পারে৷ আর সৌদি আরবে বাংলাদেশের দূতাবাসকে হতে হবে আরো সক্রিয়৷

গোলাম মোস্তফা ডয়চে ভেলেকে জানান, আগামি দু'মাসের মধ্যেই এই নারী গৃহকর্মীদের নেওয়া শুরু করবে সৌদি আরব৷ তবে এক্ষেত্রে আমাদের সামাজিক বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে৷ কারণ ২৫ থেকে ৩৫ বছরের মহিলারা বিদেশে গেলে, তাঁদের সন্তানদের বেড়ে ওঠায় সমস্যা দেখা দিতে পারে৷ আর এর ফলে সৃষ্টি হতে পারে পারিবারিক সমস্যা৷ তাই তিনি মনে করেন এই বয়স সীমা বাড়ানো উচিত৷

তিনি মনে করেন, সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাসকেও এজন্য সক্রিয় হতে হবে৷ যাতে তাঁরা সেখানে গিয়ে কোনো নির্যাতনের শিকার না হন৷ গোলাম মোস্তফা বলেন, নারী গৃহকর্মীদের যথাযথ বাস্তব প্রশিক্ষণ দিয়ে পাঠাতে হবে৷ নয়তো তাঁরা সেখানে গিয়ে বিপাকে পড়তে পারেন৷

যাঁরা বিদেশে যাবেন, তাঁরা যেন প্রতারিত হন৷ কারণ তাঁদের সৌদি আরবে যেতে কোনো খরচ লাগবেনা৷ পুরো খরচই বহন করবে সৌদি আরবের নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ৷ আর তাঁদের মাসে বেতন হবে ১২ হাজার টাকা৷

গোলাম মোস্তফা বলেন, আমরা যদি সতর্কতার সঙ্গে এগোতে পারি তাহলে রেমিটেন্স যেমন বাড়বে, তেমনি নারীর ক্ষমতায়নেও তা বড় ভূমিকা রাখবে৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়