1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

আলাপ

বাংলাদেশে সুশীলদের প্রতিবাদ করতে দিচ্ছে না সরকার

বাংলাদেশে বাকস্বাধীনতার ক্ষেত্রে ‘সুশীল সমাজের দুরবস্থার জন্য সুশীলরাও দায়ী'৷ ডয়চে ভেলের কর্মী জাহিদুল হকের এই কথার সাথে ফেসবুক পাতায় অনেক পাঠকই একমত৷ তবে কেউ কেউ আবার ভিন্নমতও প্রকাশ করেছেন৷

‘বাংলাদেশে আজ সুশীল সমাজের সদস্যরা নিস্ক্রিয়৷ কোনো কিছুর প্রতিবাদ করার ক্ষমতা তাঁদের নেই৷ সরকারই সেটা করতে দিচ্ছে না৷ তবে এর জন্য দায়ী সুশীলরাও৷' লেখকের এই বক্তব্যের সাথে শতকরা ১০০ ভাগ একমত পাঠক মাহমুদ হাসান৷

‘‘সুশীল সমাজের কেউ না কেউ একটা দলের সাথে জড়িত আছে৷ কেউ রাতকানা, কেউ দিনকানা৷ টেলিভিশন চ্যানেলগুলোকে সরকার নির্দেশ দিয়েছে নিরপেক্ষভাবে সরকারের বিপক্ষে যারা কথা বলবে, তাদের কাউকে টকশো'তে না আনতে৷ অন্যথায় টিভি চ্যানেল বন্ধ করে দেবে৷ সরকার কারো কথা সহ্য করতে রাজি নয়৷'' এই মন্তব্য মুহাম্মদ আরিফুল হুদা আরিফের৷

জাহিদুল হক লিখেছেন, ‘‘সুশীলদের এই দুই অংশের বাইরেও একটি অংশ আছে, যার সদস্য সংখ্যা খুবই নগণ্য৷ বর্তমান সরকার এই অংশকে বিভিন্ন উপায়ে চাপে রেখেছে৷ তাঁদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে৷ কেউ আবার দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে নিজে থেকেই স্বনিয়ন্ত্রিত হয়ে পড়েছেন৷ তাঁরা ভাবছেন, মত প্রকাশ করতে গিয়ে যদি জীবনটাই চলে যায় তাহলে চুপ থাকাই ভালো৷'' লেখকের এই বক্তব্যের সাথে কিছুটা মিল রয়েছে পাঠক আইয়ার মুহাম্মদের৷ তিনি বলছেন, কেউ দলপ্রীতি আবার কেউ কেউ আদর্শপ্রীতি আবার কেউ বা সরকারজোটের রিঅ্যাকশনের ভয়ে রয়েছেন৷

ডয়চে ভেলের পাঠক মোস্তাফিজুর রহমানও লেখকের মতো সুশীল সমাজকেই দায়ী করছেন৷ তাঁর ভাষায়, ‘‘একলা চলোরে নীতিতে আর যাই হোক সামাজিক হওয়া যায় না৷ সুশীল হওয়ার প্রথম কাজ হলো নিজের সমাজ ও মানুষের সাথে মিশে যাওয়া৷ বই পড়ে সুশীল হওয়ার ফলাফল যে কী তা ভালোই টের পাচ্ছেন বর্তমান সময়ের সুশীলরা৷''

আমাদের ফেসবুক বন্ধু আমানুল হকও সুশীলদেরই দায়ী করছেন৷ তিনি বলছেন, ‘‘আপনি সমাজে বসবাস করতে গেলে অন্যের মতামতকে শ্রদ্ধা করতে হবে৷ গঠনমূলক সমালোচনা করা যায়, তবে তার একটি নিদৃষ্ট মাত্রা থাকা উচিত৷ কিন্তু বর্তমানে তথাকথিত সুশীল সমাজ সেই মাত্রা অতিক্রম করে সাধারণ মানুষের যুগ যুগ ধরে চলে আসা ধর্মবিশ্বাস আচার-আচরণ নিয়ে খেলা করছে৷ আধুনিকতার নাম করে অপসংস্কৃতি অনুপ্রবেশ করাচ্ছে৷ তাই তাদের এই দূরাবস্থা৷''

‘‘সুশীল সমাজ যতদিন পর্যন্ত না দলীয় লেজুড়বৃত্তি ছাড়বে, ততদিন পর্যন্ত অবস্থার কোনোই পরিবর্তন হবে না৷'' এই মন্তব্য পাঠক মাসুমের৷

দেরিতে হলেও বাস্তবতাকে বুঝতে পেরেছেন বলে পাঠক মাসুদ সুশীল সমাজকে ধন্যবাদ দিয়েছেন৷

অন্যদিকে বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ পুরোপুরি শেখ হাসিনাকেই দায়ী করেছেন৷ আমিনুল ইসলাম শাহীন, স্বপন কান্তি দাস, সুমন, শেখ মোহাম্মদ শামীম, রূপা – এরা সকলেই মোহাম্মদ শহীদুল্লাহর সাথে একমত৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়