1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

বাংলাদেশে শিক্ষাক্ষেত্রে সংস্কারের প্রশংসা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে কোচিং বন্ধ, শিক্ষার্থীদের শারীরিক শাস্তি প্রদান নিষিদ্ধ করা এবং বেড়ে চলা আত্মহত্যার প্রবণতার প্রসঙ্গ স্থান পেয়েছে সংবাদ শিরোনামে৷

default

শিক্ষাক্ষেত্রে সংস্কারের কিছু উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে

ঢাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির শিক্ষকেরা কোচিং করাতে পারবেন না৷ তবে কিছু বিশেষ ক্ষেত্রে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত ক্লাস নেওয়ার আয়োজন করতে পারবে৷ এই নতুন নিয়ম সম্পর্কে প্রথম আলো লিখেছে, সার্টিফিকেটের জন্য বিদ্যালয়, আর ভালো ফলের জন্য প্রাইভেট টিউটর কিংবা কোচিং – এমনটাই হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক শিক্ষার ভেতরের চিত্র৷ যত ভালো স্কুলই হোক না কেন, কোচিং যেন লাগবেই৷ শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়া কিংবা বাইরের কোচিংয়ের ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আয়োজিত এই বাড়তি ক্লাসের বিকল্প নেই৷

শিক্ষা ক্ষেত্রে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত সম্পর্কে ভোরের কাগজ মন্তব্য করেছে ভোরের কাগজ৷ শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের শারীরিক শাস্তি প্রদান সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ঐ সম্পাদকীয়তে লেখা হয়েছে, ‘‘বর্তমান সরকারকে সাধুবাদ জানাতেই হয় যে, তারা দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে সুশৃঙ্খল ও লক্ষাভিমুখী করতে সচেষ্ট রয়েছেন৷ ইতিমধ্যে জাতীয় শিক্ষানীতি চূড়ান্ত করা হয়েছে৷ সেখানে আধুনিক শিক্ষাভাবনার প্রয়োগ লক্ষণীয়৷ তবে শুধু আইন বা নিয়ম করাই যথেষ্ট নয়৷ সরকারের এই নির্দেশ কার্যকর করার ক্ষেত্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক হতে হবে৷ শুধু নিয়ম মানাই যথেষ্ট নয়, জরুরি হলো শিক্ষকদের প্রচলিত মানসিকতা থেকে সরে আসা৷''

‘আর নয় আত্মহত্যা' এই শিরোনামে দৈনিক কালের কণ্ঠ এক বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে৷ তাতে দাবি করা হয়েছে, যে ঢাকা ও আশপাশের জেলায় প্রতিদিন শতাধিক আত্মহত্যার চেষ্টার খবর পাওয়া যায়, অথচ কোনো ‘পুলিশ কেস' বা তদন্ত হয় না৷ এদের অধিকাংশই গৃহবধূ ও ছাত্রী৷ গৃহবধূদের অধিকাংশের কাছ থেকে জানা গেছে, পারিবারিক হতাশার কারণেই তাঁরা আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছিলেন৷ যুগান্তর সংবাদপত্রও একই ধরণের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, যার শিরোনাম ‘দাম্পত্য কলহ থেকে বাড়ছে আত্মহননের প্রবণতা'৷ তাতে দাবি করা হয়েছে, যে পরকীয়া, দ্বিতীয় বিয়ে, যৌতুকের দাবি, পারিবারিক অশান্তি ও দাম্পত্য কলহের করুণ বলি হচ্ছে নিরপরাধ শিশু সন্তানরা৷ ইদানীং এ সমস্যাটি প্রকট আকার ধারণ করেছে৷

প্রতিবেদন: সঞ্জীব বর্মন
সম্পাদনা: হোসাইন আব্দুল হাই

সংশ্লিষ্ট বিষয়