1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাংলাদেশে ব্লগার হত্যার প্রতিবাদ বার্লিনে

বাংলাদেশে ব্লগার, প্রকাশকসহ মুক্তমনাদের উপর হামলার প্রতিবাদে জার্মানির বার্লিনে রবিবার এক মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ এতে অংশ নেয়া প্রবাসীরা ব্লগার হত্যা বন্ধে বাংলাদেশ সরকারকে দ্রুত উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন৷

বাংলাদেশে চলতি বছর চার ব্লগার এবং এক প্রকাশক খুন হয়েছেন, আহত হয়েছেন কয়েকজন৷ একাধিক জঙ্গি গোষ্ঠী এই সব হত্যাকাণ্ডের, হামলার দায় স্বীকার করেছে৷ এসব ঘটনার পর পুলিশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করলেও হামলা থামেনি৷ পাশাপাশি সরকারের কর্তাব্যক্তিদের এ সংক্রান্ত মন্তব্যও বিভ্রান্ত করেছে সাধারণ মানুষকে৷

বার্লিনে বসবাসরত প্রবাসীরা তাই তাঁদের ক্ষোভ, হতাশা প্রকাশ করতে নেমে এলেন রাজপথে৷ রবিবার বার্লিনের ঐতিহ্যবাহী ‘ব্রান্ডেনবুর্গ গেটের' সামনে ব্লগার, প্রকাশকদের হত্যার প্রতিবাদে এক মানববন্ধনে অংশ নেন তারা৷ সমাবেশের অন্যতম আয়োজক খালেদ নোমান নমী বলেন, ‘‘বাংলাদেশ সরকার বারবার বলছে ব্লগারদের খুনিদের বিচার করা হবে৷ কিন্তু কোনো বিচার হচ্ছে না৷ এমনটা চলতে পারে না৷''

বার্লিনে প্রচণ্ড ঠান্ডার মাঝেই তিন ঘণ্টা দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ জানান বেশ কয়েকজন প্রবাসী বাঙালি, তাঁদের সঙ্গে ছিলেন জার্মানরাও৷ সমাবেশে অংশ নেয়া জার্মান নাগরিক বারবারা দাসগুপ্ত পরিষ্কার বাংলায় বলেন, ‘‘বাংলাদেশে যা হচ্ছে, তা তো সারা বিশ্বেই হচ্ছে৷ কাজেই পৃথিবীতে যেখানেই অন্যায় হবে, তার বিরুদ্ধে দাঁড়াতে হবে৷''

বার্লিন প্রবাসী আব্দুল্লাহ আল-মামুনের হাতে ছিল ‘‘আল্লাহ'র নামে আর কোনো হত্যাকাণ্ড নয়'' লেখা প্লাকার্ডটি৷ তিনি বলেন, ‘‘একাত্তরের পরাশক্তি মুক্তমনাদের হত্যার মাধ্যমে দেশটাকে পঙ্গু করে দেয়ার ষড়যন্ত্র করছে৷ আমরা এই মানববন্ধনের মাধ্যমে জানাতে চাচ্ছি, মুক্তমনারা একা নন৷ আমরা তাঁদের সঙ্গে আছি৷''

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে একের পর এক ব্লগার হত্যা হলেও রাজপথে সেসবের প্রতিবাদে তেমন কোনো বড় সমাবেশ দেখা যায়নি৷ শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চ এবং বামপন্থি কিছু রাজনৈতিক দলের বাইরে বাংলাদেশের বড় রাজনৈতিক দলগুলো এ সব হত্যাকাণ্ডের বিপক্ষে শক্ত কোনো অবস্থান এখনো নেয়নি৷ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রতিবাদকারী মনে করেন, ‘‘বাংলাদেশে বর্তমানে ভিন্নমত প্রকাশের সুযোগ একেবারেই নেই৷ ফলে রাজপথে নামতে মানুষ ভয় পাচ্ছে৷''

তবে আরেক প্রতিবাদকারী নায়ারা নুয়েরী ইসলাম জানান, বাঙালিরা অসম্ভব রকমের উদার, প্রগতিশীল৷ তাই যারা ব্লগার, মুক্তমনাদের উপর হামলা করছে তারা সমাজের অত্যন্ত ছোট একটা অংশ৷ এতে বাঙালির উদার মানসিকতায় কোনো পরিবর্তন আসবে না বলেই মত তাঁর৷

বর্তমানে বাংলাদেশে ফেসবুক বন্ধ থাকার বিষয়ে মামুন আহসান খান বলেন, ‘‘ফেসবুক বন্ধ করে অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড বন্ধ করা যাবে বলে আমার মনে হয় না৷ এটা ইউরোপেও সম্ভব নয়, বাংলাদেশেও না৷''

উল্লেখ্য, এর আগে সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরোয়ার ও মেহেরুন রুনির হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতেও প্রতিবাদ কর্মসূচি করেছিলেন বার্লিন প্রবাসী বাঙালিরা৷ খুনিদের বিচার না হলে ভবিষ্যতেও এরক কর্মসূচির আয়োজন করা হবে বলে জানান খালেদ নোমান নমী৷

‘মুক্তমনাদের উপর হামলা করছে তারা সমাজের অত্যন্ত ছোট একটা অংশ৷’ – আপনার কী মত? জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়