1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

বাংলাদেশে বিনা খরচায় সফটওয়্যার দিচ্ছে মাইক্রোসফট

সফটওয়্যার পাইরেসির দিক দিয়ে বিশ্বের মাঝে বাংলাদেশের অবস্থান বেশ ওপরের দিকে৷ এ সংক্রান্ত সাম্প্রতিক বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত এমনটাই বলছে৷ এদিকে, পাইরেসি রোধে মাইক্রোসফট বাংলাদেশে বিনা খরচায় সফটওয়্যার বিতরণ শুরু করেছে৷

default

পাইরেসির সঙ্গে বাংলাদেশের নাম বেশ ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত৷ ২০০৯ সালেও এশিয়ার মধ্যে সফটওয়্যার পাইরেসি বা চুরি করা কম্পিউটার প্রোগ্রাম ব্যবহারে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল প্রথম৷ যদিও শুধু বাংলাদেশ নয়, এশিয়ার আরো কয়েকটি দেশ পাইরেসির সঙ্গে জড়িত, তারপরও বাংলাদেশে কম্পিউটার প্রোগ্রামের চুরি করা সংস্করণ ব্যবহার করার হার প্রায় ৯২ শতাংশ৷ ২০০৮ সালেও বাংলাদেশ ছিল পাইরেসির দিক থেকে বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে৷

বিনা পয়সায় সফটওয়্যার

সে যাই হোক, বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, পাইরেসির কারণেই হয়তো বাংলাদেশে তথ্য প্রযুক্তির বিকাশ ঘটেছে খুব দ্রুত৷ নয়তো পয়সা খরচ করে সফটওয়্যার কিনে কিংবা বিনা খরচায় পাওয়া যায় এমন সফটওয়্যার ব্যবহার করে কম্পিউটারের প্রসার এতটা সম্ভব ছিলনা৷

কিন্তু, আর কত ? এবার বোধহয় সময় হতে চললো আসল সফটওয়্যার ব্যবহারে মানুষকে আকৃষ্ট করার৷ তা নাহলে মাইক্রোসফট-এর মতো প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের বিনা খরচায় সফটওয়্যার দেবে কেন ? প্রশ্নের উত্তরে মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ডেভলপার সমন্বয়ক অমি আজাদ জানান, ‘‘আসলে সফটওয়্যার পাইরেসিটা আমাদের এখানে মেজর একটা আকার ধারণ করে আছে৷ এটা কম-বেশী সবাই জানে৷ আর আমরা দেখেছি যে, পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করতে গেলে যে সমস্যাগুলো হয়, শিক্ষার্থীরা তার পেছনেই অনেক সময় ব্যয় করে৷'' তিনি বলেন, ‘‘আমরা চাই শিক্ষার্থী যাতে লাইসেন্সড সফটওয়্যার ব্যবহার করে এবং পড়াশোনার পেছনে আরো মনোযোগী হয়৷''

Windows 7

উইন্ডোজ

তাই মাইক্রোসফট বিনা খরচায় উইন্ডোজ সেভেনসহ বিশেষ কিছু সফটওয়্যার ব্যবহারের সুযোগ দিতে ইতিমধ্যেই চুক্তি করেছে বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে৷ ফলে এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পাচ্ছেন ১০ গিগাবাইট আকারের ই-মেইল সেবা ব্যবহারের সুযোগ৷ এমনকি রয়েছে মাইক্রোসফটের ডেভেলপার, ডিজাইনার থেকে গেমিং সফটওয়্যার পর্যন্ত নানা রকম সফটওয়্যার বিনা খরচায় ব্যবহারের সুযোগ৷

বাদ পড়ছেন না ব্লগাররাও

বাংলাদেশে এখন বেশ গুরুত্ব পাচ্ছেন ব্লগাররা৷ বাংলা ভাষার ব্লগাররা পাচ্ছেন আন্তর্জাতিক পুরস্কার, অবদান রাখছেন সামাজিক উন্নয়নেও৷ তা সেই ব্লগাররাই বা বাদ যাবেন কেন বিনা পয়সার সফটওয়্যার-এর তালিকা থেকে ? মাইক্রোসফট জানাচ্ছে, ইতিমধ্যেই জনপ্রিয় বাংলা ব্লগ সাইট সামহোয়্যারইনব্লগ-এর সঙ্গে চুক্তি করেছেন তারা৷ যার আওতায় সামহোয়্যার-এর শিক্ষার্থী ব্লগাররা বিনা পয়সায় মাইক্রোসফটের সুযোগ সুবিধা পাবেন৷ এই প্রসঙ্গে সামহোয়্যারইনব্লগ ডট নেট-এর প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দা গুলশান ফেরদৌস জানা বলেন, ‘‘আপাতত প্রথম পর্যায়ে পাঁচ হাজার শিক্ষার্থী ব্লগার এই সুবিধা পাবেন৷''

কিন্তু শুধুই কি সামহোয়্যারইনব্লগ-এর শিক্ষার্থীরাই পাবেন এই সুবিধা ? অন্য ব্লগারদের কি হবে ? বিশেষ করে বর্তমানে তো আরো কয়েকটি কমিউনিটি ব্লগ সাইট রয়েছে৷ তাহলে ! অমি আজাদ জানান, ‘‘আমরা সামহোয়্যার-এর সঙ্গে শুরু করেছি৷ কিন্তু আমরা জানি যে, আরো ব্লগসাইট আছে বাংলাদেশে৷ আমরা পর্যায়ক্রমে সবার সঙ্গেই এই প্রোগ্রাম চালু করবো ভবিষ্যতে৷''

কম পয়সায় সফটওয়্যার

তবে বিনা খরচায় সফটওয়্যার প্রদানের পাশাপাশি পাইরেসি রোধে, সাধারণ মানুষের কাছে কম খরচে প্রযুক্তি সেবা পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে মাইক্রোসফট৷ অমি আজাদ এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘পাইরেসি রোধে আমরা বিগত বছরগুলো থেকে বিশেষ বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছি৷ এসবের আওতায় সাধারণ ব্যবহারকারীদেরকে আমরা খুব কম খরচে সফটওয়্যার দেবার চেষ্টা করছি৷''

ইদানিং বিদেশি সংস্থা ছাড়াও বাংলাদেশি ডেভেলপারদের তৈরি সফটওয়্যারের পাইরেসি রোধেও কর্মকান্ড শুরু হয়েছে বাংলাদেশে৷ দেশটির সরকার পাইরেসি রোধে বিভিন্ন আইনকানুনের প্রয়োগ শুরু করছে৷ তবে বাংলাদেশে পাইরেসির মাত্রা সহনশীল পর্যায়ে আনতে আরো কয়েক বছর সময় লাগবে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়