1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাংলাদেশে বিচার বহির্ভূত হত্যা বন্ধের আহ্বান

বাংলাদেশে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বা এইচআরডাব্লিউ৷ তারা মনে করে, সরকারের উচিত এসব ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করা৷

এইচআরডাব্লিউর এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস এক বিবৃতিতে বলেন, ‘‘বাংলাদেশে বিরোধী দলের সদস্যদের অনুমান সাপেক্ষে ‘ক্রসফায়ারে' হত্যাকাণ্ডের এক ভীতিজনক ধারা আমরা লক্ষ্য করছি৷ বাংলাদেশ সরকারের উচিত নিরাপত্তা বাহিনীগুলোকে যথাযথভাবে নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি নিশ্চিত করা এবং ক্রসফায়ারে নিহতের ঘটনায় একটি নিরপেক্ষ ও বিশ্বাসযোগ্য তদন্তের নির্দেশ দেয়া৷'' তিনি বলেন, ‘‘সরকারের উচিত নিরাপত্তা হেফাজতে আটক সব ব্যক্তির নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে প্রকাশ্যে নির্দেশ দেয়া৷''

এইচআরডব্লিউর বিবৃতিতে ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের আগে ও পরের কিছু ঘটনা তুলে ধরা হয়েছে৷ সাক্ষাৎকার নেয়া হয়েছে ঘটনার যারা শিকার তাঁদের ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের৷ একইসঙ্গে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের শিকার জামায়াত ও বিএনপির কয়েকজন সদস্যদের নাম ও পরিচয় তুলে ধরা হয়েছে৷

বিবৃতিতে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামালকে উদ্ধৃত করে বলা হয়, বাংলাদেশে নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক সহিংসতায় ১৫০ জন নিহত হয়েছেন৷ আর সহিংসতা প্রতিরোধে যৌথ বাহিনীর সদস্যদের নামানো হয়েছে৷ যারা সহিংসতায় জড়িত তাদের সন্ত্রাসী উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তাদের দমন করা হবে৷

ব্র্যাড অ্যাডামস বলেন, ‘‘র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন, পুলিশ ও বিজিবির সমন্বয়ে গঠিত যৌথ বাহিনী বিরোধী দলের সমর্থকদের গ্রেফতার অব্যাহত রেখেছে৷ গ্রেফতার হওয়া নেতা-কর্মীদের কেউ কেউ ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে ও পরে সহিংসতায় জড়িত ছিলেন৷ আর নিারপত্তা বাহিনী বলছে, ক্রসফায়ারে নিহতের ঘটনা ঘটেছে৷''

এদিকে বাংলাদেশের মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পরিচালক নূর খান ডয়চে ভেলেকে জানান, বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সময়ে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বেড়ে গেছে৷ তাঁদের হিসেবে, চলতি জানুয়ারি মাসে এপর্যন্ত ১৪ জন ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছেন, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়৷ তিনি দাবি করেন সরকারের উচিত অচিরেই একটি স্বাধীন কমিশন গঠন করে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্তের ব্যবস্থা করা৷ এই কমিশন হতে হবে স্থায়ী৷ তিনি বলেন, বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডে যারা জড়িত বলে প্রমাণ পাওয়া যাবে, তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে৷ আইন ও সালিশ কেন্দ্র এক বিবৃতিতে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বন্ধের দাবি জানিয়েছে বলেও জানান তিনি৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়