1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাংলাদেশে ‘নিখোঁজ' হওয়ার ঘটনা তদন্তের তাগিদ

বিএনপি নেতা সালাহ উদ্দিন আহমেদের ‘নিখোঁজ' হওয়ার ঘটনা নিরপেক্ষ ও কার্যকরভাবে তদন্তের জন্য বাংলাদেশ সরকারকে তাগিদ দিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ৷ এ ঘটনার তদন্তে সরকারের ব্যর্থতায় উদ্বিগ্ন তারা৷

গত ১০ই মার্চ বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ উত্তরার একটি বাসা থেকে ‘নিখোঁজ' হন৷ তাঁর স্ত্রী হাসিনা আহমেদের দাবি, তাঁকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷

মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বা এইচআরডাব্লিউ-র এশিয়া বিভাগের নির্বাহী পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস এক বিবৃতিতে বলেন, ‘‘বিরোধী দলের সদস্যের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা তদন্তে ব্যর্থ হওয়ার ইতিহাস আছে বাংলাদেশের সরকারের৷ তাই সালাহ উদ্দিন আহমেদের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনাটি অবিলম্বে স্বাধীন ও নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করা প্রয়োজন৷''

এইচআরডাব্লিউ বলছে, প্রত্যক্ষদর্শীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ১০ই মার্চ সালাহ উদ্দিন আহমেদকে সর্বশেষ দেখা যায়৷ ঐ দিন রাতে ঢাকার উত্তরার একটি বাসা থেকে ডিবি পরিচয় দিয়ে কিছু লোক তাঁকে উঠিয়ে নিয়ে যায়৷ পরিবার এবং তাঁর দলের পক্ষ থেকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হলেও, পুলিশ এবং ব়্যাব উভয় বাহিনীই সেই অভিযোগ অস্বীকার করে৷

Rapid Action Battalion (RAB) in Bangladesh

নারায়ণগঞ্জে সাতজনকে হত্যার তদন্তে ব়্যাব-এর সংশ্লিষ্টতা পাওয়াও যায়

সংস্থাটি বলছে, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এবং অন্যান্য মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশে ২০০৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে ‘নিখোঁজ' হওয়ার ঘটনাগুলো তালিকাভুক্ত করেছে৷ ২০১২ সালে নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর ভাগ্যে কী ঘটেছে, তা জানাতেও ব্যর্থ হয়েছে কর্তৃপক্ষ৷

সংস্থাটির কথায়, ‘‘প্রথমে অস্বীকার করলেও ২০১৪ সালের মে মাসে ব্যাপক সমালোচনার মুখে নারায়ণগঞ্জে সাতজনকে হত্যার সঙ্গে ব়্যাব-এর সম্পৃক্ততার অভিযোগ তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়৷ আর সেই তদন্তে ঘটনাটির সঙ্গে ব়্যাব-এর সংশ্লিষ্টতা পাওয়াও যায়৷''

এইচআরডাব্লিউ বলছে, বাংলাদেশে এ বছরের শুরু থেকেই চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে বিভিন্ন সহিংসতায় ১৫০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন৷ আহত হয়েছেন আরো কয়েকশ'৷ সারাদেশে ধরপাকড় চালিয়ে বিরোধী দলের হাজার হাজার সদস্যকে আটক করেছে সরকার৷

গত বছরের জানুয়ারি মাসের সাধারণ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীনদের সঙ্গে বিরোধীদের দীর্ঘদিন ধরে মতানৈক্যের কারণেই বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে বলে উল্লেখ করেছে এইচআরডাব্লিউ৷

তারা বলছে, নির্বাচনের আগে ও পরে বাংলাদেশে কয়েকশ' মানুষ নিহত অথবা নিখোঁজ হয়েছেন৷

সংগঠনটির এশিয়া বিভাগের নির্বাহী পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস বলেন, ‘‘অনেকে নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা স্বীকার করলেও সরকারের পক্ষ থেকে এমন অনেক ঘটনারই যথার্থ তদন্তের প্রমাণ নেই৷ এমনকি এ সব ঘটনায় দায়ী নিরাপত্তা বাহিনীর কোনো সদস্যকে আইনের আওতায় আনা হয়নি৷''



ব্র্যাড অ্যাডামসের মতে, ‘‘সালাহ উদ্দিন আহমেদের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনাটিও এই নিয়মের একটি অংশ হয়ে উঠেছে৷''

তাই বাংলাদেশে চলমান হরতাল-অবরোধের মাঝে বিএনপি নেতা সালাহ উদ্দিন আহমেদের ‘নিখোঁজ' হওয়ার প্রেক্ষাপটে, অতীতের ঘটনাগুলোসহ সব ধরণের নিখোঁজের ঘটনা তদন্ত করার তাগিদ দিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ৷

এদিকে শুক্রবার ঢাকায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান সালাহ উদ্দিন আহমেদের নিখোঁজের ঘটনা তদন্তে আন্তর্জাতিক সহায়তার দাবি জানিয়েছেন৷ তিনি জানান, গত ১০ দিনেও তাঁর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি৷ সরকারের মন্ত্রী এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এ নিয়ে নানারকম হাস্যকর কথা বলছেন৷ তাই তাঁকে উদ্ধারে এফবিআই অথবা ইন্টারপোলের সহায়তা নেয়ার দাবি জানান তিনি৷

সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘‘বর্তমান সরকারের আমলেই ইলিয়াস আলীকে গুম করা হয়৷ তাঁকেও আর খুঁজে পাওয়া যায়নি৷ আর এখন সালাহ উদ্দিনকে গুম করা হয়েছে৷ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাঁকে খুঁজে বের করতে পারছে না৷ তাঁকে খুঁজে বের না করলে এর দায় প্রধানমন্ত্রীকেই নিতে হবে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়