1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাংলাদেশে ধর্ষণের হার অনুমান ছাড়িয়ে গেছে!

জাতিসংঘের এক জরিপ নিয়ে আলোচনা চলছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে৷ জরিপের ফলাফল বলছে, এশিয়ায় প্রতি চারজন পুরুষের একজন নাকি ধর্ষণের মতো ঘৃণ্য অপরাধ করেছেন!

বাংলা ব্লগার আইরিন সুলতানা ধর্ষণের এই খবরকে মনে করছেন, ‘‘উদ্বেগজনক৷'' ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ‘‘বাংলাদেশসহ ছয়টি এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশের পুরুষদের প্রতি ১০ জনের মধ্যে একজন ধর্ষক৷ ...প্রতিবেদনের শিরোনাম এবং পরিসংখ্যানের এইরকম ফলাফল উদ্বেগজনক৷ সমাজ পুরুষদের প্রতি আঙুল না তুললেও, পরিসংখ্যান আঙুল তুলে বসল অবশেষে৷''

আইরিন লিখেছেন, ‘‘নিজেকে এখন নারী হিসেবে নয়, একজন পুরুষ হিসেবে চিন্তা করে নিজের প্রতিক্রিয়া বোঝার চেষ্টা করছি৷ আমি একজন পুরুষ হলে, এই প্রতিবেদন কি আমার জন্য বিব্রতকর? অবমাননাকর?? লজ্জাজনক???''

বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম লিখেছে, ‘‘ল্যানসেট গ্লোবাল হেলথ' প্রকাশিত ওই জরিপে দেখা যায়, নারীরা সাধারণত তাদের ঘনিষ্ঠজন বা পুরুষ সঙ্গীদের দ্বারাই ধর্ষণের শিকার হয় বেশি৷ বাংলাদেশ নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতাপ্রবণ দেশ না হলেও এ দেশে (কোনো ধরনের সম্পর্ক নেই এমন নারী) ধর্ষণের হার অনুমান ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা৷''

বলাবাহুল্য, এমন এক সময় এই জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হলো, যখন ভারতে একটি আলোচিত গণধর্ষণের ঘটনায় চার ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করেছেন নতুন দিল্লির আদালত৷ তবে বুধবার অভিযুক্তদের শাস্তি ঘোষণার কথা থাকলেও তা পেছানো হয়েছে৷ সাংবাদিক সুপ্রীতি ধর ফেসবুকে এই বিষয়ে লিখেছেন, ‘‘দিল্লি ধর্ষণ মামলার চূড়ান্ত রায় আবারও ঝুলিয়ে দিল বিচারকরা... শুক্রবার ঘোষণা করা হবে৷''

এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন, ধর্ষণের প্রতিবাদে বাংলাদেশের ব্লগাররা বেশ সক্রিয়৷ বিভিন্ন সময় ব্লগে এই নিয়ে দেখা গেছে নানাবিধ আলোচনা৷ শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রী ধর্ষণের সাম্প্রতিক কয়েকটি ঘটনা নিয়ে ব্লগার মাসুম বিল্লাহ লিখেছেন, ‘‘সিরিয়াল ধর্ষক পরিমল, কুষ্টিয়ার হেলাল উদ্দিন পান্নার পর এবার দিনাজপুরে গ্রেপ্তার হয়েছেন শিক্ষক তসলিম উদ্দিন৷ প্রাইভেট ও কোচিং করানোর সুযোগে প্রলোভন ও ভয় ভীতি দেখিয়ে ছাত্রীদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক তৈরির অভিযোগ আছে উপরে উল্লেখিত এই সকল শিক্ষকদের বিরুদ্ধে৷''

সামহয়্যার ইন ব্লগে মাসুম লিখেছেন, ‘‘...সবশেষে বলতে চাই, এখনও সময় আছে আমাদের হাতে, আর যেন কোন মেয়েকে এভাবে তার শিক্ষকের কাছে এভাবে নষ্ট হতে না হয়৷''

সংকলন: আরাফাতুল ইসলাম
সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

প্রিয় পাঠক, জরিপের এই ফলাফল দেখে আপনার প্রতিক্রিয়া কি? মন্তব্য করতে ক্লিক করুন এখানে

নির্বাচিত প্রতিবেদন