1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বাংলাদেশে জঙ্গি অর্থায়নের বিশাল নেটওয়ার্ক

ঢাকায় জঙ্গি অর্থায়ন প্রতিরোধ বিষযক এক আঞ্চলিক সেমিনারে মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান মোজেনা বলেছেন, অর্থই জঙ্গি ও সন্ত্রাসের অক্সিজেন৷

এদিকে, নিরাপত্তা বিশ্লেষক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুর রশিদ (অব.) ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের অর্থায়নে শক্ত নেটওয়ার্ক গড়ে উঠেছে৷

ঢাকায় তিন দিনের এই সম্মেলনে মর্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, জনগণকে শান্তিতে বসবাসের নিশ্চয়তা দিতে হলে জঙ্গি এবং সন্ত্রাসবাদে অর্থায়নের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে৷ কারণ, এটা বন্ধ করা না গেলে জঙ্গিবাদ বন্ধ করা কঠিন হবে৷ তাই সবাইকে একত্রভাবে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জিততে হবে৷

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুর রশিদ (অব.) ডয়চে ভেলেকে বলেন, মার্কিন রাষ্ট্রদূত জঙ্গি অর্থায়ন নিয়ে ঠিকই বলেছেন৷ বাংলাদেশে জঙ্গি অর্থায়নের নেটওয়ার্ক বেশ শক্ত৷ তিনি জানান, এই অর্থ আসে ইসলামি চ্যারিটি, চাঁদা এবং ছোট ও বড় ব্যবসা থেকে৷ এদের অর্থ আছে বলেই একটি দমন করলে আরেকটি জঙ্গি সংগঠন গজিয়ে ওঠে৷ সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে নতুন নতুন জঙ্গি সংগঠনের আত্মপ্রকাশ তারই প্রমাণ৷

তিনি বলেন, এই জঙ্গি অর্থায়নের পিছনে ইসলামের নামে প্রকাশ্য রাজনৈতিক দলও জড়িত৷ তাদের বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আছে৷ একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে এসব ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের আয়ের একটি অংশ জঙ্গি তত্‍পরতায় ব্যবহৃত হয়৷ তাদের একটি ব্যাংকের বিরুদ্ধেও জঙ্গি অর্থায়নের অভিযোগ আছে৷

আব্দুর রশিদ বলেন, বাংলাদেশে জঙ্গি অর্থায়ন প্রতিরোধে দেশে জঙ্গি অর্থায়ন রিরোধী এবং মানিলন্ডারিং বিরোধী আইন আছে৷ কিন্তু এই আইনের ফাঁক-ফোকর দিয়েই জঙ্গি অর্থায়ন অব্যাহত আছে৷ তাই প্রয়োজন আইনের কঠোর প্রয়োগ এবং মনিটরিং জোরদার করা৷ বাংলাদেশে জনবল এবং দক্ষতার অভাব আছে বলেও মনে করেন তিনি৷ তাঁর মতে, বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে এক হয়ে কাজ করতে হবে৷ তাদের অভিজ্ঞতা, দক্ষতা এবং তথ্য কাজে লাগাতে হবে৷ কারণ বাংলাদেশের অনেক জঙ্গি সংগঠনেরই আন্তর্জাতিক যোগাযোগ আছে৷

তিনি বলেন, বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সময় জঙ্গি তত্‍পরতা আবার বেড়ে যাচ্ছে৷ তারা নানা ইস্যু নিয়ে মাঠে নামার চেষ্টা করছে৷ তাদের প্রকাশ্য সংগঠনও আছে বলে মনে করেন তিনি৷ তাই সরকারকে এখনই কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে৷ আর জঙ্গি বিরোধী জন-সচেতনতার পাশাপাশি গড়ে তুলতে হবে রাজনৈতিক ঐক্য৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়