1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

বাংলাদেশে একদিনে ১১ সন্দেহভাজন ‘জঙ্গি’ নিহত

বাংলাদেশে জঙ্গিবিরোধী অভিযানে একদিনে নিহতের ঘটনায় নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে৷ শনিবার গাজীপুর এবং টাঙ্গাইলে তিনটি কথিত আস্তানায় পুলিশ ও র‌্যাবের পৃথক অভিযানে মোট ১১ সন্দেহভাজন ‘জঙ্গি’ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

পুলিশ এখনো নিহতদের সবার পরিচয় নিশ্চিত হতে পারেনি৷ তবে গাজীপুরের পাতারটেক এলাকায় উপস্থিত হয়ে বিকেলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘‘গুলশান হামলার মাস্টারমাইন্ড তামিম চৌধুরী নিহত হওয়ার পর আকাশের নেতৃত্বেই নব্য জেএমবি সংঘবদ্ধ হওয়ার চেষ্টা করেছিল৷ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালানো হয়৷ অভিযানের শুরুতে জঙ্গিদের আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়৷ কিন্তু তা না করে তারা উল্টো পুলিশের ওপর হামলা চালায়৷ পুলিশও আত্মরক্ষায় গুলি চালায়৷ পরে ভবনের দ্বিতীয় তলায় সাত জঙ্গির মরদেহ পাওয়া যায়৷''

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘‘অভিযান শেষে তিনটি অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে৷ পাওয়া গেছে কয়েকটি চাপাতি ও একটি গ্যাস সিলিন্ডার৷ গোলাগুলির সময় ১৪টি গ্রেনেড বিস্ফোরিত হয়েছে৷ এ সময় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের একজন সদস্য আহত হয়৷ তাঁর হাতে গুলি লেগেছে৷ তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে৷''

অডিও শুনুন 02:07

‘‘এর আগে একদিনে এত নিহতের ঘটনা ঘটেনি’’

তিনি বলেন, ‘‘এছাড়া গাজীপুরের হাড়িনালায় এবং টাঙ্গাইলের কাগমারায় দুটি বাড়িতে অভিযানে আরো চার জঙ্গি নিহত হয়েছে৷ তিনটি আস্তানায় অভিযানে মোট নিহত হয়েছে ১১ জন৷ র‌্যাব ওই দু'টি অভিযান চালায়৷''

অভিযানের সময় গাজীপুরের পাতারটেক এলকায় উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক আমানুর রহমান রনি৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘গাজীপুরের দু'টি আস্তানা কাছাকাছি৷ অভিযানের সময় গোলাগুলির শব্দ শোনা গেছে৷ দু'টি আস্তানায়ই অভিযানের পর মোট ৯টি লাশ পড়েছিল৷ তাদের সবার পরিচয় পুলিশ বিকেল পর্যন্ত জানাতে পারেনি৷ তবে তারা বলছে নিহতদের মধ্যে নব্য জেএমবি প্রধান শহিদুল ইসলাম আকাশ রয়েছে৷ সে গুলশান হালার পর নতুন করে জেএমবিকে সংগঠিত করছিল৷''

আমানুর রহমান জানান, দু'এক মাস আগে ওই দু'টি বাড়ি ভাড়া নিয়েছিল তারা৷

অন্যদিকে টাঙ্গাইলে সন্দেহভাজন দুই ‘জঙ্গি' নিহত হওয়ার পাশাপাশি র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান৷ তিনি বলেন, ‘‘নিহতদের পরিচয় এখনও নিশ্চিত হওয়া সম্ভব হয়নি৷ এদের একজনের বয়স ২৫ ও অপরজনের ২০ বছর হবে বলে ধারণা করছি৷ গাজীপুরে নিহত ৯ জনের বয়সও ২০ -২৫ বছরের মধ্যে৷''

অডিও শুনুন 04:31

‘‘দু'এক মাস আগে ওই দু'টি বাড়ি ভাড়া নিয়েছিল তারা’’

এদিকে, জঙ্গিবিষয়ক গবেষক এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক নূর খান ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, বাংলাদেশে একদিনে জঙ্গিবিরোধী অভিযানে ১১ জন নিহতের ঘটনা একটি রেকর্ড৷ এর আগে একদিনে এত নিহতের ঘটনা ঘটেনি৷

তিনি বলেন, ‘‘তবে এখনো নিহতদের সবার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷ সেটা জানা গেলে কতজন জঙ্গি তা বোঝা যাবে৷ তবে আমার কাছে মনে হয়েছে তিনটিই জঙ্গি আসাস্তানা ছিল৷'' 

উল্লেখ্য, গুলশান হামলার পর কল্যাণপুরে ৯ জন এবং তারপর নারায়ণগঞ্জে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে তিনজন নিহত হয়৷ আর ঢাকার আজিমপুরে নিহত হয় একজন৷ সর্বশেষ শনিবার একই দিনে নিহত হয়েছে ১১ জন৷ আর গুলশানের হলি আর্টিজানে অভিযানে নিহত হয়েছিল ৯ জন৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো জানিয়েছেন, গুলশান হামলার আরেক ‘মাস্টারমাইন্ড' নব্য জেএমবির মেজর জিয়া পুলিশের নজরদারির মধ্যেই আছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়