1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

বাংলাদেশের ৮৮ ভাগ তরুণ সুখী

বিশ্বকাপের জ্বরে কাঁপছে যখন সারাবিশ্ব, তখন গণমাধ্যমেও সবচেয়ে বেশি জায়গা জুড়ে এখন বিশ্বকাপ ফুটবলের খবর৷ তারপরেও দুর্ঘটনা, মামলা, নির্যাতন, নির্বাচনের খবর বিশেষ জায়গা করে নিয়েছে আজকে ঢাকা থেকে প্রকাশিত পত্র-পত্রিকাগুলোতে৷

default

ফাইল ছবি

দেশের ৮৮ ভাগ তরুণ নিজেকে সুখী ভাবে৷ ৬০ ভাগ তরুণ মনে করে, আগামী ৫ বছরে বাংলাদেশে দুর্নীতি আরো বাড়বে৷ দৈনিক ইত্তেফাক, ডেইলি স্টার, যায়যায়দিন, জনকণ্ঠ, প্রথম আলো, কালের কণ্ঠসহ প্রায় সব পত্রিকার প্রথম পাতায় উঠে এসেছে তরুণ সমাজকে নিয়ে প্রকাশিত এই জরিপের খবরটি৷ এতে আরো বলা হয়েছে, ৪১ ভাগ তরুণ দেশে চাকরির ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন৷ তারা তাদের সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর জন্য বিদেশে চলে যেতে চায়৷ দেশের ৭৪ ভাগ তরুণই রাজনীতিবিমুখ৷ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বর্তমান তরুণ প্রজন্মের রোল মডেল৷ 'বাংলাদেশ : আগামী প্রজন্ম' শিরোনামে বৃটিশ কাউন্সিলের ১৫ থেকে ৩০ বছর বয়সি যুবকদের ওপর পরিচালিত জরিপ প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে৷ শনিবার রাজধানীর শেরাটন হোটেলে জরিপ প্রতিবেদনটির মোড়ক উন্মোচন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি৷

রাজধানীতে বাসের ধাক্কায় দম্পতি নিহত

চলন্ত মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিয়ে ঘাতক বাস কেড়ে নিল বাবা-মায়ের প্রাণ, সেই সঙ্গে মায়ের গর্ভে থাকা অনাগত শিশুকেও৷ শনিবার ঢাকার মগবাজারে এই হৃদয়বিদারক দুর্ঘটনায় এক নিমিষে নিঃশেষ হয়ে গেছে এক সুখী দম্পতির জীবন ও স্বপ্ন৷ দৈনিক সমকাল, যুগান্তর, ডেইলি স্টার, কালের কণ্ঠ, যায়যায়দিন, নিউএইজসহ প্রায় সব পত্রিকাতেই এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার খবরটি বিশেষভাবে জায়গা করে নিয়েছে৷ খবরে বলা হয়েছে, প্রতিদিন মোটরসাইকেলে চড়েই অফিসে যেতেন স্বামী-স্ত্রী৷ ফিরতেনও একসঙ্গে৷ শনিবার সকালে মগবাজার রেলক্রসিং পার হতেই পেছন থেকে ছুটে আসা বেপরোয়া বাসের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই মারা যান ৩৫ বছরের তরতাজা যুবক সাইফুল হুদা শাহীন৷ গুরুতর আহত হন তাঁর ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী সোহেলী আক্তার শম্পা৷ হাসপাতালের শয্যায় কয়েক ঘণ্টা মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে মারা যান শম্পাও, সঙ্গে অনাগত শিশুটিও৷

চট্টগ্রামে নির্বাচন উপলক্ষ্যে মাঠে নামছে সেনাবাহিনী

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষ্যে সোমবার মাঠে নামছে সেনাবাহিনী৷ নির্বাচনী প্রচার প্রচারণার নানা খবরের বাইরে এটি স্থান পেয়েছে দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার অনলাইন সংস্করণে৷ এতে বলা হয়েছে, ছয়টি অস্থায়ী ছাউনিতে ছয় কোম্পানি সেনাসদস্য অবস্থানের পাশাপাশি নির্বাচন পর্যন্ত তারা সার্বক্ষণিক রাস্তায় টহল দেবে৷ এছাড়া কর্ণফুলী নদীতে কোস্টগার্ডের টহল শুরু হবে নির্বাচনের আগের দিন, অর্থাৎ ১৬ জুন থেকে৷ এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন দৈনিক যায়যায়দিনকে বলেন, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য যা যা করা দরকার, তার সবই তাঁরা করেছেন৷ নির্বাচনে যাতে কোনো প্রার্থী অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি বা আচরণবিধি ভঙ্গ করতে না পারে, সে জন্য সার্বক্ষণিক ভিডিও ধারণের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে৷ কমিশন সূত্রে জানা যায়, নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রায় ২২ হাজার সদস্য মোতায়েন করা হচ্ছে৷

গ্রন্থনা: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সংশ্লিষ্ট বিষয়