1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ব়্যাব কর্মকর্তারা গ্রেপ্তার না হওয়ায় বিস্ময়

নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত তিনজন ব়্যাব কর্মকর্তাকে এখনো গ্রেপ্তার না করায় কিংবা করতে না পারায় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম, যেমন ব্লগ আর ফেসবুকে অনেকে হতাশা ব্যক্ত করেছেন৷ কেউ কেউ প্রকাশ করেছেন বিস্ময়৷

শওগাত আলী সাগর ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘খুনের অভিযোগে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে সরকারকে, রাষ্ট্রকে কত প্রক্রিয়া করতে হয়, কতো নিয়ম কানুন মানতে হয়! রাস্তায় গাড়ি ভাঙার মামলায় কোনো রাজনীতিকদের গ্রেফতারে কিন্তু মুহূর্তও ভাবতে হয় না, প্রক্রিয়ারও প্রয়োজন হয় না৷ হায়রে রাষ্ট্র! হায়রে সরকার!''

সামহয়্যার ইন ব্লগে সুরেশ কুমার দাশ লিখেছেন, ‘‘খুন হওয়া নজরুলের শ্বশুর শহীদ চেয়ারম্যান হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে না বলার আগে পর্যন্ত দেশের মানুষ অন্ধকারে ছিল৷ আসলে একটা প্রহসন তৈরি করার চেষ্টা হয়েছিল, যা সম্ভব হয়নি শহীদ চেয়ারম্যানের কারণে৷''

আসামিদের ধরতে তিনি প্রশাসনের মধ্যে ব্যাপক দ্বিধাদ্বন্দ্ব লক্ষ্য করছেন – এ কথা জানিয়ে সুরেশ লিখেছেন, ‘‘এ কারণে একটি প্রশ্ন বার বার মনে হচ্ছে, আসামিদের ধরা প্রশাসনের জন্য কি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে৷

Rapid Action Battalion RAB Spezialeinheit Militär Dhaka Bangladesh

‘‘এসব অফিসার এবং তাদের মূল সংস্থা রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বে নয়’’

চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াতেই পারে৷ তারা তিন জনই সেনা ও বিমান বাহিনীর অফিসার৷''

প্রধানমন্ত্রী ও হাইকোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও এমন একটি চাঞ্চল্যকর ইস্যুতে এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে না পারায় বিস্ময় প্রকাশ করে সুরেশ লিখেছেন, ‘‘একটি বিষয় মনে রাখতে হবে, এসব অফিসার এবং তাদের মূল সংস্থা রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বে নয়৷ যদি কোনো সংস্থার কারণে অপরাধীদের ছেড়ে দেয়া হয় কিংবা কোনো ধরনের সুযোগ দেয়া হয় তাহলে সেটা রাষ্ট্রের জন্য অপমানজনক ও অসম্মানের৷ তাদের যে ধরতে এতদিন দেরি করা হচ্ছে এতেই জনগণ অনিরাপদ ও রাষ্ট্রের দায়িত্বজ্ঞান সম্পর্কে সন্দিহান হয়ে পড়ছে৷''

একই ব্লগে শামিম ফেরদৌস রাজিব বিষয়টি নিয়ে একটি ব্যঙ্গ রচনা করেছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘সরকার আন্তরিক হলেও ‘আইনি প্রক্রিয়া' শেষ হচ্ছে না বলেই মন্ত্রী মায়ার জামাই ব়্যাব কর্মকর্তাসহ অন্য খুনিদের গ্রেফতার করা যাচ্ছে না৷ তাছাড়া এই একই কারণে সীমান্তে রেড এলার্ট জারি করতে ‘মাত্র' চারদিন সময় লেগেছে৷ নূর হোসেন এর ভিতরে ভারত ভ্রমণে গেলে সরকারের কিইবা করার আছে!''

এদিকে, রুহুল আমিন মনে করছেন সাত খুনের বিচার হবে, এটা আশা করা বোকামি ছাড়া আর কিছু না৷ কারণ তাঁর ধারণা, ‘‘...রফা-দফা একটা হয়ে যাবে নিজেদের মধ্যে, তা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মধ্যে হোক আর রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যে হোক৷ তারপর মিডিয়াকে অন্য দিকে টার্ন করার জন্য তৈরি করা হবে অভিজ্ঞ আওয়ামী হাতে চিরাচরিত চিত্রনাট্য৷ সাতখুনের বিচার ফাইলবন্দি হয়ে যাবে চিরতরের জন্য৷'' ফেসবুকে তিনি এসব মন্তব্য করেছেন৷

সংকলন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন