1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘ব়্যাব কর্মকর্তাদের গ্রেপ্তারে আইনি বাধা নেই’

হাইকোর্টের নির্দেশের পর গত দু'দিনেও গ্রেপ্তার হননি নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত তিন র‌্যাব কর্মকর্তা৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় আইনি প্রক্রিয়া শুরুর কথা বললেও তা কার্যকর হতে কত সময় লাগবে তা স্পষ্ট করে বলছে না৷

নারায়ণগঞ্জের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম এবং আইনজীবী চন্দন সরকারসহ সাতজনকে অপহরণ ও হত্যার পর, র‌্যাব ১১-এর অধিনায়ক এবং অপর দুই কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার এবং বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠায় সোনা ও নৌ-বাহিনী৷

কিন্তু এরপর তাঁদের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ ওঠে যে, এই তিন কর্মকর্তা ছয় কোটি টাকা ঘুসের বিনময়ে সাতজনকে অপহরণ এবং হত্যা করেছেন৷ তারপরও পুলিশ তাঁদের গ্রেপ্তার না করায় হাইকোর্ট গত রবিবার র‌্যাবের এই তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেয়৷ আদালত এও বলে যে, যদি তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো মামলা না থাকে তাহলেও তাঁদের ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার করতে হবে৷

বিশ্লেষকরাও বলছেন যে, ঐ তিন কর্মকর্তা সেনা ও নৌ-বাহিনীর হলেও আইনে তাঁদের গ্রেপ্তারে কোনো বাধা নেই৷ এছাড়া দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশের পর, এ নিয়ে কোনো কথা থাকতে পারে না৷

অথচ এরপর দু'দিন পার হয়ে গেলেও তিন কর্মকর্তা এখনও গ্রেপ্তার হননি৷ যদিও স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল সোমবার বলেন যে, ইতিমধ্যেই তাঁদের গ্রেপ্তার করার জন্য আইনি প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে৷ তাঁরা যে কোনো সময় আটক হবেন এবং এ মুহূর্তে তাঁরা নজরদারিতে রয়েছেন৷

Rapid Action Battalion RAB Spezialeinheit Militär Dhaka Bangladesh

তিন কর্মকর্তা এখনো গ্রেপ্তার হননি

ওদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের পর ২৪ ঘণ্টা কেটে গেছে৷ তিনি নতুন করে কিছু না বললেও মঙ্গলবার বিকেলে যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘‘হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়ন হবে৷ র‌্যাবের তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করা হবে, প্রক্রিয়া চলছে৷'' তবে গ্রেপ্তার করতে কতদিন লাগবে তা জানাতে পারেননি যোগাযোগমন্ত্রী৷

এদিকে নরায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার খন্দকার মহিদউদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন, ‘‘আমরা তদন্ত কর্মকর্তার মাধ্যমে হাইকোর্টের আদেশসহ প্রতিরক্ষা সচিবের কাছে লিখিতভাবে ঐ তিন কর্মকর্তাকে পুলিশ হেফাজতে দেয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি এবং এখন অপেক্ষায় আছি৷''

অন্যদিকে নিহত ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুলের শ্বশুর শহিদুল ইসলাম ডয়চে ভেলের কাছে অভিযোগ করেন, ‘‘র‌্যাব এখন নতুন কোনো নাটক করতে চাইছে৷ আর সে কারণেই আদালতের নির্দেশের পরও তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না৷''

এছাড়া, মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পরিচালক নূর খান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘তিনজন র‌্যাব কর্মকর্তাকে আদালতের নির্দেশের আগেই গ্রেপ্তার করা উচিত ছিল৷ কারণ প্রাথমিকভাবে তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগের ভিত্তি প্রতিষ্ঠিত৷

Rapid Action Battalion RAB Spezialeinheit Militär Dhaka Bangladesh

সাতজনকে অপহরণ ও হত্যার পর, র‌্যাব ১১-এর তিন কর্মকর্তাকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠায় সোনা ও নৌ-বাহিনী

অথচ হাইকোর্টের আদেশের পরও তাঁদের এখনো গ্রেপ্তার করা হয়নি৷ এটা আইনের শাসনের কথা হতে পারে না৷'' তিনি বলেন, ‘‘গ্রেপ্তারে দেরি করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নতুন প্রশ্নের জন্ম দিচ্ছে, যা জটিল পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে পারে৷'' তাঁর মতে, ‘‘সরকারের উচিত হবে তিন কর্মকর্তাকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইন যে সবার জন্য সমান, তা প্রমাণ করা৷''

জানা গেছে, অবসরে পাঠানোর পর র‌্যাব ১১-র অধিনায়ক লে. কর্নেল তারেক সাঈসৎদ মোহাম্মদ এবং এবং মেজর আরিফ হোসেন সেনানিবাসের লগ এরিয়ায় তাঁদের বাসভবনেই আছেন৷ তবে নৌ-বাহিনীর লে. কমান্ডার এস এম মাসুদ রানার অবস্থান জানা যাচ্ছে না৷

গত ২৭শে এপ্রিল নারায়ণগঞ্জে সাতজনকে অপহরণের পর, ৩০শে এপ্রিল তাঁদের লাশ ভেসে ওঠে শীতলক্ষ্যা নদীতে৷ এই অপহরণ এবং হত্যায় র‌্যাব ১১-র তিন কর্মকর্তার জড়িত থাকার অভিযোগ নিয়ে এখন সারা দেশে তুমুল আলোচনা ও সমালোচনা চলছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন