1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘বহুদিন পর ভারতের মানুষ নিজেদের অন্যায়টা বুঝতে পারলো'

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত চুক্তি বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভারতের হিন্দোল সেনগুপ্ত লিখেছিলেন,‘‘চুক্তি হলো, বাংলাদেশের প্রতি আমরা সুবিচার করলাম৷'' এ মন্তব্যের পক্ষে-বিপক্ষে আমাদের ফেসবুক পাতায় পাঠকদের মতামতের ঝড় উঠেছে৷

ফেসবক বন্ধু কামরুল লিখেছেন, ‘‘বাংলাদেশের প্রতি নাকি ভারত দয়া দেখিয়েছে৷ ভারতীয় যে এই কথাটি বলেছে সে পাগল, নাকি মদ্যপ৷ বাংলাদেশের পদ্মার পানি খেয়ে যারা বেঁচে থাকন তারা আবার সুবিচার করবেন?''

‘‘বাংলাদেশ আজ হলেও স্বাধীন হতো, কাল হলেও স্বাধীন হতো৷ আমরা তাদের সাহায্য গ্রহণ না করলে পিটানির হাত হতে রক্ষা পেত না৷ তোরা কি দয়া করবি? দয়া তো করেছে বঙ্গবন্ধু৷'' – এই মন্তব্য ইউসুফ আলীর৷

‘‘বাংলাদেশের প্রতি আমরা সুবিচার করলাম'' – মন্তব্যের উত্তরে রিফাতুল হাসানের পাল্টা মন্তব্য, ‘‘তার মানে এতদিন এরা অবিচার করছে!!''

ডয়চে ভেলের ফেসবুকে পাঠক জুনায়েদ ইন্না ব্যঙ্গ করে লিখেছেন, ‘‘শুধু ছিটমহল কেন, সব বিষয়ে তোমরা আমাদের প্রতি সুবিচার করো৷ তাই তো তোমরা মুক্তিযুদ্ধে সাহায্য করা পর তোমাদের আমরা এত ভালোবাসি৷ যেমন করো, সীমান্তে নিরীহ জনগণকে বিনা কারণে গুলি করা৷ গরু ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা রেখে গরু না দিয়ে গরু চোর বলে নির্মমভাবে হত্যা করা৷ অকারণ সীমান্তে গোলাগুলি করা, যুবক সমাজকে ধ্বংস করার জন্য ভারতের সীমান্তের ভেতর ফেনসিডিল তৈরি করে বাংলাদেশে চোরাই পথে পাচার করলেও তোমাদের সীমান্ত রক্ষীদের চুপ করে বসে থাকা, এমন হাজারো উদাহরণ আছে৷ এ সব উপকারের জন্যই তোমাদের সবচাইতে আপন বলে মনে হয়!''

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত চুক্তি বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভারতীয় একজনের ‘‘বাংলাদেশের প্রতি আমরা সুবিচার করলাম'' – এই পোস্টটি পড়ে ডয়চে ভেলের ফেসবুকে পড়ে হুমায়ূন কবির লিখেছেন, ‘‘এই মন্তব্যের মধ্য দিয়ে স্বীকার করলো যে, এরা অত্যাচারী৷''

কাজি আনোয়ারুজ্জামানের প্রশ্ন, ‘‘আর অবিচারটা কে করলো?''

‘‘বাংলাদেশের প্রতি আমরা সুবিচার করলাম'৷ এই মন্তব্যের উত্তরে পাল্টা মন্তব্য আনোয়ারুল হকের৷ ‘‘বহুদিন পর ভারতের মানুষ নিজেদের অন্যায়টা বুঝতে পারলো৷'' মো.ওবায়দুলের কথায়, ‘‘এটা তাদের অধিকার৷''

মো.ফজলে রাব্বীর মন্তব্য, ‘‘এতদিন পর ভারতের শুভ বুদ্ধির উদয় হলো৷''

অন্যদিকে আক্তার হোসেন লিখেছেন, ‘‘বেশি খুশি হওয়ার কারণ নাই৷'' তবে পরিষ্কার নয়, কেন আক্তার হোসেনের এই মন্তব্য৷

হাসান আবিদের মতে, ‘‘ছাড় না দিলে সম্পর্ক মজবুত হয় না৷ প্রাপ্য ছিল দিয়েছে, বিচার-অবিচার বুঝি না৷''

অন্যদিকে বীরেশ্বর পিকলু দে সরকার, গুণে দেখুন কত বাংলাদেশি ভারতে বসবাস করে?''

সবশেষে ডয়চে ভেলের ফেসবুক বন্ধু সাব্বির ইবনে জামান ভারতকে ধন্যবাদ দিয়েছেন৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন