1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বর্ষবরণের রাতে যৌন নিগ্রহের শিকার বারোশ'র বেশি নারী

জার্মানিতে গত বর্ষবরণের রাতে যৌন নিগ্রহের শিকার হয়েছিলেন বারোশ'রও বেশি নারী৷ দু'হাজারের বেশি মানুষ এ সব ঘটনায় জড়িত থাকলেও, এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছে মাত্র ১২০ জন৷

শুধু কোলন নয়, বর্ষবরণের রাতে জার্মানির হামবুর্গ, ডুসেলডর্ফ, স্টুটগার্ট এবং আরো কয়েকটি শহরে মেয়েরা যৌন সম্পর্কিত অপরাধের শিকার হন৷ জার্মানির ‘স্যুডডয়চে সাইটুং' পত্রিকা অপরাধ পুলিশ এজেন্সি (বিকেএ)-র বরাতে এই তথ্য প্রকাশ করেছে৷

এ সব তথ্য নিয়ে কাজ করা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দু'হাজারের মতো পুরুষ এ সব অপরাধের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল৷ কিন্তু তাদের মধ্য থেকে শনাক্ত হয়েছেন মাত্র ১২০ ব্যক্তি৷ কিছুক্ষেত্রে দলবেধে অপরাধ সংগঠিত হয়েছিল৷ ফলে মোট অপরাধের সংখ্যা নয়শ' হলেও সম্পৃক্তদের সংখ্যা অনেক বেশি৷

বিএকেএ-র তথ্য অনুযায়ী, অধিকাংশ সন্দেহভাজনরা উত্তর আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে এসেছেন৷ অপরাধের সঙ্গে সম্পৃক্তদের মধ্যে কিছু মানুষ সিরিয়া থেকে এসেছেন বলে ধারণা করা হয়৷

সন্দেহভাজনের মধ্যে মাত্র ১২০ জন চিহ্নিত হয়েছে

দু’হাজার সন্দেহভাজনের মধ্যে এ পর্যন্ত মাত্র ১২০ জন চিহ্নিত

জার্মান পত্রিকায় প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, অর্ধেকের বেশি সন্দেহভাজন অপরাধী জার্মানিতে এসেছেন গত এক বছরের মধ্যে৷ বিএকেএ-র প্রেসিডেন্ট হলগার ম্যুন্শ জানান, এই বিষয়টি বিবেচনা করলে গতবছরে শরণার্থীদের ব্যাপক আগমণের সঙ্গে বর্ষবরণের ঘটনার একটি সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যায়৷

তবে হলগার ম্যুন্শ জানিয়েছেন, এ সব অপরাধ আগে থেকে পরিকল্পিত কিংবা সংঘবদ্ধ – এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি৷ যদিও চলতি বছরের শুরুতে জার্মানির বিচারমন্ত্রী মনে করেছিলেন, বর্ষবরণের রাতের ঘটনাগুলো পূর্ব পরিকল্পিত হতেও পারে৷

এদিকে, বর্ষবরণের রাতে মেয়েদের উপর যৌন নিগ্রহের ঘটনার পর জার্মানিতে ধর্ষণের শাস্তি সংক্রান্ত আইনে পরিবর্তন আনা হয়েছে৷ এখন আরো সহজেই ধর্ষণ বিষয়ক অভিযোগ আনা যাবে৷

ভিডিও দেখুন 03:32

নির্বাচিত প্রতিবেদন