1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বর্ষবরণের রাতে কোলনে রাস্তায় থাকবে দেড় হাজার পুলিশ

গতবারের মতো এবারও যাতে নারীরা যৌন আক্রমণ বা চুরির শিকার না হন, সেজন্য বর্ষবরণের রাতে দেড় হাজার পুলিশ মোতায়েনের ঘোষণা দিয়েছে কোলন কর্তৃপক্ষ৷ একরাতের জন্য এত পুলিশ মোতায়েনের ঘটনা জার্মানিতে দুর্লভ৷

Köln Übergriffe in der Silvesternacht (picture-alliance/dpa/M. Boehm)

গত বর্ষবরণের রাতে কোলন

গতবছর বর্ষবরণের রাতে কোলন, ড্যুসেলডর্ফ, হামবুর্গ, ফ্রাংকফুর্ট এবং স্টুটগার্টে অনেক নারী যৌন নিগ্রহের শিকার হন বলে অভিযোগ করেন৷ শুধু যৌন আক্রমণই নয়, অনেকের মোবাইল, পার্স এবং ব্যাগ ছিনতাইয়েরও ঘটনা ঘটে সেই রাতে৷ আর এ সব ঘটনা সবচেয়ে বেশি ঘটেছিল কোলনে৷

জার্মানির কেন্দ্রীয় ক্রিমিনাল পুলিশের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, কোলনে বর্ষবরণের রাতে এবং পরবর্তী কয়েকদিনে বারোশ'র মতো অভিযোগ জানান নারীরা, যেগুলোর মধ্যে পাঁচশ'টি ছিল যৌন আক্রমণ বিষয়ক৷ কোলন ক্যাথিড্রাল এবং তৎসংলগ্ন কেন্দ্রীয় ট্রেন স্টেশনে এসব ঘটনা ঘটে৷

কোলনে একসঙ্গে অনেক নারীর যৌন আক্রমণের শিকার হওয়ার এই ঘটনা বিশ্ব গণমাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল৷ এবার আর সেরকম কোনো পরিস্থিত চাইছে না শহর কর্তৃপক্ষ৷ তাই বর্ষবরণের রাতে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা এবং আনন্দের সাথে নতুন বছর শুরুর ব্যবস্থা করতে উদ্যোগী হয়েছে শহর কর্তৃপক্ষ৷ আর সেই উদ্যোগের একটি হচ্ছে পুলিশের উপস্থিতি দৃশ্যমানভাবে বৃদ্ধি করা৷

কোলনের পুলিশ প্রধান ইয়ুর্গেন মাটিয়াস জানিয়েছেন, ৩১ ডিসেম্বর মোতায়েন দেড়হাজার পুলিশ সদস্যের শরীরে ‘রিফ্লিক্টিভ ভেস্ট' থাকবে যাতে তাদের উপস্থিতি পরিষ্কারভাবে বোঝা যায়৷ তিনি বলেন, ‘‘গতবছর যা ঘটেছিল তা যেন আর কখনো ঘটতে না পারে৷''

প্রসঙ্গত, গতবছর বর্ষবরণের রাতে কোলনে ১৪০ জন পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করেছিলেন৷ এব ছর সেই সংখ্যা দশগুণ বেড়ে গেছে৷ শুধু তাই নয়, কোলন ক্যাথিড্রালের কিছু অংশ সংরক্ষিত এলাকা হিসেবে ঘোষণা করে সেখানে কোনোরকম আতশবাজি ফোটানো নিষিদ্ধ করা হচ্ছে৷ পাশাপাশি প্রয়োজনে ব্যাগ পরীক্ষা করার ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে৷ এছাড়া মধ্যরাতের পর রাইন নদীর উপরের সেতুগুলোও কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ রাখা হতে পারে৷

পাশাপাশি কোলন ট্রেনস্টেশনের আশেপাশের অন্ধকারাচ্ছন্ন স্থানগুলোতে বাড়তি আলোর ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ এমনকি, একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ‘লাইট আর্টিস্ট'-কে দিয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থাপনাগুলোর উপর শৈল্পিকভাবে আলো ফেলার উদ্যোগও নেয়া হয়েছে৷

প্রতিবেদন: ডাগমার ব্রাইটেনবাখ/এআই
সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়