1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

বর্তমানে ভারত অস্ত্রের বৃহত্তম ক্রেতা

পাকিস্তানে সম্ভাব্য সিআইএ এজেন্ট রেমন্ড ডেভিসের মুক্তি, আন্তর্জাতিক বাজারে ভারতের ব্যাপক অস্ত্রক্রয় অথবা দলাই লামার রাজনীতি থেকে অবসর, সব কিছুই আলোচিত হয়েছে জার্মান গণমাধ্যমে৷

default

পাকিস্তানে সম্ভাব্য সিআইএ এজেন্টের অপ্রত্যাশিত কারামুক্তি সম্পর্কে সুদদয়েচে সাইতুং-এর মন্তব্য:

‘‘সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রামে সিআইএ'র পদ্ধতিগুলি নিয়ে দ্বিধা আছে৷ ঐ সব পদ্ধতি দৃশ্যত কখনোসখনো মাত্রা ছাড়িয়ে যায়৷ কিন্তু এটা শুধু ঘটনাবলীর একটি দিক৷ পাকিস্তান নিজেই সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে তার নিজস্ব ভুলভ্রান্তির কথা কখনো স্বীকার করেনি৷ দেশকে ইসলামি বিপ্লবের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য রাষ্ট্র এবং ধর্মের পারষ্পরিক সম্পর্কের ব্যাপারে একটা খোলা বিতর্ক হওয়া প্রয়োজন৷... পাকিস্তানের গুপ্তচর বিভাগ আইএসআই ডেভিস সংক্রান্ত ঘটনাবলীর সুযোগ নিয়ে স্বদেশে সিআইএ'র গতিবিধির পরিধি কিছুটা সীমিত করার চেষ্টা করেছে৷ ডেভিস মামলার আরো একটি সুখকর ফলশ্রুতি হল, আইএসআই এই পন্থায় আফগানিস্তানেও আরো কিছুটা গতিবিধির সুবিধা পাবে৷... পশ্চিমের এই নতুন ফলশ্রুতি ভালো না লাগারই কথা৷''

আন্তর্জাতিক অস্ত্র বাণিজ্যে দক্ষিণ এশিয়া একটি সেরা ঠিকানা৷ অস্ত্র আমদানিতে ভারত সবে চীনকে হটিয়ে প্রথম স্থানটি অধিকার করেছে৷ স্টকহোল্মের বিশ্বশান্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিপ্রি'র একটি রিপোর্টের ভিত্তিতে ফ্রাঙ্কফুর্টার রুন্ডশাও লিখছে:

‘‘চীন যে তার অস্ত্র আমদানি ব্যাপকভাবে কমিয়েছে, তার কারণ আকস্মিক শান্তিপ্রীতি নয়৷ চীন আপাতত তার নিজের অস্ত্রশিল্প গড়ে তোলার চেষ্টা করছে৷ ওদিকে চীনের বিকল্প হিসেবে ভারত অস্ত্রের বৃহত্তম ক্রেতা হয়ে উঠেছে৷ সিপ্রি'র বিশেষজ্ঞ সিমন ওয়েজেমান'এর মতে এর কারণ শুধু অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা জনিত সমস্যাই নয়, তার চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ: পাকিস্তানের সঙ্গে বিরোধ এবং চীনের সঙ্গে নতুন করে মাথা চাড়া দেওয়া উত্তেজনা৷''

দলাই লামা তাঁর রাজনৈতিক উত্তরাধিকার নির্দেশ করে তিব্বতীদের গণতন্ত্রের পথে নিয়ে যেতে চান, লিখেছে ফ্রাঙ্কফুর্টার রুন্ডশাও৷ কিন্তু পত্রিকাটি যুগপৎ ভারতের ধরমশালায় নির্বাসিত তিব্বতী সংসদের অধ্যক্ষ পেনপা শেরিং'এর উদ্ধৃতি দিয়েছে:

‘‘তিব্বতীরা এই পদক্ষেপের জন্য এখনও প্রস্তুত নয়, বলে শেরিং মনে করেন৷ দলাই লামার জন্য বিশ্বের ক্ষমতাশালী ব্যক্তিদের দুয়ার মুক্ত, তিনি যা বলেন, সারা বিশ্বে তার গুরুত্ব থাকে৷ ‘অন্য কোনো তিব্বতী তা পারবে না৷'... এযাবৎ বিশ্বের কোনো দেশ নির্বাসিত তিব্বতী সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি৷''

গ্রন্থনা: আনা লেমান, অনুবাদ: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার

সংশ্লিষ্ট বিষয়