1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বদর প্রধানের ডাবল ফাঁসি

তিনবার পিছিয়ে যাওয়ার পর, অবশেষে মুক্তিযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর আমির ও একাত্তরে আদলবদর কমান্ডার মতিউর রহমান নিজামীকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুন্যাল ১৷

ফাঁসিতে ঝুলিয়ে নিজামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার এ রায় ঘোষণার পর, এর প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামী বৃহস্পতি, রবি ও সোমবার – এই তিনদিনের হরতাল ডেকেছে৷ অন্যদিকে এই রায়কে কার্যকর দেখেতে চেয়েছেন মুক্তিযোদ্ধারা৷ প্রসঙ্গত, এর আগে গত ৩০শে জানুয়ারি চট্টগ্রামের ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলার রায়েও নিজামীকে আরো একবার মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেয়া হয়েছিল৷

বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ট্রাইবুন্যাল ১ নিজামীর মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্য এ রায় ঘোষণা করে৷ ট্রাইবুন্যালের অপর দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি আনোয়ারুল হক৷ নিজামীর বিরুদ্ধে একাত্তরে হত্যা, লুট, ধর্ষণ, উসকানি ও সহায়তা, পরিকল্পনা ও ষড়যন্ত্র এবং বুদ্ধিজীবী হত্যার ১৬টি অভিযোগের মধ্যে আটটি প্রমাণিত হয়৷ এর মধ্যে চারটিতে তাঁকে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড এবং অন্য চারটিতে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে ট্রাইবুন্যাল৷

১৯৪৩ সালে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামে জন্মগ্রহণকারী নিজামী ১৯৭১ সালে নিখিল পাকিস্তান ইসলামী ছাত্রসংঘের ( বর্তমান নাম ইসলামী ছাত্রশিবির) সভাপতি ছিলেন৷ নিজামী একাত্তরের কুখ্যাত গুপ্তঘাতক আলবদর বাহিনীর প্রধান ছিলেন৷ আলবদর বাহিনী একাত্তরে বুদ্ধিজীবী হত্যার মূল পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নকারী৷ ২০১০ সালের ২৯শে জুন ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার অভিযোগে করা মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ এরপর ঐ বছরের ২রা আগস্ট তাঁকে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়৷ ২০১২ সালের ২৮শে মে ১৬টি অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে নিজামীর বিচার শুরু হয়৷ প্রায় দেড় বছর ধরে সাক্ষ্যগ্রহণ চলে৷

প্রতিক্রিয়া

রায় ঘোষণার পর প্রতিক্রিয়ায় প্রসিকিউটর মো. আলী বলেন, ‘‘এই রায়ের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে৷'' তিনি জানান, নিজামীর বিরুদ্ধে ১৬টি অভিযোগের মধ্যে ৮টি সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ করতে পেরেছে প্রসিকিকিউশন৷''

বলা বাহুল্য, ট্রাইবুন্যাল এলাকায় উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধারা এই রায় কার্যকর দেখতে চেয়েছেন৷ মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গির আলম বলেন, ‘‘আমরা এই রায় আবার পাল্টে যাক, তা দেখতে চাই না৷'' আইনমন্ত্রী আনিসুল হকও এই রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন৷ তবে বিএনপি বরাবরের মতো কোনো প্রতিক্রিয়া দেখায়নি৷

আসামিপক্ষের আইনজীবী তাজুল ইসলাম বলেন, ‘‘এ রায় বিয়ন্ড অফ জুরিসডিকশন, আনহ্যাপি জাজমেন্ট৷ কারণ প্রসিকিউশন কোনো অপরাধ প্রমাণ করতে পারেনি৷''

তাঁর মতে, ‘‘সাক্ষীদের শুধু একটি কথা – নিজামীর নির্দেশে গঠিত আলবদর বুদ্ধিজীবীদের ধরে নিয়ে গেছে – এর ওপর নির্ভর করে এ রায় দেয়া হয়েছে৷ এ রায় ভিত্তিহীন৷ ট্রাইবুন্যাল বলেছে, গণমানুষের আশা পূরণের জন্য তারা এ রায় দিয়েছে৷ কিন্তু তারা এটা বলতে পারে না৷''

হরতাল

যুদ্ধাপরাধের দায়ে দলের আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির দণ্ডের প্রতিবাদে বৃহস্পতি, রবি ও সোমবার হরতাল ডেকেছে জামায়াতে ইসলামী৷ জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণার পর, ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান এক বিবৃতিতে রায়ের প্রতিবাদে তিন দিনের এই হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করেন৷ তিন দিন হরতালের মধ্যে প্রথম দফায় বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার হরতাল করার ঘোষণা দিয়েছে দলটি৷ দ্বিতীয় দফায় রবিবার সকাল ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত টানা ৪৮ ঘণ্টা হরতাল হবে৷

মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার

নিজামীর মামলার রায় ঘোষণার মধ্য দিয়ে দুটি ট্রাইব্যুনাল এ নিয়ে মানবতাবিরোধী অপরাধের মোট ১০টি মামলার রায় ঘোষণা করলো৷ ট্রাইবুন্যাল ২ ছয়টি এবং ট্রাইবুন্যাল ১ চারটি মামলার রায় দিয়েছে৷

এর মধ্যে তিনটি মামলা সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে নিষ্পত্তি হয়েছে৷ সর্বশেষ ১৭ই সেপ্টেম্বর জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে ট্রাইবুন্যাল১-এর দেয়া মৃত্যুদণ্ডের সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেয় আপিল বিভাগ৷

গত বছরের ১৭ই সেপ্টেম্বর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল কাদের মোল্লাকে ট্রাইবুন্যাল ২-এর দেয়া যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা বাড়িয়ে মৃত্যুদণ্ড দেয় আপিল বিভাগ৷ ১২ই ডিসেম্বর রাতে ওই রায় কার্যকর করা হয়৷

এছাড়া বিএনপির সাবেক নেতা আবদুল আলীম মারা যাওয়ায়, তাঁর মামলাটি আপিল বিভাগ বাতিল করে৷ ট্রাইবুন্যাল ২ তাঁকে আমৃত্যু কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছিল৷

ট্রাইবুন্যাল ১-এর রায়ে ৯০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ পাওয়া জামায়াতের সাবেক আমির গোলাম আযমও কারাগারে আটক অবস্থায় ২৩শে অক্টোবর মারা যান৷ নিয়ম অনুসারে আপিল বিভাগে বিচারাধীন তাঁর মামলাটিও আর চলবে না৷

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় এ পর্যন্ত জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদ, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ কামারুজ্জামান, আলবদর বাহিনীর দুই নেতা চৌধুরী মুঈনুদ্দীন ও আশরাফুজ্জামান খান, জামায়াতের সাবেক সদস্য আবুল কালাম আযাদ, বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল৷

ডাবল ফাঁসি

গত ৩০শে জানুয়ারি চট্টগ্রামের ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলায় জামায়াতে ইসলামীর আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীসহ ১৪ জনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয় আদালত৷ ২০০৪ সালের ১লা এপ্রিল গভীর রাতে চিটাগাং ইউরিয়া ফার্টিলাইজার লিমিটেড বা সিইউএফএল জেটিঘাটে ধরা পড়ে ১০ ট্রাক অস্ত্র৷ এই অস্ত্র আটক মামলায় ৫০ জনকে আসামি করা হয়৷ নিজামী ঘটনার সময় বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শিল্পমন্ত্রী ছিলেন৷ ফলে মাবতাবিরোধী অপরাধসহ দুটি মামলায় তাঁর মোট দু'বার ফাঁসি হলো৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন