1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

বড় পর্দায় বিশ্বকাপ দেখা যাবে বাংলাদেশে

এ মাসের ১৯ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট৷ বিশ্বকাপের এক আয়োজক ক্রিকেট পাগল বাংলাদেশ৷

default

বাংলাদেশে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি তুঙ্গে

তাই ক্রিকেটকে ঘিরে অনেকদিন আগে থেকেই শুরু হয়ে গেছে জল্পনা-কল্পনা৷ তবে মানুষের মধ্যে ভয় কাজ করছে লোডশেডিং এর কারণে পাছে খেলা দেখতে সমস্যা না হয়৷

লোডশেডিং হতেই পারে, তাই বড়পর্দার ব্যবস্থা

বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার কারণে টিভিতে খেলা দেখা সম্ভব নাহলেও সাধারণ মানুষ যাতে খেলা দেখতে পারেন তার ব্যবস্থা করছে বাংলাদেশ সরকার৷ জেনারেটর চালিত পাবলিক স্ক্রিনে খেলা দেখানোর ব্যবস্থা করতে ইতোমধ্যেই বিদ্যুৎ কোম্পানিগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে সরকার৷ আসলে বিশ্বকাপ দেখা নিয়ে যেন জনতার রোষানলে পরতে না হয় সে ব্যাপারে এবার সরকারও বেশ সজাগ৷ সরকারি মালিকানার বিদ্যুৎ পরিবহণ সংস্থা ডেস্কো'র প্রধান মঞ্জুর রহমান বলেছেন, ‘‘আমরা জেনারেটর চালিত বড় পর্দায় খেলা দেখানোর বিষয়ে কথা বলেছি৷ বিদ্যুৎ ঘাটতির কারণে আমরা এটা করার চেষ্টা করছি৷'' তিনি আরও বলেন, ‘‘বিশ্বকাপের ম্যাচগুলো প্রায় আট ঘন্টা ধরে চলবে৷ আমাদের জন্য এতটা সময় এক নাগাড়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ করাটা প্রায় অসম্ভব একটা ব্যাপার৷''

Kricket Bangladesch - Sri Lanka Cricket

ক্রিকেট পাগল দর্শক

বাংলাদেশের ম্যাচগুলোর সময় তো বটেই

বাংলাদেশের খেলাগুলোর সময় তো বড় পর্দায় দেখার ব্যবস্থা থাকবেই৷ তার পাশাপাশি যাতে টেলিভিশনেও ঘরে বসে দর্শকরা খেলা দেখতে পারেন তার উপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মঞ্জুর রহমান৷

ভিক্ষুকদের নিয়ে বৈঠক করলেন চট্টগ্রামের মেয়র

বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে চট্টগ্রামের ভিক্ষুকরা আপাতত আর কারও কাছে হাত পাতবেন না৷ এই নিয়ে আজ বুধবার চট্টগ্রামের ভিক্ষুকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন চট্টগ্রামের সিটি মেয়র৷ পরে মেয়র মনজুর আলম জানিয়েছেন, বিশ্বকাপের সময় যেন ভিক্ষুকরা রাস্তায় ভিক্ষা করতে না নামেন তারজন্য প্রতিদিন তাঁদেরকে মাথাপিছু দেড়শ টাকা করে দেওয়া হবে৷ ১৭ ফেব্রুয়ারি উদ্বোধনী অনুষ্ঠাণের একদিন পর থেকেই প্রায় ৩০০ জন প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক তাঁদের আয় হারানোর বিপরীতে এই টাকা পাবেন৷মেয়রের বক্তব্য, ‘‘আমরা তাঁদেরকে অন্ত:ত বিশ্বকাপের এই দু'মাস সময়টা ভিক্ষা করতে দেবো না৷ বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে অনেক পর্যটক এখানে আসবেন৷ এবং তাঁরা নিশ্চয়ই ভিক্ষুকদের দেখতে পছন্দ করবেননা৷''

প্রতিবেদন: জান্নাতুল ফেরদৌস
সম্পাদনা: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সংশ্লিষ্ট বিষয়