1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

বড় আগুন নেভাতে শেল কোম্পানির মহড়া

আগুন লাগলে দমকলকর্মীদের ডাক পড়ে৷ যথেষ্ট অভিজ্ঞতা থাকা সত্ত্বেও তাঁদের পক্ষে আগুন নেভানোর কাজ মোটেই সহজ নয়৷ তবে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাঁরা নিজেদের পারদর্শিতা বাড়িয়ে নিতে পারেন৷

রাসায়নিক দ্রব্যে আগুন ধরে গেলে তা নেভাতে সঠিক তরলের প্রয়োজন হয়৷ জল ও ফেনা আগুনের শিখা ঢেকে দেয়৷ আগুন ছড়াতে দিলে চলে না৷ কিন্তু তা সত্ত্বেও প্রায়ই আগুন ছড়িয়ে পড়ে৷ তখন দমকলকর্মীদের হিমশিম খেতে হয়৷ লুকানো পেট্রোলের পাইপের মাধ্যমে সুপরিকল্পিতভাবে আগুন জ্বালানো সম্ভব৷ তার সঙ্গে পাল্লা দেওয়া খুব কঠিন৷ দমকলকর্মী ক্রিস্টিয়ান বাউখ বলেন, ‘‘এখানে বিভিন্ন পরিস্থিতি হুবহু নকল করা যায় এবং নানা পদ্ধতি হাতেনাতে পরীক্ষা করা যায়৷ বেশ কয়েকবার অনুশীলন করতে পারি৷ কায়দা বদলালে কী হয়, তা হাতেনাতে দেখতে পারি৷ সত্যি খুব কাজের হয়৷''

ট্যাংকারের নীচে এক গাড়িতে আগুন ধরে গেছে – ফায়ারফাইটারের জন্য নতুন পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয়েছে৷ উত্তাপের ফলে যে কোনো সময় ট্যাংকারে বিস্ফোরণ ঘটতে পারে৷ হাজার মিটার দূরে থাকলেও মৃত্যু হতে পারে৷ সব শক্তি কাজে লাগিয়ে ট্যাংকার ঠাণ্ডা করতে হবে৷ সেটা আগুন নেভানোর চেয়েও জরুরি কাজ৷ ফেনা ও জলের সঠিক প্রয়োগ এ ক্ষেত্রে অত্যন্ত জরুরি৷

দমকলকর্মীরা এক মারাত্মক ভুল করে বসলেন৷ একটি অংশে ফেনা দেখা যাচ্ছে না৷ বাস্তবে এর ফলে বিশাল বিস্ফোরণ ঘটতে পারে৷ কর্মীদের প্রতিটি খুঁটিনাটি বিষয়ের প্রতি মনোযোগ দিতে শিখতে হবে৷ দমকলকর্মীদের প্রশিক্ষক ফ্রেড ফ্যোর্শ বলেন, ‘‘এখানে ফেনা দেখা যাচ্ছে৷ কিন্তু এভাবে ফেনা ছড়িয়ে কোনো লাভ নেই৷ ঘটনাস্থলে এসে আগুনের শিখার রং দেখে অবস্থা বোঝা যায়৷ ধোঁয়া, কীভাবে সেটা তৈরি হচ্ছে, রং, গতি, চাপ – এ সব পর্যবেক্ষণ করে প্রাথমিক ধারণা অনুযায়ী দলের প্রধানকে স্থির করতে হয়, কী করতে হবে৷''

দলকে ঠিকমতো ভাগ করে দেওয়া অত্যন্ত জরুরি৷ কর্মীদের সঠিকভাবে মোতায়েন করা উচিত৷ দমকলকর্মীদের সবার আগে সাবধান হতে হবে, তাঁরা যাতে নিজেদের এবং সহকর্মীদের বিপদে না ফেলেন৷ পাইপ ১০ ‘বার' পর্যন্ত চাপ সহ্য করতে পারে৷ একমাত্র সবাই মিলে কাজ করলে তবেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা যেতে পারে৷ এমনকি পোড় খাওয়া অভিজ্ঞ দমকলকর্মীরাও আগুনের লেলিহান শিখার মধ্যে যেতে ভয় পান, কারণ, আগুনের শিখা কখন কী করে বসবে, তা কেউ জানে না৷ নতুন করে বিস্ফোরণের ঝুঁকিও থাকে৷

যে সব দল এখানে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে, আগুনের বিরুদ্ধে সংগ্রামে শেষ পর্যন্ত জয় হলে সাফল্যের সেই অভিজ্ঞতা তাঁরা ভুলতে পারেন না৷ আগুনের শেষ শিখা প্রায়ই সাধারণ অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র দিয়ে নেভাতে হয়৷

এখানে কর্মীরা কিন্তু আগুন নেভানোর কায়দা শিখছেন না৷ বরং সেই কাজ করার আস্থা অর্জন করছেন৷ আসল পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য তাঁরা প্রস্তুত হয়ে নতুন প্রেরণা নিয়ে তৈল শোধনাগারে ফিরে যাবেন৷

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক