1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

যুক্তরাষ্ট্র

বংশগত রোগমুক্ত শিশু জন্মদানের পথে এগোলেন বিজ্ঞানীরা

যুক্তরাষ্ট্রের একদল বিজ্ঞানী প্রাথমিক অবস্থায় থাকা মানুষের ভ্রুণের সমস্যা দূর করায় সফল হয়েছেন বলে বুধবার জানিয়েছেন৷ ফলে ভবিষ্যতে বংশগত রোগমুক্ত শিশু জন্মদানের পথে বিজ্ঞানীরা আরেকটু এগোলেন বলে মনে করা হচ্ছে৷

default

অনুবীক্ষণ যন্ত্রের নীচে গবেষণাগারে জন্ম নেয়া মানুষের ভ্রুণ দেখা যাচ্ছে

বিশেষজ্ঞরা মার্কিন বিজ্ঞানীদের এই সাফল্যের প্রশংসা করেছেন৷ তবে মানুষের ডিএনএ পরিবর্তন করা ঠিক কিনা, তা নিয়ে আরও বিতর্কেরও আহ্বান জানিয়েছেন তাঁরা৷ কারণ জিন সম্পাদনায় বিজ্ঞানীদের সফলতার মানে হচ্ছে, ভবিষ্যতে মানুষ হয়ত এমন কোনো ‘ডিজাইনার’ শিশু অর্ডার করতে পারে, যে (শিশু) ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী চুল কিংবা অন্যান্য বৈশিষ্ট্যের অধিকারী হবে৷

ভিডিও দেখুন 04:00

ডিএনএ কাটাছেঁড়া করার মূল পন্থা

গবেষণা প্রক্রিয়া

গবেষণার লক্ষ্যে বিজ্ঞানীরা এক ব্যক্তির কাছ থেক সমস্যাপূর্ণ শুক্রাণু জোগাড় করেন৷ আর এক নারীর কাছ থেকে নেন স্বাস্থ্যবান ডিম্বানু৷ তারপর গবেষণাগারে ৫৮টি ভ্রুণের জন্ম দেন, যেগুলোর প্রায় অর্ধেক ত্রুটিপূর্ণ হওয়ার কথা৷ এই ত্রুটিগুলো দূর করতে বিজ্ঞানীরা ‘ক্রিসপার-কাস৯’ নামের একটি জেনেটিক কাঁচি ব্যবহার করেন৷ কাঁচি দিয়ে তাঁরা ডিএনএ-র সমস্যাগুলো শনাক্ত করে ছেঁটে ফেলতে সক্ষম হন৷ ফলে ৫৮টির মধ্যে ৪২টি, অর্থাৎ প্রায় ৭২ শতাংশ ভ্রুণ সুস্থ হয়ে ওঠে৷

ক্রিসপার-কাস৯ কাঁচি কীভাবে কাজ করে, তা একটি ভিডিওর মাধ্যমে তুলে ধরেছে এমআইটি৷

মার্কিন বিজ্ঞানীদের এই গবেষণা ‘নেচার’ সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে৷

গবেষণার সঙ্গে যুক্ত ‘ওরেগন হেল্থ অ্যান্ড সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়’-এর পাওলা আমাতো বলেন, তাঁদের গবেষণার ফলকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে৷ এ জন্য আরও গবেষণা প্রয়োজন৷ তাহলে এই পদ্ধতি হয়ত ‘ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে বংশগত রোগের হাত থেকে মুক্তি দিতে পারে’, বলেন তিনি৷

ক্রিসপার-কাস৯ কাঁচি দিয়ে ডিএনএ-র সমস্যা দূর করার সাফল্যের হার শতভাগ করা সম্ভব হলেই কেবল, এই পদ্ধতি পরীক্ষামূলকভাবে গর্ভাবস্থায় প্রয়োগ করা উচিত, বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা৷

জেডএইচ/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও