1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ফ্রান্সে বোরখা বা নিকাব নিষিদ্ধ

ফ্রান্সের সরকার বোরখা বা নিকাবের মতো যেকোন পোশাক পরা নিষিদ্ধ করলো৷ মঙ্গলবার সেদেশের সংসদের উচ্চ কক্ষে বিপুল ভোটে অনুমোদন পায় এই আইন৷ তবে, আইনের কোথাও ইসলাম ধর্মের কথা বলা হয়নি৷

default

এই আইন নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই (ফাইল ফটো)

এই আইনের মূল বিষয়টি হচ্ছে, ফ্রান্সের পথে প্রান্তর, জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকা বা সভাসমাবেশে কেউ মুখাবরণ ব্যবহার করতে পারবে না৷ তবে কোন নারীকে জোরপূর্বক বোরখা বা নিকাব পরানো থেকে বিরত রাখতেও এই আইন প্রযোজ্য হবে৷ বর্তমান সার্কোজি সরকারও মূলত নজর দিচ্ছে এই দিকটাতেই৷

কেউ এই আইন ভঙ্গ করলে সেক্ষেত্রে ১৫০ ইউরো জরিমানা হবে৷ অথবা অভিযুক্তকে ফ্রান্সের রাষ্ট্রীয় কাঠামোর বিষয়ে বিশেষ শিক্ষা নিতে বাধ্য করা হবে৷ একইসঙ্গে কোন পুরুষ তার স্ত্রীকে বোরখা বা নিকাব বাধ্য করলে তার ৩০ হাজার ইউরো পর্যন্ত জরিমানা অথবা এক বছরের কারাদণ্ড হতে পারে৷

Vollverschleierte Frau in Köln

ফ্রান্সের মোট মুসলিম জনগোষ্ঠীর মধ্যে মাত্র দু'হাজার নারী বোরখা পরেন (ফাইল ফটো)

বলাই বাহুল্য, এই আইন নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই৷ ফ্রান্সের মুসলিম সংগঠনগুলো এর বিরুদ্ধে নিজেদের অবস্থান জানিয়েছে৷ বিশেষ করে আইন করে বোরখা নিষিদ্ধ করার বিষয়টিতে মত নেই অনেকের৷ কেননা ফ্রান্সের মোট মুসলিম জনগোষ্ঠীর মধ্যে মাত্র দু'হাজার নারী বোরখা পরেন৷ তাই, তাদের জন্য এই আইন বড্ড বাড়াবাড়ি বলে মত সমালোচকদের৷

অবশ্য ফ্রান্সের আইনমন্ত্রী মিশেল আলিয়ো-মারি জানিয়েছেন, এটি নিরাপত্তা বা ধর্মের কোন বিষয় নয়, বরং এটি আমাদের প্রজাতান্ত্রিক ধারার বহিঃপ্রকাশ৷

উল্লেখ্য, বোরখা বা নিকাব নিষিদ্ধ করার এই আইন এবার তোলা হবে ফ্রান্সের সাংবিধানিক পরিষদে৷ সেখানে বাছবিচার শেষে আগামী বছরের শুরুর দিকে বোরখামুক্ত হবে ফ্রান্স৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়