1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ফ্রান্সে এক মুসলিম নারীর প্রতিবাদ

তথাকথিত জঙ্গিরা মানুষ হত্যা করে আর তাতে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ বাড়ে নিরীহ সাধারণ মানুষের৷ ফ্রান্সে জঙ্গি হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে বিপদে পড়েছিলেন এক মুসলিম নারী৷ ঘাবড়ে না গিয়ে অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছেন তিনি৷

গত ১৪ই জুলাই ছিল ফ্রান্সের জাতীয় দিবস৷ সেদিন নিস শহরে সন্ত্রাসী হামলায় ৮৪ জন মারা যায়৷ জানা গেছে, হামলাটি চালিয়েছিল তিউনিসীয় বংশোদ্ভুত এক ফরাসি ট্রাক চালক৷ জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত বিশেষ অনুষ্ঠান শেষে ওই ব্যক্তি ট্রাক চালিয়ে ঢুকে পড়ে উৎসবস্থলে৷ জনতার ওপরই চালিয়ে দেয় ট্রাক৷ নির্বিচারে গুলিও চালাতে থাকে জনতার ওপর৷

বিশ্বের সব শান্তিপ্রিয় মানুষই নিন্দা জানিয়েছে এ হামলার৷ হামলার প্রতিবাদ এবং নিহতদের শ্রদ্ধা জানাতে বিভিন্ন আয়োজনও হয়েছে বিভিন্ন দেশে৷ ফ্রান্সে তেমন এক আয়োজনে হাজির হয়েই অপমানজনক আচরণের শিকার হয়েছিলেন এক মুসলিম নারী৷ শোক জানাতে আসা এক ব্যক্তি ওই মুসলিম নারীর উদ্দেশ্যে বলে ওঠে, ‘‘তুমি তোমার দেশে ফিরে যাও৷''

পাশ থেকে আরো কয়েকজন ওই ব্যক্তিকে সমর্থন দেয়৷ অথচ মুসলিম ওই নারী সেখানে গিয়েছেন তথাকথিত জঙ্গিদের প্রতি ঘৃণা আর জঙ্গি হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে৷ তাঁকে ফ্রান্স ছেড়ে চলে যেতে বলায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন তিনি৷ শুরুতে বিনীতভাবেই বলেন, ‘‘স্যার, ফ্রান্স আমার দেশ৷ এ দেশে আমি জন্ম নিয়েছি৷ এ দেশ ছেড়ে আমি কোথায় যাবো?''

তাতেও কাজ হয়না৷ ‘হামলাকারী মুসলিম ছিল'- শুধু এ কারণেই চলতে থাকে নিরীহ এক মুসলিম নারীর প্রতি বিষোদগার৷ সেই পরিস্থিতিতেও একেবারেই ভে্ঙ্গে পড়েননি তিনি৷ এক পর্যায়ে চেঁচিয়ে বলতে থাকেন, ‘‘কী জঘণ্য! তোমরা সবাই বর্ণবাদী!''

উত্তেজনা বেশি বাড়ার আগেই পুলিশ হাজির হয় সেখানে৷ দু-একজন ফরাসিকেও অবশ্য তখন মুসলিম নারীকে ফ্রান্স ছাড়তে বলা লোকটির সঙ্গে তর্ক করতে দেখা গেছে৷

এসিবি/এপিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়