1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ফ্রান্সের পর জার্মানিতে হামলা, নিহত আফগান আততায়ী

সোমবার রাতে জার্মানির বাভেরিয়া রাজ্যে এক ট্রেনের মধ্যে হামলায় পাঁচ ব্যক্তি আহত হয়েছে৷ আততায়ী এক আফগান শরণার্থী৷ কট্টর ইসলামপন্থি ভাবধারায় উদ্বুদ্ধ হয়ে সে এই হামলা চালিয়েছে কিনা, তা স্পষ্ট নয়৷

ফ্রান্সের নিস শহরের সন্ত্রাসী হামলার আতঙ্ক এখনো কাটেনি৷ জার্মানির বাভেরিয়া রাজ্যে এক হামলা সেই আশঙ্কা আরও বাড়িয়ে দিল৷ এবারও একজন আততায়ী৷

ট্রাক নয়, হাতে কুড়াল ও ছুরি নিয়ে ট্রেনের মধ্যে সে যাত্রীদের উপর নির্বিচারে হামলা চালালো৷ তার ফলে পাঁচজন আহত হয়েছে৷ আহতদের মধ্যে চারজন হংকং-এর একটি পরিবারের সদস্য৷ হামলার সময়ে ট্রেনের সেই কামরায় প্রায় ২৫ জন যাত্রী ছিলেন৷ প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুযায়ী হামলার পর কামরা রক্তে ভেসে যাচ্ছিল৷

তবে এবার আততায়ী বেশি সময় পায়নি৷ চেন টেনে পালানোর সময় পুলিশ তাকে ধরার চেষ্টা করে৷ পুলিশের উপর হামলা চালালে পুলিশেরই গুলিতে তার মৃত্যু হয়৷ অন্য একটি ঘটনার জের ধরে বিশেষ কমান্ডো বাহিনী কাছেই উপস্থিত ছিল৷

সোমবার রাতে বাভেরিয়ার ভ্যুয়র্ত্সবুর্গ শহরের কাছে এক ট্রেনে যে ব্যক্তি হামলা চালিয়েছে, তার বয়স মাত্র ১৭৷ আফগানিস্তান থেকে শরণার্থী হিসেবে সে একাই জার্মানিতে এসেছিল৷ হামলার কারণ এখনো জানা যায়নি৷ তবে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সূত্র অনুযায়ী, হামলার ঠিক আগে সে ‘আল্লাহু আকবর' বলেছিল বলে খবর পাওয়া গেছে৷ তাই নিস-এর হামলার পর সন্দেহের তালিকার শীর্ষে রয়েছে কট্টর ইসলামপন্থি ভাবধারা৷ তদন্তে এই বিষয়টিকে খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ তার ঘরে হাতে-আঁকা আইএস পতাকা পাওয়া গেছে বলে জানা গেছে৷

আততায়ী সম্পর্কে এখনো বিশেষ কিছু জানা যায়নি৷ অপ্রাপ্তবয়স্ক শরণার্থী হিসেবে সে বাবা-মা ছাড়াই জার্মানিতে এসেছিল৷ ভ্যুয়র্ত্সবুর্গ শহরের কাছেই সে থাকতো৷ সর্বশেষ খবর অনুযায়ী এক পরিবার তাকে আশ্রয় দিয়েছিল৷ হামলার পর সে কোথায় পালানোর পরিকল্পনা করেছিল, তাও স্পষ্ট নয়৷

উল্লেখ্য, মাস দুয়েক আগে বাভেরিয়া রাজ্যের রাজধানী মিউনিখ শহরের কাছে এক আততায়ী ট্রেনের মধ্যে ছুরি চালিয়ে এক জনকে হত্যা করে৷ সেই হামলায় ৩ জন গুরুতর আহত হয়৷ তবে সেই আততায়ী মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল বলে জানা যায়৷

এসবি/ডিজি (ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়