ফুটবল বিশ্বকাপের টুকিটাকি | খেলাধুলা | DW | 20.05.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

ফুটবল বিশ্বকাপের টুকিটাকি

বিশ্বকাপের আগেই পরবর্তী কোচের নামকরণ করে বসে আছে ফরাসি ফুটবল ফেডারেশন৷ মারাদোনা এক ক্যামেরাম্যানকে গাড়ি চাপা দিয়েছেন৷ আর রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার যৌনকর্মীদের উদ্বেগ৷

default

এমনই দেখতে বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১০-এর একটি টিকিট

বিশ্বকাপের পরেই ফ্রান্সের জাতীয় কোচ রেমঁ দমিনিক'কে বিদায় নিতে হচ্ছে৷ জাতীয় একাদশের শেষ কিছু খেলায় তাঁকে একটানা দুয়ো দিয়েছে ফ্যানরা৷ আর দেবে নাই বা কেন ? থিয়েরি অঁরি মারাদোনা'র ‘‘ভগবানের হাত'' পদ্ধতিতে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে গোলটি করিয়ে প্লে-অফ'এর সুযোগ এনে না দিলে ফ্রান্সকে এবার বাড়িতেই থাকতে হতো৷ সব মিলিয়ে চাপ এতো বেশী, যে এফএফএফ বা ফরাসি ফুটবল ফেডারেশন বিশ্বকাপের আগেই নবযুগের সূচনা ঘোষণা করে বসে আছে : বিশ্বকাপের পর লরঁ ব্লঁ হবেন নতুন কোচ৷

‘‘ প্রেসিডঁ ''

ব্লঁ'র নাম বিশ্ববাসীর কাছে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই৷ ১৯৯৮-এর জিনেদিন জিদান-ধন্য বিশ্বকাপ বিজয়ী ফরাসি দলের সদস্য ছিলেন ব্লঁ৷ ২০০০-এ ফ্রান্স ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ জেতার সময়েও তাই৷ খেলেছেন বার্সেলোনা, অলিম্পিক মার্সাই, ইন্টার মিলান এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড'এর মতো ক্লাবের হয়ে৷ নেতৃত্ব দেবার ক্ষমতা এমন যে তাঁকে আদর করে ‘‘প্রেসিডঁ'', অর্থাৎ ‘প্রেসিডেন্ট' বলে ডাকে ফ্যানরা৷

‘‘ তুমি কি ধরণের আহাম্মক হে ?''

ওদিকে ফুটবল তথা কেলেঙ্কারির কিংবদন্তী দিয়েগো মারাদোনা বুধবার মিনি গাড়ি চালিয়ে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে যাবার সময় যথারীতি সাংবাদিক-ক্যামেরাম্যানদের ভিড়ের মধ্যে পড়েন৷ একজন ক্যামেরাম্যান মাটিতে পড়ে যাওয়ার পর মারাদোনার গাড়ির চাকা তাঁর পায়ের উপর দিয়ে চলে যায়৷ মারাদোনাকে গাড়ি থেকেই চিৎকার করতে শোনা যায় : ‘‘তুমি কি ধরণের আহাম্মক হে? পা'টা ঠিক সেখানে রেখেছো যেখানে সেটা গাড়ি চাপা পড়বে?''

এইডস ' এর ভীতি

জোহানেসবার্গের যৌনকর্মীরাও ফুটবল বিশ্বকাপ থেকে একটা মোটা ফায়দা আশা করছিলেন৷ তা'তে বাদ সেধেছে একদিকে এইডস এবং অপরাধবৃত্তির ভীতি, অন্যদিকে পৌর প্রশাসন৷ বিশ্বে দক্ষিণ আফ্রিকাতেই এইডস রোগাক্রান্তদের সংখ্যা সর্বাধিক : মোট ৫৭ লক্ষ৷ কাজেই বিদেশী ফুটবল ফ্যানদের তাদের স্বদেশেই সাবধান করে দেওয়া হচ্ছে : ও' পথে যেও না৷ আবার স্বদেশেও কর্তৃপক্ষ যৌনকর্মীদের জন্য কোনো নিরাপদ এলাকা নির্দ্দিষ্ট করে দিতে অরাজী - যদিও ২০০৬ সালে জার্মানিতে বিশ্বকাপে ঠিক সেই পন্থাই অবলম্বন করা হয়েছিল৷

প্রতিবেদন: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়