1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

ফুটবলেও সুদিন ফিরে পেয়েছে ইরান

শুধু রাজনীতির অঙ্গন নয়, ফুটবল অঙ্গনেও সুদিন ফিরে পেয়েছে ইরান৷ এশিয়ার দেশটিতে ফুটবল তুমুল জনপ্রিয় হলেও হালে হতাশায় নিমজ্জিত হওয়ার দশা হয়েছিল৷ বিশ্বকাপের আগে সেই ইরান এখন উজ্জ্বল ভবিষ্যতের আশায় উজ্জীবিত৷

Iran beim Fifa-World Cup

চলতি বছরে ইরানের জাতীয় দল

ব্রাজিলে অনুষ্ঠেয় ২০১৪ বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব থেকে বিদায়ের দোরগোড়ায় চলে গিয়েছিল ইরান৷ প্রথম পাঁচ ম্যাচ শেষে মাত্র ৭ পয়েন্ট ছিল তাদের৷ সমালোচনার মুখে পর্তুগিজ কোচ কার্লোস কুইরোজ নাকি পদত্যাগ করার কথাও ভাবছিলেন৷ কিন্তু বাছাই পর্বে নিজেদের শেষ তিন ম্যাচে নাটকীয়ভাবে ঘুরে দাঁড়ায় ইরান৷ যে দল লেবাননের কাছেও হেরে বসেছিল, তারাই কিনা হারিয়ে দেয় দক্ষিণ কোরিয়াকে৷ বাকি দু ম্যাচ থেকেও পূর্ণ পয়েন্ট তুলে নিয়ে জাভেদ নিকোউনাম, আন্দ্রানিক তেমুরিয়ানরা এখন ব্রাজিল বিশ্বকাপ মাতানোর দিন গুনছেন৷

Ashkan Dejagah

আশকান দেজাগা৷ জার্মান যুব দলে খেলা এই ফুটবলার এখন খেলেন ইরান জাতীয় দলে৷

ইরান মোটামুটি সহজ গ্রুপে পড়েছে বলে সমর্থকরা খুব খুশি৷ দু বারের বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা ছাড়া বাকি দুটো দলকে তাঁদের দেশ হারাতে পারবে বলে মনে করেন ইরানিরা৷ বিশ্বকাপে প্রথমে ইরান খেলবে নাইজেরিয়ার সঙ্গে৷ সেই ম্যাচ জিতলে দ্বিতীয় পর্বে ওঠার আশা থাকবে৷ সেই আশা পূরণ হতে পারে বসনিয়াকে হারালে৷ ফিফা ব়্যাঙ্কিংয়ে ইরান এখন ৪৫ নম্বরে, আফ্রিকান চ্যাম্পিয়ন নাইজেরিয়া ৩৬ আর এবারই প্রথম বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পাওয়া বসনিয়া আছে ৩১ নম্বরে৷ কাগজে-কলমে ইরানই দুর্বল৷ তাতে কী! মাঠে দুটো দিন নিজেদের উজাড় করে দিতে পারলে জয় পাওয়া অবশ্যই সম্ভব৷

ইদানীং দলের সবাই সেরকমই খেলছেন৷ বিশেষ করে নেদারল্যান্ডসে বড় হয়ে সে দেশের বয়সভিত্তিক দল এবং লিগ খেলা রেজা ঘুহানেজাদ তো বাছাইপর্বে দুর্দান্ত খেলেছেন৷ পাঁচ ম্যাচে করেছেন তিন গোল৷ আর ফুলহ্যামের হয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ খেলা মিডফিল্ডার আশকান দেজাগা কাতারের বিপক্ষে অভিষেক ম্যাচেই করেছেন দুই গোল৷ জার্মান বুন্ডেসলিগায়ও খেলেছেন তিনি৷ এই দুজনের সঙ্গে ২০১৩-র এশিয়ার দ্বিতীয় সেরা ফুটবলার জাভেদ নেকুনাম এবং মিডফিল্ডার আন্দ্রানিক তেমুরিয়ানের পারফরম্যান্সও তাক লাগানোর মতো৷

Reza Ghoochannejhad (Gucci)

রেজা ঘুহানেজাদ

১৫ বছর পর আবার বিশ্বকাপে ফিরছে ইরান৷ আয়াতুল্লাহ খোমেনির ইসলামি বিপ্লবের পর থেকে ধীরে ধীরে পেছাতে থাকলেও তার আগে কিন্তু লম্বা একটা সময় এশিয়ার সেরা দল ছিল তারা৷ ১৯৬৮ থেকে ১৯৭৬ সালের মধ্যে টানা তিনবার এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন, ১৯৭৮ সালে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে খেলা - সবই কিন্তু ইসলামি বিপ্লবের আগের অর্জন৷ ১৯৭৯ সালে খোমেনির নেতৃত্বে ‘ইসলামি বিপ্লব' হলো আর তারপর থেকে ফুটবলে একটু একটু করে পিছাতেও থাকল এশিয়ার দেশটি৷ ১৯ বছর পর, অর্থাৎ ১৯৯৮ সালে আবার বিশ্বকাপ মূল পর্বে উঠে সুদিনে ফেরার ইঙ্গিত দিলেও দ্রুতই সে আশা দেখা দিয়েই মিলিয়ে যায়৷

সম্প্রতি বেশ বড় একটা পরিবর্তন এসেছে ইরানের রাজনীতিতে৷ কট্টরপন্থী মাহমুদ আহমাদিনেজাদের মেয়াদ ফুরানোর পর মধ্যপন্থি হাসান রৌহানি হয়েছেন প্রেসিডেন্ট৷ সম্প্রতি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচ স্থায়ী সদস্য ও জার্মানির সঙ্গে বোঝাপড়া হওয়ায় অর্থনৈতিক অবরোধ থেকে ইরানের মুক্তি পাওয়ার সম্ভাবনা জেগেছে৷ ফুটবলেও লেগেছে পরিবর্তনের ঢেউ৷ জাতীয় দলের সাবেক সহকারী কোচ হুমান আফজানি ফুটবলে সুবাতাস ফেরার কারণ জানাতে গিয়ে বলেছেন, ‘‘আমাদের সমাজে ফুটবলের একটা বিশেষ জায়গা আছে৷ অনেকে মনে করেন, সাম্প্রতিক নির্বাচন এবং ফুটবল দল বিশ্বকাপে ওঠার কারণে দেশে অনেক পরিবর্তন আসছে৷''

এসিবি/ জেডএইচ (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়