1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ফিরে দেখা ২০১০ – স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

সারা বছর ধরেই স্বাস্থ্যজগতের নানা রকম খবরাখবর আপনারা শুনেছেন, পড়েছেন৷ বছর শেষে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ক্ষেত্রের উল্লেখযোগ্য কয়েকটি বিষয়ের দিকে ফিরে দেখা যাক আরেক বার৷

default

চিকিৎসা বিজ্ঞানী রবার্ট এডওয়ার্ডস টেস্ট টিউবের মাধ্যমে সন্তান জন্ম দেয়ার পদ্ধতি আবিষ্কার করেন

চিকিৎসায় নোবেল পুরস্কার

শুরু করা যাক চিকিৎসা ক্ষেত্রের সাড়া জাগানো খবর নোবেল পুরস্কার দিয়ে৷ ব্রিটিশ চিকিৎসা বিজ্ঞানী রবার্ট এডওয়ার্ডস টেস্ট টিউবের মাধ্যমে সন্তান জন্ম দেয়ার পদ্ধতি আবিষ্কার করে চিকিৎসা শাস্ত্রে নোবেল পেয়েছেন এবছর৷ পুরস্কারের অর্থমূল্য ১৫ লাখ ডলার৷ ১৯৭৮ সালে ২৫ জুলাই প্রথম টেস্ট টিউব শিশুর জন্ম হয়৷ তারপর থেকে সারা পৃথিবীতে ৪০ লক্ষ শিশুর জন্ম হয়েছে এই পদ্ধতিতে৷

Großbritannien Nobelpreis Louise Brown erstes Reagenzglasbaby

বিশ্বের প্রথম টেস্ট টিউব শিশু৷ জন্ম নেয় ১৯৭৮ সালের ২৫ জুলাই

অনেক নিঃসন্তান দম্পতির মুখে ফুটেছে হাসি, দেখা দিয়েছে আশার আলো৷ ৮৫ বছর বয়স্ক বিজ্ঞানী এডওয়ার্ডস ব্রিটেনের নর্থ ওয়েল্স বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন৷ উদ্ভিদ বিদ্যার ছাত্র হয়েও প্রাণীবিদ্যায় ছিল তাঁর প্রবল আগ্রহ৷ ডিএসসি ডিগ্রি নেয়ার পর কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করেন তিনি৷ কাজ শুরু করেন ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট ফর মেডিক্যাল রিসার্চে৷ ১৯৫৫ সালে জেনেটিকের ওপর গবেষণা করে এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচ ডি অর্জন করেন৷

প্রতিবছরের মত এবছরও বিশ্বজুড়ে পালিত হল এইডস দিবস৷

১৯৮৮ সালের ১লা ডিসেম্বর শুরু হয়েছিল প্রথম বিশ্ব এইডস দিবস৷ অর্থ সংগ্রহ ও সচেতনতা সৃষ্টিই এর মূল উদ্দেশ্য৷ তারপর থেকে প্রতিবছরই পালিত হচ্ছে দিনটি৷ এবছরের থিম ছিল, এইডস-এর চিকিৎসা ও প্রতিরোধকে বিশ্বের সব মানুষের আওতার মধ্যে আনা এবং মানবাধিকারের মর্যাদা দেয়া৷ এই দিবস পালনের মধ্য দিয়ে সবাইকে মনে করিয়ে দেওয়া যে এইডস রোগের ভাইরাস ‘এইচআইভি' এখনো রয়ে গেছে পৃথিবীতে এবং একে প্রতিরোধের জন্য অনেক কিছুই আমাদের করার আছে৷

সম্প্রতি জার্মান বিজ্ঞানীরা এইচ আই ভি ভাইরাসে আক্রান্ত এক ব্যক্তিকে আরোগ্য ঘোষণা দিয়ে বিশ্বব্যাপী চমকের সৃষ্টি করেছেন৷ জানা গেছে লিউকেমিয়া ও এবং এইচ আই ভি ভাইরাসে আক্রান্ত এক রোগীকে লিউকেমিয়া থেকে মুক্ত করার জন্য তার অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপিত করেন বার্লিনের এক দল চিকিৎসক৷ কয়েক বছর পর পরীক্ষা করে দেখা গেল তার দেহ থেকে এইডস-এর ভাইরাসও দূর হয়েছে৷ বিশেষজ্ঞদের মতে পুরানো অস্থিমজ্জা ধ্বংস করে নতুন অস্থিমজ্জা স্থাপন করার ফলেই এমনটি সম্ভব হয়েছে৷ তবে অ্যামেরিকার ভাইরোলজির বিজ্ঞানীরা রোগীর মরণোত্তর পরীক্ষা না চালানো পর্যন্ত এইডস থেকে আরোগ্য লাভকে স্বীকৃতি দিতে নারাজ৷

Cholerafälle in Haiti

চলতি বছরে হাইতিতে কলেরা ছড়িয়ে পড়ে ব্যাপকভাবে

কলেরার বিস্তৃতি রোধে স্যাটেলাইট

মার্কিন গবেষক রিটা কোলওয়েল কলেরা তথা পানিবাহিত রোগের বিস্তৃতি রোধে বিশেষ অবদানের জন্য এবছরের স্টকহোম ওয়াটার প্রাইজ পেলেন৷ রিটা কোলওয়েল তাঁর গবেষণায় দেখিয়েছেন, কলেরার ব্যাকটেরিয়ার বিস্তৃতি স্যাটেলাইটের সাহায্যে আগেই লক্ষ্য করা সম্ভব৷ যার ফলে এই ব্যাকটেরিয়াকে প্রতিরোধ করাও সহজ৷

কলেরার জীবাণু সাধারণত জলের প্ল্যাঙ্কটনের ভেতরে আস্তানা গাড়ে৷ বসন্তকালে আলো ও উষ্ণ তাপমাত্রায় বাড়তে থাকে জলজ অনুজীব-প্ল্যাঙ্কটনগুলো, যাতে লুকিয়ে থাকে কলেরার ব্যাকটেরিয়া৷ কোলওয়েল এমন এক পদ্ধতি বের করেছেন, যাতে এই প্ল্যাঙ্কটনদের অবস্থান স্যাটেলাইটের সাহায্যে আগে থেকেই লক্ষ্য করা সম্ভব৷ কলেরার সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার খুব সহজ উপায় হল পানি ফিল্টার করা৷ রিটা কোলওয়েল ও তাঁর সহকর্মীরা এই বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশে ৩ বছর সমীক্ষা চালিয়েছেন এবং সেখানকার মেয়েদের ফিল্টারের কলাকৌশল শিখিয়েছেন৷ এই সময়টাতে পানিবাহিত রোগের পরিমাণ অর্ধেকে নেমে এসেছিল৷

মানুষের আয়ু বাড়ার সম্ভাবনা

অনেক মানুষই হয়তো শতবর্ষের জন্মবার্ষিকী পালন করার একটা সুপ্ত আকাঙ্খা লালন করেন৷ কিন্তু বৃদ্ধ বয়সের রোগব্যাধি সে-ইচ্ছায় বাদ সাধে৷ কিছু বিজ্ঞানী শতবর্ষের এ স্বপ্ন পূরণে কিছুটা আশার আলো দেখিয়েছেন৷ তারা এমন একটি ওষুধ নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করছেন, যা আলসহাইমার, ডায়বেটিস-এর মত রোগ জয় করে মানুষকে একশ বছর বাঁচতে সাহায্য করবে৷ আগামী তিন বছরের মধ্যেই এই ওষুধ বেরিয়ে যেতে পারে৷ বিজ্ঞানীরা তিনটি জিন আবিস্কার করেছেন যা বৃদ্ধ বয়সের সাধারণ রোগব্যাধি প্রতিরোধ করবে৷ ৫০০ মানুষের ডিএনএ পরীক্ষা করে এই তিনটি জিন চিহ্নিত করেন তাঁরা, যাদের গড় বয়স ১০০ বছর৷ সাধারণত দশ হাজারে মাত্র এক জনের শতবর্ষে পা রাখার সম্ভাবনা থাকে৷ কিন্তু পরীক্ষাধীন ঐ গ্রুপটির ক্ষেত্রে শতায়ু হবার সম্ভাবনা ছিল ২০ গুণ৷ ডিএনএ পরীক্ষা করার পর যে জিন তিনটি পাওয়া গেছে তার মধ্যে দুইটি জিন ভাল কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়াতে সাহায্য করে, যা হৃদরোগ ও স্ট্রোক হ্রাস করে এবং অপর জিনটি ডায়বেটিস প্রতিরোধে সহায়তা করে৷ আবার এই জিনটি যাদের রয়েছে তাদের আলসহাইমার রোগ হওয়ার সম্ভাবনা ৮০ শতাংশ কম৷

জার্মানিতে মানুষের মৃত্যুর অধিকার

জীবনের শেষ দিনগুলি কেমন যাবে, এই নিয়ে মানুষের মনে একটা শঙ্কা থাকে৷ যদি অচেতন হয়ে থাকতে হয়? কিছু করার ক্ষমতা না থাকে? এমন অবস্থায় পড়লে কী করণীয় সে ব্যাপারে উইল করে রাখার সুযোগ রয়েছে জার্মানিতে৷ ২০০৯ সাল থেকে রোগীর ইচ্ছা অনুযায়ী কাজ করাটা বাধ্যতামূলক৷ যন্ত্রণাকাতর ইনগ্রিড জান্ডার এই রকমই এক উইল করে রেখেছেন৷ প্রতিটি পদক্ষেপই তাঁর জন্য রীতিমত কষ্টদায়ক৷ বা হাত প্রায় নাড়াতেই পারেন না৷ ডান পাও অবশ৷ ব্যথা তাঁর নিত্যসঙ্গী৷ কড়া কড়া ওষুধ খেয়ে কোনো রকমে দিনটা পার করতে হয় তাঁর৷ ভাল হওয়ার তেমন আশাও নেই৷ ৫ বছর বয়সে পোলিওতে আক্রান্ত হন ইনগ্রিড৷ তখন থেকে তাঁর অবস্থা ক্রমেই খারাপ হতে চলেছে৷ স্নায়ুগুলি শক্তি হারিয়ে ফেলছে৷ মাংসপেশি ক্ষয় হয়ে যাচ্ছে৷ এজন্য মৃত্যু নিয়ে চিন্তা ভাবনাটা তাঁর লেগেই থাকে৷ ইনগ্রিড জান্ডারের মতে, যার যেভাবে ইচ্ছা সে ভাবেই তাঁকে মারা যেতে দেওয়া উচিত৷ যন্ত্রণা যদি অসহ্য হয়, ওষুধ দিয়ে হলেও৷ ‘‘আগে থেকে কেউ বলতে পারেনা, কতটা যন্ত্রণা সহ্য করাসম্ভব৷ কিন্তু যদি আমি মনে করি যথেষ্ট হয়েছে, তাহলে আমার চলে যাওয়ার অধিকারও রয়েছে৷'' তাই ইনগ্রড জান্ডার আরো অসুস্থ হয়ে পড়লে কৃত্রিম শ্বাসপ্রশ্বাসের যন্ত্রে আবদ্ধ হতে চাননা৷ কৃত্রিম উপায়ে খাদ্য গ্রহণেও ইচ্ছা নেই তাঁর৷ ইনগ্রিড তাঁর এই আকাঙ্খা লিখে রেখেছেন৷ তিনি আশা করেন, তাঁর সন্তানরা তাঁকে এই ইচ্ছাপূরণে সাহায্য করবে৷

প্রতিবেদন: রায়হানা বেগম

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক