1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

ফিফা’র প্রেসিডেন্ট পদে থেকে যাচ্ছেন ব্লাটার, বাড়ছে বিতর্ক

একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী কাতারের বিন হাম্মাম নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর পর, ফিফা’র প্রেসিডেন্ট হিসেবে সেপ ব্লাটারই যে থেকে যাবেন, এ নিয়ে আর তেমন সন্দেহ নেই৷ তবে প্রশ্ন থাকছে তাঁর পুনর্নির্বাচন নিয়ে৷

default

সেপ ব্লাটার

গত কয়েকদিনের নাটকীয় ঘটনার সূত্র ধরে, ফিফা'র প্রেসিডেন্ট বা সভাপতি পদের এই নির্বাচনকে ঘিরে চলছে বিতর্ক৷ নির্বাচন স্থগিত করার আহ্বান জানিয়েছে অনেকে৷ এর মধ্যে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন বা এএফসি এবং ইংলিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন'এর কর্মকর্তারাও আছেন৷ এছাড়া, ব্লাটার'এর বিপক্ষে নাম লিখিয়েছে ভিসা, কোকাকোলা, আডিডাস এবং এমিরেট্স'এর মতো আন্তর্জাতিক কোম্পানিগুলি৷ কিন্তু এরপরও, আগামী চার বছর ব্লাটারই সম্ভবত থাকছেন ফিফা'র হত্তা-কত্তা-বিধাতা হয়ে৷

Fußball FIFA Mohamed Bin Hammam

একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী কাতারের বিন হাম্মাম নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান

মোহাম্মদ বিন হাম্মাম নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর পর, ব্লাটারকে দূরে রাখার একমাত্র পথ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনটাই বাতিল করা৷ কিন্তু এরজন্য কংগ্রেস সদস্যদের প্রায় ৭৫ শতাংশের ভোট প্রয়োজন৷ যার কোনো সম্ভাবনাই নেই আর৷ তাই ‘নির্ধারিত সময়েই নির্বাচন হবে' - জানিয়েছেন ব্লাটার৷ তবে নির্বাচনে জয়ী হলেও, সেই জয় টেকসই হবে কিনা - সে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে৷

২০১৮ সালে রাশিয়া ও ২০২২ সালে কাতারে বসবে বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর৷ এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের প্রক্রিয়ায়, প্রভাব খাটাতে ঘুষ দেওয়া-নেওয়ার অসংখ্য অভিযোগ ওঠে ফিফা'র বিরুদ্ধে৷ বিশেষ করে, ফিফা'র নির্বাহী কমিটির বেশ কয়েকজন সদস্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ আনে ব্রিটেন৷ অথচ, সাম্প্রতিক ঘটনা প্রবাহ নিয়ে মাথা ঘামাতে একেবারেই রাজি নন সেপ ব্লাটার৷ উল্লেখ্য, ১৯৯৮ সাল থেকেই ফিফা প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন ৭৫ বছর বয়সি এই সুইস নাগরিক৷

এদিকে, এএফসি'র ভারপ্রাপ্ত প্রধান চীনের ঝ্যাং জিলং মনে করেন যে, মোহাম্মদ বিন হাম্মাম এখনো এএফসি'র প্রধান পদে বহাল আছেন৷ ঝ্যাং এএফসি'র সাবেক প্রধান বিন হাম্মামের সহকারী ছিলেন৷ ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফা ঘুষ কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকার অভিযোগে হাম্মামকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করলে, মঙ্গলবার ঝ্যাং'কে ভারপ্রাপ্ত প্রধান করা হয়৷ ফিফা'র কথায়, সাবেক প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী বিন হাম্মাম নির্বাচনে জেতার জন্য ভোট কেনার চেষ্টা করেছিলেন৷ অবশ্য ঝ্যাং বলেন, বিন হাম্মামকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হলেও তিনিই এএফসি'র প্রেসিডেন্ট৷ তাঁকে এই পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার কোনো অধিকার ফিফা'র নেই৷ উল্লেখ্য, হাম্মামের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে তদন্ত চলছে এখনও৷

প্রতিবেদন: দেবারতি গুহ

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক