1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘ফরমালিন বিতর্ক’ আসল সত্য প্রকাশ করেছে

রাজনীতিতে এখন জায়গা করে নিচ্ছে পচনশীল দ্রব্য সংরক্ষণের রাসায়নিক তরল ফরমালিন৷ আওয়ামী লীগ ও বিএনপি উভয়ই এই ফরমালিন ছোড়াছুড়িতে ব্যস্ত৷ নেতারা পরস্পরের রাজনীতিতে পচন ধরেছে বলে দাবি করে ফরমালিন ব্যবহারের কথা বলছেন৷

তবে তাতে পচনশীল দ্রব্য তাজা থাকলেও রাজনীতি কতটা তাজা থাকবে তা বলতে পারছেন না রাজনীতির বিশ্লেষকরা৷

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাপান সফর শেষে দেশে ফিরে শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘‘বিএনপির রাজনীতি পচে গেছে৷ এখন আমরা একে ফরমালিন দিয়ে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করছি৷'' এর আগে খালেদা জিয়ার এক মন্তব্যের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন৷ শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘বিএনপি নির্বাচনে না এসে ধরা খেয়ে এখন খেই হারিয়ে ফেলছে৷''

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে রবিবার বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগ একটি ভয়ংকর দল৷ শেখ হাসিনার শাসনে এই দলটিই বরং পচে গেছে৷ এই দলকে বাঁচাতে এখন ফরমালিন প্রয়োজন৷'' তিনি বলেন, ‘‘বিএনপি কারুর দয়ায় রাজনীতি করে না৷ নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিলেই বোঝা যাবে কোন দলটি পচে গেছে৷''

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের শিক্ষক ড. শান্তনু মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এটা ইতিবাচক যে রাজনীতিবিদরা অশ্রাব্য ভাষার পরিবর্তে রাজনীতিতে ফরমালিনের মতো উপমা ব্যবহার করছেন৷ নতুন এই উপমায় হয়তো তরুণ প্রজন্ম ও সাধারণ মানুষ উৎসাহিত হবে৷ তবে তাঁরা আসল সত্য প্রকাশ করেছেন৷'' তিনি বলেন, ‘‘সবার কথার মধ্য দিয়েই একটি সত্য উঠে এসেছে যে রাজনীতিতে পচন ধরেছে৷ তবে এই পচনের কথা কে বা কারা বলছেন এবং তাদের মুখে এটা মানায় কিনা বা তাঁরা এই পচন রোধের উপযুক্ত লোক কিনা সেটাই বড় প্রশ্ন৷''

ড. শান্তনু মজুমদার বলেন, ‘‘বাংলাদেশের রাজনীতি এবং দলীয় রাজনীতিতে এখন গণতন্ত্রহীনতা লক্ষ্যণীয়৷ এটা দূর করা না গেলে রাজনীতির পচন রোধ করা সম্ভব নয়৷''

অন্যদিকে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক শ. ম রেজাউল করিম ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘বাংলাদশের রাজনীতির সংস্কার প্রয়োজন৷ দেশে যেমন গণতন্ত্র প্রয়োজন, তেমনি প্রয়োজন দলে৷ আর রাজনৈতিক দলগুলোর আচরণও হতে হবে গণতান্ত্রিক৷'' তিনি বলেন, ‘‘কোনো দলের অগণতান্ত্রিক কাজ সেই দলকে জনবিচ্ছিন্ন করে ফেলে৷ বাংলাদেশে তা ঘটছে৷'' তবে ফরমালিনে তা রক্ষা পাবে কিনা তা তাঁর জানা নেই৷

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও এই ফরমালিন নিয়ে চলছে তুমুল আলোচনা৷ কেউ বলছেন, ‘‘আমরা ফরমালিন মুক্ত রাজনীতি চাই৷'' আরেকজন বলেছেন, ‘‘ফরমালিন হলো বিষ৷ এই বিষ রাজনীতিতে প্রয়োগ করবেন না প্লিজ৷ এমনিতেই ফরমালিন যুক্ত মাছ-মাংস আর ফলমূল খেয়ে আমরা অসুস্থ হয়ে পড়েছি৷ আমাদের নতুন করে অসুস্থ করবেন না৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়