ফতোয়াবাজি বন্ধের ডাক দিলেন শেখ হাসিনা | বিশ্ব | DW | 08.02.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ফতোয়াবাজি বন্ধের ডাক দিলেন শেখ হাসিনা

ধর্মকে ব্যবহার করে ফতোয়াবাজির মাধ্যমে মানুষ হত্যায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ তিনি প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ইমামদের এই ধরনের ফতোয়াবাজি বন্ধে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন৷

default

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, জঙ্গিবাদ ,সন্ত্রাস এবং ধর্ম ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার দায়িত্বও নিতে হবে ইমামদের৷

সম্প্রতি শরিয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলায় ফতোয়বাজদের দোররার আঘাতে নিহত হন হেনা আক্তার ৷ প্রধানমন্ত্রী আজ ঢাকায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ইমামদের জাতীয় সম্মেলনে ওই ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন৷ তিনি বলেন, ‘‘ধর্মের নামে ফতোয়া দিয়ে মানুষ হত্যা আমাদের সমাজের জন্য কলঙ্ক৷ এই ধরনের ফতোয়াবাজি বন্ধ করতে হবে৷ যারা এ কাজ করে তারা ধর্মকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করছে৷'' ইমামদের এব্যাপারে সজাগ থাকতে বলেন প্রধানমন্ত্রী৷

প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ইমামদের জনমত গড়ে তোলারও আহ্বান জানান৷ তিনি বলেন, ‘‘যারা ধর্মের নামে রাজনীতি করছে তাদের মুখোশ খুলে দিতে হবে৷''

শেখ হাসিনা জানান, ডিজিটাল পদ্ধতিতে কোরান শরিফ প্রকাশের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে৷ বাংলা ইংরেজি এবং আরবি – এই তিন ভাষায় কোরান শরিফ পাওয়া যাবে ওয়েবসাইটে৷ ফলে ধর্ম ব্যবসায়ীরা ইসলামের অপব্যাখ্যা দিতে পারবেনা৷

এদিকে দোররার আঘাতে নিহত হেনা আক্তারের লাশ ফের ময়না তদন্তের জন্য আজ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে৷ হাইকোর্টের নির্দেশে গত রাতে শরিয়তপুর জেলার নড়িয়ার চামটা গ্রামে কবর থেকে তার লাশ তোলা হয়৷ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. কাজী গোলাম মোখলেসুর রহমানের নেতৃত্বে একটি বোর্ড গঠন করে লাশের ফের ময়না তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়