1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

প্রশ্নের মুখে ক্ষুদ্র ঋণ, ৬ কোটি লোক এখনো দরিদ্র

বাংলাদেশে ২০ হাজার ক্ষুদ্র ঋণদানকারী প্রতিষ্ঠান কাজ করলেও ১৫ কোটি মানুষের মধ্যে ৬ কোটি দরিদ্র্য সীমার নীচে বাস করে৷ তাই অর্থমন্ত্রী ক্ষুদ্রঋণের কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন৷

default

ক্ষুদ্রঋণ কি দারিদ্র্য বিমোচনে সফল হয়েছে?

ক্ষুদ্রঋণের সাফল্যে বাংলাদেশ বিশ্বে সমাদৃত৷ প্রায় ৪০ বছর ধরে এখানে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম চলছে৷ আর শান্তিতে নোবেল পেয়েছেন ক্ষুদ্রঋণের প্রবক্তা৷ সেই ক্ষুদ্র ঋণ এখন খোদ বাংলাদেশেই প্রশ্নের মুখে৷ অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত প্রশ্ন তুলেছেন, যে দেশে ২০ হাজার প্রতিষ্ঠান ক্ষুদ্রঋণ দেয়, সে’দেশে ৬ কোটি লোক কিভাবে দারিদ্র্য সীমার নীচে বাস করে৷ এর মধ্যে আবার ২ কোটি লোক হতদরিদ্র৷ অর্থমন্ত্রী বলেন, ভেবে দেখার সময় এসেছে, সময় এসেছে অনুসন্ধানের যে ক্ষুদ্রঋণ দারিদ্র্য বিমোচনে কোন ভূমিকা রাখতে পারছে কিনা৷

পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন পিকেএসএফ-এর ২০ বছর পুর্তি অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, ঋণের চোরাবালিতে আটকে গেছে বহু মানুষ ৷ঋণের ফাঁদ ফিরে এসেছে৷ অনেকে আটকে যাচ্ছেন ঋণের দুষ্টচক্রে৷তিনি বলেন ক্ষুদ্র ঋণ এককভাবে কখনো দারিদ্র্য বিমোচন করতে পারে না৷ দারিদ্র্য বিমোচনের জন্য প্রয়োজন মানব সম্পদ উন্নয়ন এবং কর্মসংস্থান৷ অর্থমন্ত্রী ক্ষুদ্র ঋণের সুদের হার, কিস্তি, ঋণদান পদ্ধতি এবং ঋণ ফেরত নেয়ার পদ্ধতি নিয়েও প্রশ্ন তোলেন৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়